সেকেন্ড-হ্যাক ফোন কেনার আগে অবশ্যই করুন এই কাজ, চুরি বা বেআইনি কাজে ব্যবহার হয়েছে কিনা জানুন

if-you-want-to-purchase-second-hand-smartphone-then-do-this-delhi-police-tweet
সেকেন্ড-হ্যান্ড মোবাইল কেনার সময়ে কী কী বিষয়ে খেয়াল রাখা দরকার

আপনি যদি একটি সেকেন্ড-হ্যান্ড বা ব্যবহৃত মোবাইল ফোন কেনার পরিকল্পনা করে থাকেন তাহলে এই প্রতিবেদনটি আপনারই জন্য। সেকেন্ড-হ্যান্ড ফোন আপনি কিনতেই পারেন, এতে সমস্যার কিছুই নেই। তবে আপনি যদি কোনো অবাঞ্চিত ঝুটঝামেলায় না পড়তে চান তাহলে ব্যবহৃত ফোন কেনার আগে অবশ্যই কয়েকটি বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব আরোপ করা প্রয়োজন। কারণ হতেই পারে যে আপনি যে ফোনটি কিনছেন সেটিকে চুরি করা হয়েছে অথবা আপনার পূর্বে যে হ্যান্ডসেটের মালিক ছিলেন সে কোনো অসৎ কর্মে এটিকে ব্যবহার করেছিলেন। এক্ষেত্রে প্রশ্ন জাগতেই পারে যে, এই সকল খুঁটিনাটি বিষয়গুলির সম্পর্কে আপনি জানবেন কীভাবে? তাহলে জানিয়ে দিই যে দিল্লি পুলিশ সম্প্রতি একটি টুইট করে এই সমস্যাটির সমাধানের উপায় জানিয়েছেন। তাহলে আসুন এই উপায়টি কী এবং সেকেন্ড-হ্যান্ড মোবাইল কেনার ক্ষেত্রে কী কী বিষয়ে সতর্কতা বজায় রাখা দরকার তা জেনে নেওয়া যাক এবার।

সেকেন্ড-হ্যান্ড মোবাইল কেনার সময়ে কী কী বিষয়ে খেয়াল রাখা দরকার

মাইক্রোব্লগিং সাইট Twitter -এ এই প্রসঙ্গে দিল্লি পুলিশ একটি টুইট করে পরামর্শ দিয়েছে যে, যেসকল ব্যক্তি সেকেন্ড-হ্যান্ড ফোন কিনেছেন বা কিনতে যাচ্ছেন তারা অবশ্যই Zipnet ওয়েবসাইটের থেকে ফোনের IMEI নম্বরটি চেক করে নিন। তারা টুইটে লিখেছে, “সেকেন্ড-হ্যান্ড মোবাইল ফোন কেনার বিষয়ে সতর্ক থাকুন। হতেই পারে যে আপনি যে ফোনটি কিনছেন তা চুরি বা বেআইনি কাজে ব্যবহার করা হয়েছে। এই জাতীয় রিপোর্ট করা ফোনের IMEI নম্বরকে #DelhiPolice #Zipnet সিস্টেমে লিস্ট করে দেওয়া হয় এবং ফোনের IMEI নম্বরকে ব্লক করার জন্য @DoT_India -এর সাথে তা শেয়ার করা হয়ে থাকে। যাতে সেটিকে পরবর্তী সময়ে ব্যবহার না করা যায়।।”

কী এই IMEI নম্বর ?

যারা জানেন না তাদের জানিয়ে দিই যে, IMEI বা ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি নম্বরকে, হ্যান্ডসেট চুরি হয়ে গেলে সেটিকে উপলব্ধ নেটওয়ার্ক থেকে সনাক্ত করতে ব্যবহার করা হয়। এই নম্বরে ১৫টি ডিজিট থাকে এবং প্রত্যেকটি ফোনের জন্য এই নম্বরটি স্বতন্ত্র হয়।

Zipnet -এ এইভাবে চেক করুন IMEI নম্বর

১. আপনি যে ব্যবহৃত হ্যান্ডসেটটি কিনছেন তা সুরক্ষিত কিনা জানতে প্রথমেই চলে যান, https://zipnet.delhipolice.gov.in/ -এই লিঙ্কে। এখানে আপনি ‘Missing mobiles’ নামক একটি অপশন দেখতে পাবেন। এটিতে ক্লিক করুন।

২. এরপর, যে ফোনটি আপনি কিনতে যাচ্ছেন তার IMEI নম্বর এখানে এন্টার করুন।

৩. যদি আপনার সেকেন্ড-হ্যান্ড ফোনকে ব্যবহার করে পূর্বে কোনো অপরাধমূলক কাজ করা হয়ে থাকে বা সেটি চোরাই হয় তাহলে, ফোনের IMEI নম্বর Zipnet -এর ডেটাবেসে দৃশ্যমান হবে।

৪. প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি যে, এই পরিষেবাটি দিল্লি, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান, পাঞ্জাব, চণ্ডীগড়, উত্তরাখণ্ড এবং হিমাচল প্রদেশের মতো বেশ কয়েকটি শহরের জন্য আপাতত উপলব্ধ করা হয়েছে। আশা করা যায় শীঘ্রই অন্যান্য অঞ্চলের মানুষ এই পরিষেবার সুবিধা পাবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

শুভেচ্ছা বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একদিকে যেমন ফটোগ্রাফার, তেমনি পাশাপাশি লেখিকাও। এছাড়াও তার শখের মধ্যে আছে বই পড়া, গান গাওয়া, ছবি আঁকা এবং ওয়েব ডিজাইন। শুভেচ্ছা আমাদের টেকগাপ পরিবারের একজন নতুন সদস্য।