লুকানো হচ্ছে প্রোডাক্টের জরুরি তথ্য, Flipkart ও Amazon কে নোটিশ পাঠালো কেন্দ্র

govt-sends-notice-to-flipkart-amazon-for-not-label-product-country-of-origin

Flipkart এবং Amazon-এ পুজোর সেল জমজমাট ভাবে শুরু হয়ে গিয়েছে। দুটি সাইট ই বিভিন্ন প্রোডাক্টের উপর বিপুল পরিমাণ ছাড়, ক্যাশব্যাক এবং আরো নানা রকম অফার দিচ্ছে। কিন্তু এর মধ্যেই শুক্রবার তথ্য গোপন করার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে দুটি কোম্পানিকেই। নোটিশটি উপভোক্তা মামলা বিভাগের তরফ থেকে পাঠানো হয়েছে। সরকারের তরফ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, Flipkart ও Amazon তাদের প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করা জিনিসের বিষয়ে জরুরি তথ্য এবং কোন দেশে সেগুলি উৎপন্ন হয়েছে তা দেখাচ্ছে না।

Amazon এবং Flipkart-কে নোটিশ পাঠানো ছাড়াও বিভাগের পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারদের ই-কমার্স কোম্পানিগুলির উপর নজর রাখতে বলা হয়েছে, যেন তারা সমস্ত নিয়ম মেনে চলে। যদিও দুটি সাইট ই এই বিষয়ে কোন মন্তব্য করেনি। উপভোক্তা মামলা বিভাগ সমস্ত ই-কমার্স সাইটকে লিগাল মেট্রোলজি (প্যাকেজড্ কমোডিটিস্) রুলস মেনে চলার জন্য বলেছে। Amazon এবং Flipkart-কে ১৫ দিনের মধ্যে নোটিশের উত্তর দিতে বলা হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়েছে, লিগাল মেট্রোলজি (প্যাকেজড্ কমোডিটিস্) রুলস ২০১১ অনুযায়ী, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে যে বাধ্যতামূলক ঘোষণা অন্তর্ভুক্ত থাকা দরকার তা এই ই-কমার্স সাইটদুটিতে নেই। Flipkart India Pvt Ltd এবং Amazon Development Centre India Pvt Ltd-কে এই বাধ্যতামূলক ঘোষণা অবিলম্বে তাদের প্ল্যাটফর্মে অন্তর্ভুক্ত করতে বলা হয়েছে।

লিগাল মেট্রোলজি (প্যাকেজড্ কমোডিটিস্) রুলস অনুযায়ী, একটি ই-কমার্স সাইটকে কোনো প্রোডাক্ট কোন দেশে তৈরী তা উল্লেখ করতে হয়। এই তথ্য ঠিক না ভুল তার দায়দায়িত্ব উৎপাদক বা বিক্রেতা বা ডিলার বা আমদানিকারীর উপর থাকে। রাজ্য সরকারদেরও এব্যাপারে নজর রাখতে বলা হয়। ২০১৮ সাল থেকেই এই নিয়মটি বলবৎ আছে। তবে এবার ই-কমার্স সাইটগুলি যাতে এই নিয়ম মেনে চলে তার জন্য কঠোর হয়েছে সরকার। মনে করা হচ্ছে যে সাম্প্রতিক কালে চিনা প্রোডাক্ট বর্জনের যে ট্রেন্ড চালু হয়েছে দেশ জুড়ে, তারই ফলশ্রুতি হিসাবে এতটা কঠোর হচ্ছে সরকার।