আগামী মার্চে নতুন ইলেকট্রিক স্কুটার নিয়ে আসছে Hero MotoCorp

hero-motocorp-to-launch-new-electric-scooter-next-year

বর্তমানে ভারতে বাইক-স্কুটারের বাজারের বেশ বড়ো অংশের শেয়ার রয়েছে হিরোর হাতে। বাজেট বাইক সেগমেন্টে (১০০-১১০সিসি) এখনও কর্তৃত্ব বজায় রেখে চলেছে তারা। কিন্তু ফিউচার যে ইলেকট্রিক! ভবিষ্যতে পরিবহনের সিংভাগ যানবাহব চলবে বৈদ্যুতিক শক্তিতে। আর সে কথা মাথায় রেখেই গুটি সাজাচ্ছে হিরো। আগামী বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকের মধ্যে নতুন ইলেকট্রিক স্কুটার লঞ্চ করবে সংস্থাটি।

হিরো মোটোকর্পের সিএফও নিরঞ্জন গুপ্ত জানিয়েছেন, বাজেটের পাশাপাশি প্রিমিয়াম সেগমেন্টের কথা মাথায় রেখে ইভি (ইলেকট্রিক ভেহিকেল) প্রোডাক্ট ডেভেলপ করছেন তারা। সংস্থার প্রথম ইভি আগামী বছরের মার্চে বাজারে আসবে। গুপ্তার বিশ্বাস, ভারতজুড়ে শক্তিশালী ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক, স্পেয়ার পার্টসের সহজলভ্যতা, এবং ১০০ মিলিয়ন গ্রাহকের আস্থা ইভি সেগমেন্টে হিরোকে ব্যাপকভাবে সাহায্য করবে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি কোম্পানির দশ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে একটি ভার্চুয়াল ইভেন্ট হোস্ট করেছিল Hero। ইভেন্টের একদম শেষে দেখানো হয়েছিল হিরোর ইলেকট্রিক স্কুটারের প্রথম ঝলক। প্রথম দর্শনেই বেশ স্লিক বলে মনে হয়েছে মডেলটিকে। কার্ভড বডি ছিল সেটিতে। গায়ে ছিল সাদা ও কালো রঙের মিশ্রণ। স্কুটারটিতে ফ্লাইস্ক্রিন এবং লম্বা স্প্লিট সিট দেখা গিয়েছিল। হিরো মোটোকর্পের প্রথম ব্যাটারি চালিত স্কুটারের স্পেসিফিকেশন, ফিচার সম্পর্কে অবশ্য কিছু জানা যায়নি।

এদিকে আবার তাইওয়ানের সংস্থা গোগোরো (Gogoro)-র সাথে গাঁটছড়া বেঁধেছে হিরো। এই কৌশলগত অংশীদারিত্বের অধীনে হিরো তাদের আপকামিং ইলেকট্রিক টু-হুইলারগুলিতে গোগোরো-র প্রযুক্তির সমন্বয়সাধন করবে। সেইসঙ্গে বিশ্বের বৃহত্তম ব্যাটারি সোয়াপিং স্টেশন, Gogoro Network ভারতবর্ষে নিয়ে আসবে হিরো মোটোকর্প।

সংস্থার সিএফও আরও বলেছেন, আগামী বছরের শেষে হিরো ও গোগোর যৌথ ভাবে ভারতে ইলেকট্রিক স্কুটার লঞ্চ করবে। উল্লেখ্য, গোগোরো এর মধ্যেই ভারতে একটি ই-স্কুটারের পেটেন্ট দায়ের করেছে। বিদেশের বাজারে লঞ্চ হয়ে যাওয়া Gogoro Viva-র পেটেন্টটি ভারতে গত মে মাসে মঞ্জুর হয়েছিল। এটি রিব্র্যান্ডেড হয়ে হিরো মোটোকর্প নামে দেশে আত্মপ্রকাশ করতে পারে বলে জল্পনা শোনা যাচ্ছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপে শুভ্রর প্রথম প্রযুক্তি বিষয়ক লেখায় হাতেখরি৷ স্নাতক স্তরের পড়াশোনার পাশাপাশি এখানেই চলতে থাকে শুভ্রর লেখালেখি৷ কলেজের অধ্যায় শেষ হওয়ার পর শুভ্র এখন টেকগাপের কনটেন্ট টিমের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য৷