হ্যাকারের সাধ্য নেই WhatsApp হ্যাক করবে, মেনে চলুন এই কয়েকটি নিয়ম

সম্প্রতি অ্যামাজনের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার জেফ বেজোসের ফোন হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে হ্যাক হয়ে যাওয়ার পরে টেলিকম দুনিয়ায় বেশ চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। তার মত মানুষের সঙ্গে যদি এরকম ঘটতে পারে তাহলে যেকোনো মানুষের সঙ্গেই এই ঘটনা ঘটা সম্ভব। তাই আমরা এখানে জানাব কিভাবে আপনারা এই ধরনের হ্যাকিং এর থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

১. হোয়াটসঅ্যাপে একটি টু স্টেপ ভেরিফিকেশন ফিচার রয়েছে যেটি বেশ কিছু মাস আগে লঞ্চ করা হয়েছিল। এই ফিচারটি চালু করে দিলে আপনার ফোন হ্যাক করা হ্যাকারদের পক্ষে বেশ কষ্টকর হবে। এখানে WhatsApp আপনার থেকে আপনার সঠিক ইমেইল আইডি জানতে চাইবে। যখন আপনি আপনার পিন ভুলে যাবেন তখন ইমেইল অ্যাড্রেসটি ব্যবহার করে আপনি আবার হোয়াটসঅ্যাপ চালু করতে পারবেন এছাড়াও এই ভেরিফিকেশন ব্যবহার করলে আপনার নিরাপত্তা বহুলাংশে বেড়ে যাবে।

২. এই ফিচারটির ব্যাপারে হয়তো আপনারা সকলেই জানেন। হোয়াটসঅ্যাপে আপনারা নিজের মতো নির্বাচন করতে পারেন যে কারা আপনার প্রোফাইল ফটো, স্ট্যাটাস দেখতে পাবে এবং কারা পারবেনা। এই সেটিংসে মাই কন্ট্যাক্টস ওনলি করে রাখলে শুধুমাত্র আপনি যাদের নম্বর নিজের ফোনে সেভ করেছেন তারাই আপনার প্রোফাইল ফটো, স্ট্যাটাস, অ্যাবাউট ইত্যাদি দেখতে পাবেন।

৩. আপনার হোয়াটসঅ্যাপে যদি কখনো কোনো সন্দেহজনক লিংক আসে তাহলে কখনোই না যাচাই করে সেই লিংকটি খুলে দেবেন না। এই লিংকের মাধ্যমে খুবই সহজে আপনার ফোন হ্যাক করে নেওয়া সম্ভব।

৪. আপনি যদি কোন সময় আপনার ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে WhatsApp Web ব্যবহার করেন তাহলে অবশ্যই কাজ হয়ে গেলে সে কম্পিউটার থেকে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টটিকে লগআউট করে দেবেন।

৫. অ্যান্ড্রয়েডের জন্য হোয়াটস অ্যাপ লক স্ক্রীন ফিচারটি কিছুদিন আগে লঞ্চ করা হয়েছে। এই ফিচারটি ব্যবহার করলে আপনি ছাড়া আপনার হোয়াটসঅ্যাপ কেউ খুলতে পারবেন না।

৬. এছাড়া কোনো কারণে দুর্ভাগ্যবশত যদি আপনার ফোন চুরি হয়ে যায় তাহলে হোয়াটসঅ্যাপের সেটিংসে গিয়ে ডিলিট মাই অ্যাকাউন্ট অপশনটি ব্যবহার করে আপনি আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলতে পারেন। তাহলে ওই ফোনে আর কোনও মেসেজ আসবে না।