Gogoro-র সাথে জোট বেঁধে ইলেকট্রিক স্কুটার ও ব্যাটারি সোয়াপিং স্টেশন আনছে Hero

Hero partners with gogoro for using battery swapping platform

তাইওয়ানের সংস্থা গোগোরো (Gogoro)-এর কাছে বিশ্বের বৃহত্তম ব্যাটারি সোয়াপিং নেটওয়ার্ক বর্তমান৷ “আরবান ব্যাটারি সোয়াপিং” ও “স্মার্ট মোবিলিটি” উদ্ভাবনের জন্য গোগোরো-র খ্যাতি বিশ্বজোড়া। অন্যদিকে, ভারতের হিরো মটোকর্প (Hero MotoCorp) বিশ্বের বৃহত্তম টু-হুইলার প্রস্তুতকারী সংস্থা। জন্মলগ্ন থেকে হিরো আজ পর্যন্ত ১০০ মিলিয়ন বা ১০ কোটির বেশি টু-হুইলার তৈরি করেছে। হিরো ও গোগোরো-র মধ্যে এতদিন পারস্পরিক কোনো যোগসূত্র ছিল না। তবে কৌশলগত অংশীদারিত্বের ঘোষণা দুটি সংস্থাকে এবার কাছাকাছি নিয়ে এল। যৌথ উদ্যোগে গোগোরো-র ব্যাটারি সোয়াপিং প্ল্যাটফর্ম বা গোগোরো নেটওয়ার্ক ভারতবর্ষে নিয়ে আসার পাশাপাশি, দেশে হিরো মটোকর্প ব্র্যান্ডেড আপকামিং ইলেকট্রিক টু-হুইলারগুলিতে গোগোরো-র অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয়সাধন করা হবে বলে হিরো অফিসিয়াল বিবৃতিতে জানিয়েছে।

ব্যাটারি সোয়াপিং প্রযুক্তি কী

ব্যাটারি সোয়াপিং বা ব্যাটারি অদলবদল এমনই এক প্রক্রিয়া যেখানে ফুরিয়ে যাওয়া ব্যাটারি সম্পূর্ণ চার্জযুক্ত ব্যাটারির সাথে এক্সচেঞ্জ করা যায়। বিএসএস (ব্যাটারি সোয়াপিং স্টেশন) ব্যাটারি এগ্রিগেটর রূপে কাজ করে, এবং ব্যাটারি চার্জ করা ও বৈদ্যুতিক গাড়ি চালকদের কাছে সেগুলি উপলব্ধ করার পরিকাঠামো সররাহ করে। প্রচলিত আইসিই বাইক বা স্কুটার রিফুয়েলিং কয়েক সেকেন্ডের ব্যাপার, কিন্তু যখনই ইলেকট্রিক বাইক বা স্কুটারের প্রসঙ্গে আসা হচ্ছে, এসি চার্জিং বা ফাস্ট ডিসি চার্জিংয়ের মাধ্যমেও গাড়ি চার্জ হতে অত্যন্ত লম্বা সময় নেয়। তাই ব্যাটারি সোয়াপিং স্টেশনের উপস্থিতি সেই সমস্যা অনেকটাই লাঘব করবে। আবার দেশজুড়ে ব্যাটারি সোয়াপিং স্টেশনের মজবুত কাঠামো গড়ে উঠলে রাইডিং রেঞ্জ নিয়েও চিন্তা অনেকটাই কমবে।

গোগোরো নেটওয়ার্ক

গোগোরো নেটওয়ার্ক হল একটি ব্যাটারি সোয়াপিং ওপেন প্ল্যাটফর্ম, যার সাফল্যের রহস্য কানেক্টিভিটি, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, এবং মেশিন লার্নিং প্রযুক্তির মধ্যে লুকিয়ে। গোগোরো নেটওয়ার্কে দৈনিক ২ লক্ষ ৬৫ হাজার ব্যাটারি সোয়াপ হয় এবং আজ পর্যন্ত এই প্ল্যাটফর্মে ১৭৪ মিলিয়নের বেশি ব্যাটারি সোয়াইপ করা হয়েছে। এমনকি গ্লোবাল সোয়াপেবল ব্যাটারি ইলেকট্রিক স্কুটার মার্কেটের জন্য বিজনেস কনসাল্টিং ফির্ম ফ্রস্ট এন্ড সুলিভান গোগোরো-কে ‘কোম্পানি অফ দ্য ইয়ার ২০২০’ সম্মানে ভূষিত করেছে।

হিরো মটোকর্প বরাবরই ঘরোয়া টু-হুইলার বাজারে অভূতপূর্ব সাফল্যের স্বাদ পেয়েছে৷ ফলে হিরো-র জনপ্রিয়তা এবং স্মার্ট ভেহিকেল সরবরাহ ও ব্যাটারি সোয়াপিং প্ল্যাটফর্মে গোগোরো-র দক্ষতার জন্য দুই সংস্থার কৌশলগত সম্পর্ক প্রথম থেকেই অ্যাডভান্টেজ পেয়ে বসে আছে। উল্লেখ্য, গোগোরো-র ভেহিকেল মেকার পার্টনারেরা কোম্পানির স্মার্ট ইনোভেশন এবং আইপি (ইন্টেলেকচুয়াল প্রোপার্টি)-র অ্যাক্সেস পেয়ে থাকে। ফলে গোগোরো-র ড্রাইভট্রেন, কন্ট্রোলার, কম্পোনেন্টস, এবং স্মার্ট সিস্টেমের অ্যাক্সেস হিরো-র কাছে চলে আসছে।

Gogoro

গোগোরো’র ফাউন্ডার ও সিইও হোরাসে লুক বলেন, “আরবান মবিলিটির রূপান্তর ও স্মার্ট সিটির বিবর্তনের পথে আমরা এখন জটিল ধাপে রয়েছি। ভারতে ২২৫ মিলিয়ন (২২ কোটি ৫০ লাখ) গ্যাসচালিত দু-চাকার যান রয়েছে, তাই স্মার্ট ও টেকসই ইলেকট্রিক ট্রান্সপোর্টেশন এবং রিফুয়েলিং গুরুত্বপূর্ণ।”

গোগোরো-র সাথে চুক্তি সম্পর্কে হিরো মটোকর্পের চেয়ারম্যান এবং সিইও পবন মুঞ্জল বলছেন, এই পার্টনারশিপ ইভি পোর্টফোলিওতে আমাদের কাজ আরও উন্নত পর্যায়ে নিয়ে যাবে। গোগোরো-র সাথে হাত মেলানোর ফলে জয়পুরে স্থাপিত আমাদের দ্য সেন্টার অব ইনোভেশন অ্যান্ড টেকনোলজি (সিআইটি) এর রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমন্ট (আর অ্যান্ড ডি) হাব এবং জার্মানির টেক সেন্টারে কাজের পরিধি আরো বিস্তৃত হবে।

‘দ্য ফিউচার ইজ ইলেকট্রিক’, কথাটি প্রায়ই ব্যবহার হয়ে থাকে৷ ভবিষ্যতে যখন বৈদ্যুতিন যানবাহনের গ্রহণ আরও বাড়বে তখন সামনের সারিতে বসে হিরো অবশ্যই নেতৃত্ব দিতে চাইবে। তাই গোগোরো-র মতো খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি হিরো-র সুচিন্তিত পরিকল্পনার পরিচয় দিচ্ছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন