কলেজ ছেড়ে বেছে নিয়েছিলেন ফেসবুক, জন্মদিনে জানুন মার্ক জুকারবার্গ সম্পর্কে অজানা কিছু কথা

বিশ্বের বৃহত্তম সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গে আজ ৩৬ এ পা দিলেন। ১৯৮৪ সালের ১৪ ই মে মার্ক জুকারবার্গ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের ড্যাবস ফেরিতে জন্মগ্রহণ করেন। মার্ক জুকারবার্গের পুরো নাম মার্ক এলিয়ট জুকারবার্গ, তবে লোকে তাকে মার্ক বলেই ডাকে। মার্কের বাবার নাম এডওয়ার্ড জুকারবার্গ এবং মাতার নাম কারেন কেম্পার। মার্কের বাবা একজন চিকিৎসাবিদ এবং মা একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ। একই সময়ে, মার্ক তার পরিবারের একমাত্র ছেলে এবং তার তিনটি বড় বোন রয়েছে, যার নাম রান্ডি, ডোনা এবং আরিয়েল। আসুন এই বিশেষ দিনে মার্ক জুকারবার্গ সম্পর্কে কিছু আকর্ষণীয় বিষয় জেনে নিই।

– মার্ক জুকারবার্গ ছোট থেকেই কম্পিউটার খুব পছন্দ করতেন। মার্ককে তাঁর পিতা উপহার হিসাবে সি ++ বই উপহার দিয়েছিলেন। জানিয়ে রাখি সি ++ একটি কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ভাষা।

– শৈশবেই তিনি একটি মেসেজিং প্রোগ্রাম তৈরি করেছিলেন, যা তার বাবা তাঁর ডেন্টাল অফিসে ব্যবহার করতেন।

– মার্ক জুকারবার্গ হাই স্কুলে পড়ার সময়ে মাইক্রোসফ্ট এবং এওএল-র মতো বড় প্রযুক্তি সংস্থাগুলি থেকে কাজের অফার পেয়েছিলেন।

– মার্ক জুকারবার্গ ১৭ বছর বয়সে একটি সিনাপ্স মিডিয়া প্লেয়ার ডিজাইন করেছিলেন, এতে ব্যবহারকারীরা তাদের পছন্দের গান স্টোর করতে পারতো।

– মার্ক জুকারবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় ফেসম্যাশ নামে একটি সাইট চালু করেছিলেন। তবে এই সাইটটি বিশেষ কিছু করে দেখাতে সক্ষম হয়নি।

– তিনি ২৩ বছর বয়সে একজন বিলিয়নারে পরিণত হয়েছিলেন।

– ২০০৪ সালে, মার্ক জুকারবার্গ তার বন্ধুদের সাথে, দা ফেসবুক নামে সাইট তৈরি করেন, যাতে ব্যবহারকারীরা অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে এবং তাদের ফটো আপলোড করতে পারতো।

– ২০০৪ সালে, কলেজ ছেড়ে মার্ক ফেসবুকে তার সমস্ত সময় ব্যয় করতে শুরু করে। তার কঠোর পরিশ্রম এবং আগ্রহের দ্বারা ২০০৪ এর শেষে ফেসবুকে এক মিলিয়ন ব্যবহারকারী যুক্ত হয়েছিল।

– ২০০৫ সালে ভেনচার ক্যাপিটাল এক্সেল ফেসবুকে ১২.৭ মিলিয়ন ডলার ( প্রায় ১০০ কোটি) বিনিয়োগ করেছিল।

– ২০১০ সালে মার্ক জুকারবার্গ কে টাইম ম্যাগাজিন কর্তৃক পার্সন অফ দ্য ইয়ার মনোনীত করা হয় এবং ফোর্বস বিশ্বের শক্তিশালী ব্যক্তিদের তালিকায় তাকে ঠাঁই দেয়।

– আজ ২.৬ বিলিয়ন (২৬০ কোটি) ব্যবহারকারী ফেসবুকের সাথে যুক্ত।