হ্যাকার থেকে সাবধান! আপনার হাতের স্মার্টফোনকে সুরক্ষিত রাখুন এই ৮ উপায়ে

হ্যাকারের হাত থেকে স্মার্টফোনকে সুরক্ষিত রাখতে খেয়াল রাখুন এই বিষয়গুলি

how-to-protect-your-smartphone-from-hackers-8-tips

সময়ের সাথে সাথে স্মার্টফোন ও ইন্টারনেটের ব্যবহার দ্রুত বাড়ছে। আর মানুষ যত প্রযুক্তি নির্ভর হচ্ছেন, ততই লাগামছাড়া ভাবে বাড়তে থাকছে হ্যাকিংয়ের ঘটনা। ফলে স্মার্টফোন বা ইন্টারনেট ব্যবহার করার সময়ে যদি সচেতন না থাকা হয়, তবে আমাদের ব্যক্তিগত তথ্যাদির কুষ্ঠি সরাসরি হ্যাকারদের হাতে গিয়ে পড়বে। যার ফলাফল স্বরূপ বড়োসড়ো আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে। তাই অ্যান্ড্রয়েড হোক বা আইফোন, যেকোনো মোবাইল ব্যবহারের ক্ষেত্রেই ডেটার সুরক্ষা সুনিশ্চিত করতে কয়েকটি প্রাথমিক বিষয়ে খেয়াল রাখা উচিত। আজ আমরা তাই হ্যাকারের হাত থেকে স্মার্টফোন সুরক্ষিত রাখার কিছু বিশেষ কৌশল আপনাদের জানাবো, যা অনুসরণ করলে আপনি কখনোই হ্যাকিংয়ের শিকার হবেন না।

হ্যাকারের হাত থেকে স্মার্টফোনকে সুরক্ষিত রাখতে খেয়াল রাখুন এই বিষয়গুলি (How to protect your smartphone from hackers)

সময়ে সময়ে সফ্টওয়্যার আপডেট করুন

ফোনে পুরোনো ওএস ভার্সন ব্যবহার করার ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর ডেটা ফাঁসের ঝুঁকি অনেকাংশে থেকে যায়। কারণ, স্মার্টফোন নির্মাতা সংস্থাগুলি সাইবার হামলা এড়াতে ফোনের সিকিউরিটি সিস্টেম আপডেট করতে থাকে। তাই, ব্যক্তিগত ডেটা এবং অ্যাকাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে প্রত্যেক অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের উচিত সময়ে সময়ে ওএস বা অপারেটিং সিস্টেমকে আপডেট করতে থাকা। সাইবার আক্রমণ থেকে ফোনকে সুরক্ষিত রাখার জন্য এটিই প্রথম পদক্ষেপ। সফ্টওয়্যার আপডেট করার জন্য, ফোনের সেটিংসে গিয়ে সফ্টওয়্যার আপডেট অপশনে ক্লিক করতে হবে।

পাসওয়ার্ড প্রটেকশন অন রাখুন

নিরাপত্তার খাতিরে ফোনকে সর্বদা পাসওয়ার্ড প্রটেক্টেড রাখুন। সেক্ষেত্রে, স্ক্রিন-লক হিসাবে সোয়াইপের পরিবর্তে প্যাটার্ন লক, পাসওয়ার্ড পিন এবং অ্যাল্ফাবেটিক্যাল-নিউমেরিক পাসওয়ার্ড বেছে নিতে পারেন। পাসওয়ার্ড বাছাই করার ক্ষেত্রে সহজ কিন্তু স্বতন্ত্র শব্দ বা নম্বর চয়ন করুন। এমনটা করলে ফোন হ্যাক করা কঠিন হবে। এছাড়া, আপনি ফোন লক হওয়ার অটোমেটিক টাইমিং -ও সেট করতে পারবেন।

APK ফাইল ডাউনলোড করার থেকে বিরত থাকুন

ডিভাইস সুরক্ষিত রাখতে ভুলেও APK ফাইল ডাউনলোড করবেন না। কারণ, বেশিভাগ APK ফাইল সার্টিফাইড হয় না। ফলে এগুলির মাধ্যমে খুব সহজেই ডিভাইস হ্যাক করা সম্ভব। তাই, প্রতারণার ফাঁদে যদি পা দিতে না চান, তবে এই ভুলটি একদম করবেন না।

