Hero Xtreme 160R নাকি Bajaj Pulsar NS160 নাকি TVS Apache RTR 160 4V, জানুন এগিয়ে কে

hero-xtreme-160r-vs-bajaj-pulsar-ns160-vs-tvs-apache-rtr-160-4v-price-specifications-comparison

জনপ্রিয় বাইক ও স্কুটার কোম্পানি Hero ভারতে তাদের নতুন বাইক Hero Xtreme 160R লঞ্চ করে দিয়েছে। জানা গিয়েছে যে কোম্পানি এই বাইকটিকে ১৬০ সিসি ইঞ্জিন সেগমেন্টে লঞ্চ করেছে। এর আগে ভারতীয় মার্কেটে ১৬০ সিসির বাইক হিসেবে Bajaj Pulsar NS160 এবং TVS Apache RTR 160 4V ছিল। এই সমস্ত বাইকগুলির সাথে সরাসরি টক্কর দিতে চলেছে হিরোর এই নতুন বাইক Hero Xtreme 160R। আজ আমরা এই প্রতিবেদনে Bajaj Pulsar NS160, TVS Apache RTR 160 4V এবং Hero Xtreme 160R এর তুলনা করতে চলেছি যা বাইক প্রেমীদের জানা প্রয়োজন।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

পাওয়ার :

Hero Xtreme 160R এ ১৬০ সিসির এয়ার কুইড ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছে যা ১৫ বিপিএইচ পাওয়ার এবং ১৪ এনএম টর্ক জেনারেট করে। সেখানেই Pulsar NS160 বাইকটিতে দেওয়া হয়েছে ১৬০.৩ সিসি ইঞ্জিন, যা ১৭ বিএইচপি পাওয়ার এবং ১৪.৬ এনএম টর্ক জেনারেট করতে সক্ষম। অন্যদিকে Apache RTR 160 4V বাইকটিতে ১৫৯.৭ সিসি এর ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছে। এই ইঞ্জিন টি ১৫.৮ বিএইচপি পাওয়ার ও ১৪.১২ এনএম টর্ক জেনারেটে সক্ষম।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

ব্রেকিং :

ব্রেকিং এর দিক থেকে বলতে গেলে কোম্পানি Xtreme 160R বাইকটিকে দুটি ভ্যারিয়েন্টে লঞ্চ করেছে। উভয় ভ্যারিয়েন্টেই সামনে ফ্রন্ট ২৭৬ মিমি ডিস্ক ব্রেক দেওয়া হয়েছে। তবে ফ্রন্ট ডিস্কের দিকে এক হলেও, একটি ভ্যারিয়েন্টের পিছনের ব্রেকিং অপশন হিসেবে ২২০ মিমি ডিস্ক ব্রেক এবং অপর ভ্যারিয়েন্ট টিতে পিছনের ব্রেকিং অপশন হিসেবে ১৩০ মিমি ড্রাম ব্রেক রয়েছে।

সেখানে Pulsar NS160 এ ব্রেকিং অপশন হিসেবে সামনে পাবেন ২৬০ মিমি এবং পিছনে পাবেন ২৩০ মিমি ডিস্ক ব্রেক। অন্যদিকে গ্রাহকেরা RTR 160 4V বাইকটিতে দুই ধরনের ব্রেকিং এর বিকল্প পাবেন। যেখানে একটি বিকল্পে ফ্রন্টে ২৭০ মিমি ডিস্ক ব্রেকের সাথে ১৩০ মিমি ড্রাম ব্রেক আছে। আবার অপর বিকল্পটিতে সামনে ২৭০ মিমি ডিস্ক ব্রেকের সাথে ২০০ মিমি রিয়ার ডিস্ক ব্রেক দেওয়া হয়েছে।

সাইজ :

Hero xtreme 160R বাইকটি ২০২৯ মিমি লম্বা, ৭৯৩ মিমি চওড়া, ১০৫২ মিমি উচ্চ। বাইকটিতে দেওয়া হয়েছে ১৩২৭ মিমি এর হুইলবেস। সেখানে Pulsar NS160 বাইকটি ২০১৭ মিমি লম্বা, ৮০৩.৫ মিমি চওড়া এবং ১০৬০ মিমি উচ্চ। বাইকটিতে ১৩৭২ মিমি হুইলবেস দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে Apache RTR 160 4V বাইকটি ২০৩৫ মিমি লম্বা, ৭৯০ মিমি চওড়া এবং ১০৫০ মিমি উচ্চ। বাইকটিতে পাবেন ১৩৫৭ মিমি হুইলবেস। তিনটি বাইকেই গ্রাহক ১২ লিটারের একটি ফিউল ট্যাঙ্ক পেয়ে যাবেন।

রঙের বিকল্প :

রঙের বিকল্পের দিক থেকে দেখলে এই তিনটি বাইকেরই তিনটি করে বিকল্প ভারতীয় বাজারে পাওয়া যায়। Xtreme 160R বাইকটির বিকল্পগুলি সিলভার বাইট, ভাইব্রেট ব্লু এবং স্পোর্টস রেড কালারে উপলব্ধ। সেখানে Pulsar NS160 বাইকটি ফসিল গ্রে, বাইল্ড রেড এবং সৌফার ব্লু এই তিনটি রঙের বিকল্পে পাবেন । অন্যদিকে RTR 160 4V পাওয়া যায় রেসিং রেড, মেটালিক ব্লু এবং নাইট ব্ল্যাক বিকল্পে।

দাম :

হিরো এক্সট্রিমের ১৬০আর এর সিঙ্গেল ডিস্ক ভ্যারিয়েন্টের দাম ৯৯ হাজার ৯৫০ টাকা এবং ডাবল ডিস্ক ভ্যারিয়েন্টের দাম ১.০৩ লাখ টাকা। আবার Pulsar NS160R কিনতে পারবেন ১.০৬ লাখ টাকাতে। অন্যদিকে RTR 160 4V এর ড্রাম ভ্যারিয়েন্টের দাম ১.০৩ লাখ এবং ডিস্ক ভ্যারিয়েন্টটির দাম ১.০৬ লাখ টাকা।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন