৮০০ বছর পর কাছে আসছে বৃহস্পতি-শনি! কিভাবে দেখবেন এই মহাজাগতিক দৃশ্য

চলতি বছরের বেশির ভাগ সময়েই আমরা জটিল পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছি। মহামারীর কবলে পড়েছে গোটা বিশ্ব, বারবার সামনে এসেছে বিভিন্ন দুঃসংবাদ। তবে ইতিহাসের পাতায় কি ২০২০ সালটি শুধুই দুর্যোগের বছর হিসেবে চিহ্নিত হবে? মোটেও না! বছরের শেষ দিকে এসে গোটা বিশ্ববাসী এমন এক বিরল ঘটনার সাক্ষী হতে চলেছেন, যার চর্চা চলবে আগামী কয়েক প্রজন্ম অবধি। আজ, আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পর কাছাকাছি আসতে চলেছে পৃথিবীর দুই পড়শি গ্রহ বৃহস্পতি ও শনি। জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের মতে, প্রায় ৮০০ বছর পর এই মহাজাগতিক চমৎকারটি পুনরায় ঘটতে চলেছে!

এমনিতে প্রতি দুই দশকে বৃহস্পতি এবং শনির মধ্যে দূরত্ব কমে যায়। কিন্তু আজ এই দুই গ্রহ বেশ ‘ঘনিষ্ঠ’ অবস্থায় আসতে চলেছে, জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা যার নাম দিয়েছেন ‘গ্রেট কনজাংশন’। বলা হচ্ছে, আজ সন্ধ্যার পর পৃথিবী, বৃহস্পতি ও শনির কোণের মান শূন্যের (০.১) কাছাকাছি চলে আসবে। যার ফলে পৃথিবী থেকে দুটি গ্রহকে একটি বড় তারার মত দেখতে লাগবে। এই ধরণের মহাজাগতিক দৃশ্য শেষবার দেখা গিয়েছিল ১২২৬ সালে ৪ মার্চ, যার পর কেটে গেছে কয়েক শতাব্দী। তবে এরপর ২০৮০ এবং ২৪০০ সালে ফের এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে বলে জানা গিয়েছে। তাই কোনোভাবেই এটি মিস করবেন না!

কখন, কোথায় এবং কীভাবে দেখা যাবে এই বিরল মহাজাগতিক দৃশ্যটি?

মার্কিন স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশন নাসা জানিয়েছে যে এই কনজাংশন বা দুই গ্রহের ‘মিলন’-এর বিরল দৃশ্যটি বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তেই দৃশ্যমান হবে। এটি সূর্যাস্তের প্রায় এক ঘন্টা পর দক্ষিণ-পশ্চিম আকাশে দৃশ্যমান হবে। ভারতে কনজাংশন দেখা যাবে সন্ধ্যে ৬.৩০ থেকে সাড়ে ৭টার মধ্যে। বাইনোকুলার বা টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এই দৃশ্যের সাক্ষী থাকা যাবে, সেক্ষেত্রে দূরবীনে ধরা দেবে বৃহস্পতির চারটি বড় চাঁদ অর্থাৎ উপগ্রহ।

তবে যাদের বাইনোকুলার কিংবা টেলিস্কোপ নেই তারা মনখারাপ করবেন না কারণ খালি চোখেও গ্রহগুলিকে (আবহাওয়া অনুকূল থাকলে) দেখা যাবে। তাছাড়া, দিল্লির নেহরু প্ল্যানেটোরিয়াম এই দৃশ্যের লাইভকাস্টিং করবে যা https://nehruplanetarium.org/ ওয়েবসাইট থেকে সহজেই দেখা যাবে। একইভাবে, বেঙ্গালুরুর জওহরলাল নেহেরু প্ল্যানেটরিয়াম তার ইউটিউব চ্যানেল, ওয়েবসাইট (https://www.taralaya.org/) এবং ফেসবুক পেজে এই ঘটনার সম্প্রচার করবে।

এই মহাজাগতিক ঘটনা সম্পর্কে সবাইকে অবগত করতে এবং বিরল দিনটিকে উদযাপন করতে ইতিমধ্যেই একটি বিশেষ অ্যানিমেটেড ডুডল তৈরি করেছে ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগল। ওই ডুডলে উইন্টার সলস্টাইস (অর্থাৎ উত্তর গোলার্ধের শীতের প্রথম দিন) এবং গ্রেট কনজাংশন – দুটি ঘটনাকেই বেশ সুন্দরভাবে তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া সোশ্যাল মিডিয়াতেও অনেকে ভালোবেসে এই দুই গ্রহের কাছাকাছি আসা নিয়ে নানান মজার পোস্ট করেছেন।

ছবি -ফেসবুক, ভট্টবাবুর পেজ