বিশ্বস্ত অনলাইন স্টোর থেকে অ্যাপ ইনস্টল করুন

APK ফাইল ডাউনলোড করলে ঝুঁকির সম্ভাবনা আছে ঠিকই। কিন্তু, তা বলে যেকোনো অ্যাপ ডাউনলোড করলেই যে হ্যাকারের খপ্পড়ে পড়তে হবে এমনটা একদমই নয়। এক্ষেত্রে, আপনারা গুগল প্লে স্টোর বা অ্যাপল স্টোরের মতো সার্টিফাইড অনলাইন স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন। কোনো থার্ড পার্টি স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করার থেকে বিরত থাকুন।

অ্যাপ ডাউনলোড করার সময়ে শর্তাবলী পড়ুন

যেকোনো অ্যাপ বা সফ্টওয়্যার ডাউনলোডের ক্ষেত্রে ‘Terms and Conditions’ বা শর্তাবলী দেওয়া থাকে। কিন্তু, শর্তাবলীর লম্বা তালিকা দেখে আমরা প্রায় প্রত্যেকেই সেটিকে না পরে ‘Agree’ বাটনে ক্লিক করে দিই। কিন্তু এই এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা আপনার জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে। কারণ, অ্যাপগুলি প্রয়োজন ছাড়া ফোনের কন্টাক্ট লিস্ট, ক্যামেরা ও গ্যালারি অ্যাক্সেস করার অনুমতি চায়। আপনারা যদি নিরীক্ষণ না করেই অনুমতি দিয়ে দেন তবে ডিভাইস হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেবে। তাই অ্যাপ ডাউনলোড করার সময় সর্বদা শর্তাবলী পড়ার অভ্যাস করুন।

ব্লুটুথ, জিপিএস, ওয়াই-ফাই বন্ধ রাখুন

প্রয়োজন না পরলে, ফোনের ব্লুটুথ, জিপিএস এবং ওয়াই-ফাই পরিষেবা বন্ধ রাখা উচিত। কারণ, এই ওয়্যারলেস টেকনোলজিগুলির মাধ্যমে হ্যাকাররা সহজেই আপনার ফোন হ্যাক করতে পারে। তাই প্রয়োজন ছাড়া উক্ত পরিষেবাগুলিকে ডিঅ্যাক্টিভ রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

ওয়াই-ফাই ব্যবহার করার সময় সতর্ক থাকুন

আমরা অনেকেই ক্যাফে বা শপিং মলে গিয়ে সেখানকার ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু, আপনাদের মধ্যে হয়তো অনেকেই হয়তো জানেন না যে, ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করার জন্য আপনার ফোনে থাকা তথ্যাদি হ্যাক হয়ে যেতে পারে। কারণ, একই নেটওয়ার্ক একসাথে অনেকেই ব্যবহার করছে। ফলে কেউ যদি সেই পাবলিক নেটওয়ার্ক সিস্টেমে ম্যালিসিয়াস কোড ঢুকিয়ে দিতে সক্ষম হয়ে যায় তাহলে, সেই ওয়াই-ফাই রাউটার ব্যবহারকারী সকল ব্যক্তির ডিভাইস হ্যাক হতে পারে। তাই চেষ্টা করুন পাবলিক নেটওয়ার্কগুলিকে ব্যবহার না করার। আর যদি একান্তই উপায় না থাকে, তাহলে ওই সময়টুকু কোনো ব্যাঙ্কিং অ্যাপ অ্যাক্সেস করবেন না ভুলেও।

পুরানো অ্যাপ আন-ইনস্টল করুন

ফোনের পারফরম্যান্স এবং সুরক্ষা বজায় রাখতে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলি আনইনস্টল করা উচিত। কারণ, এই অদরকারি অ্যাপগুলি আপনার ফোনের জায়গা দখল করে রাখে এবং এর ফলে সফ্টওয়্যার আপডেটের সময় স্টোরেজ কম পড়তে পারে। আর ওএস আপডেট না করার ফলে কি ঘটতে পারে তা তো আপনাদের আগেই জানিয়েছি। তাই ফোনের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে অ্যাপের ভিড় কমান।

শুভেচ্ছা বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একদিকে যেমন ফটোগ্রাফার, তেমনি পাশাপাশি লেখিকাও। এছাড়াও তার শখের মধ্যে আছে বই পড়া, গান গাওয়া, ছবি আঁকা এবং ওয়েব ডিজাইন। শুভেচ্ছা আমাদের টেকগাপ পরিবারের একজন নতুন সদস্য।