Honda ভারতে আনছে CB300L Dual-Purpose মোটরসাইকেল? জল্পনা বাড়াল খোদ কোম্পানি

honda-files-patent-for-cb300l-dual-purpose-motorcycle-in-india

Honda Motorcycle & Scooter India (হন্ডা মোটরসাইকেল এন্ড স্কুটার ইন্ডিয়া) ভারতে CF300L অ্যাডভেঞ্চার বাইকের পেটেন্ট দায়ের করেছে। বলে রাখি, Honda CF300L একটি ডুয়াল পারপাস ডার্ট বাইক, যা বর্তমানে বিভিন্ন আর্ন্তজাতিক বাজারে উপলব্ধ। সাম্প্রতিক সময়ে Honda, CB500X, CBR650R, এবং CB650R-এর মতো বড় ইঞ্জিন ক্যাপাসিটির বাইক এদেশে এনেছে। আবার এখন অ্যাডভেঞ্চার বাইক নিয়ে মানুষ যেভাবে আগ্রহ দেখাচ্ছে, বিশেষত সাব-400cc সেগমেন্টের জন্য, তাতে Honda CF300L-এর ভারতে আগমনের এটি অনুকূল সময় হতে পারে।

উল্লেখ্য, Honda বর্তমানে এদেশে অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমীদের জন্য দু’টি বাইক বিক্রি করে। একটি Honda CB500X এবং অপরটি Honda Africa Tween। তবে বাইক দু’টির দাম সিংহভাগ ক্রেতার নাগালের বাইরে। ফলে Honda অপেক্ষাকৃত সস্তায় CF300L লঞ্চের পরিকল্পনা করছে বলেই অনুমান করা যায়।

ডিজাইনের দিক থেকে Honda CF300L-এর মধ্যে দুর্দান্ত অ্যাডভেঞ্চার মোটরসাইকেলের যাবতীয় মশলা মজুদ। বাইকে অত্যন্ত দীর্ঘ ট্রাভেল সাসপেনশন, অফ-রোড ফ্রেন্ডলি আর্গোনমিক, বিশাল গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স, হেডল্যাম্প কাউল, সিঙ্গল-পিস সিট, সিঙ্গল-পিস হ্যান্ডেলবার, ঊর্ধ্বোত্থিত ফ্রন্ট ফেন্ডার, আন্ডার সিট এগজস্ট, প্রভৃতি আছে।

Honda CRF300L অ্যাডভেঞ্চার মোটরসাইকেলের ইন্টারন্যাশনাল ভার্সনে Euro 5 মাপকাঠি মেনে তৈরি 286cc-র সিঙ্গল সিলিন্ডার, লিকুইড কুল্ড ইঞ্জিন রয়েছে৷ ইঞ্জিনের সর্বোচ্চ পাওয়ার ও টর্ক আউটপুট 26bhp ও 26.6Nm৷ বাইকে গিয়ারের সংখ্যা ছ’টি।

সাসপেনশনের কার্য সামলানোর জন্য Honda CRF300L-এর সামনে 234mm ট্রাভেল সহ 43mm USD বা আপসাইড ডাউন ফোর্ক এবং পিছনে 260 মিমি ট্রাভেল সহ মনোশক ইউনিট আছে। প্রসঙ্গত, বাইকে সাসপেনশন অ্যাডজাস্ট করার সুবিধা পাওয়া যাবে না। বাইকে ব্রেকিং সেটআপ হিসেবে রয়েছে 256mm ও 220mm-এর ফ্রন্ট ও রিয়ার ডিস্ক ব্রেক; ডুয়াল চ্যানেল এবিএস দ্বারা এটি সাপোর্টেড।

Honda CB300L Dual-Purpose motorcycle

Honda CRF300L অ্যাডভেঞ্চার মোটরসাইকেলের সিটের উচ্চতা 830mm। ফলে রাইডারের উচ্চতা কম হলেও কোনও সমস্যা হবে না। বাইকটির গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স 244mm, Royal Enfield Himalayan-এর চেয়েও 24 মিমি বেশি। ওজন শুনলেও অবাক হবেন, Honda CRF300L-এর কার্ব ওয়েট 138Kg। তবে ভ্রমণের দৃষ্টিকোণ থেকে Honda CRF300L-এর ফুয়েল ট্যাঙ্কের ক্যাপাসিটি হতাশ করবে। এটি মাত্র 7.8 লিটার তেল স্টোর করে রাখতে পারে।

আগেই বলেছি, Honda CRF300Lআপাদমস্তকে অফ-রোড বাইক। অন-রোডে চালানোর জন্য বাইকটি খুব কম ফিচার বা কম্প্যাটিবিলিটি অফার করবে। আবার পেটেন্টে কথায় আসলে, রেজিস্টার করার অর্থ সেটির বাজারে আসা নিশ্চিত, এমনটা কিন্তু নয়। ভারতে CRF300L অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরার কি পেটেন্ট নথিপত্রেই থেকে যাবে, নাকি Honda সত্যি সত্যি এদেশে বাইকটি লঞ্চ করবে, তা দেখার জন্য আমরা অপেক্ষায় থাকবো।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপে শুভ্রর প্রথম প্রযুক্তি বিষয়ক লেখায় হাতেখরি৷ স্নাতক স্তরের পড়াশোনার পাশাপাশি এখানেই চলতে থাকে শুভ্রর লেখালেখি৷ কলেজের অধ্যায় শেষ হওয়ার পর শুভ্র এখন টেকগাপের কনটেন্ট টিমের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য৷