চীনকে পিছনে ফেলে বিশ্বের প্রথম মোবাইল প্রস্তুতকারক দেশ হিসাবে উঠে আসতে চায় ভারত

এবছরই কেন্দ্র সরকার ইলেক্ট্রনিক্স দ্রব্যের উৎপাদন বাড়াতে PLI স্কিমের সূচনা করেছিল। যার ফল মিলছে হাতেনাতে। শীঘ্রই বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল প্রস্তুতকারক দেশ ভারত উঠে আসতে পারে প্রথম স্থানে। টেলিকম এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ সোমবার দাবী করেছেন যে, চীনকে পিছনে ফেলে ভারতের প্রথম স্থান অধিকার করাটা এখন সময়ের অপেক্ষা। ভারত সরকারের PLI (প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেন্টিভ) স্কিমের মাধ্যমে, বিশ্বের তাবড় তাবড় স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী ব্র্যান্ডকে ভারতীয় বাজারের দিকে সহজেই আকৃষ্ট করা যাবে বলে জানিয়েছেন রবিশঙ্কর।

কী এই পিএলআই স্কিম?

পিএলআই অর্থাৎ প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেন্টিভ স্কিম হল এমন একটি প্রকল্প, যার মাধ্যমে সরকার দেশ-বিদেশের বিভিন্ন মোবাইল নির্মাতাদের ব্যাপক অঙ্কের ভর্তুকি প্রদান করবে। এর ফলে তারা ভারতে বিনিয়োগ করতে অধিক পরিমাণে উৎসাহী হবে বলে সরকারের অভিমত।

দেশের বাণিজ্যিক সংস্থা FICCI (ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান চেম্বারস অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি) এর সাধারণ বার্ষিক সভায় কেন্দ্রীয় টেলিকম ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী বলেছেন, “এর আগে আমরা চেয়েছিলাম মোবাইল উৎপাদনের দিক থেকে ভারত বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসুক। এখন আমরা চাই, এই ব্যাপারে চীনকে খুব তাড়াতাড়ি টপকে যাক ভারত। আপাতত এই লক্ষ্য নিয়েই মন্ত্রক কাজ চালিয়ে যাবে।”

২০১৭ সালে বিশ্বের দ্বিতীয় সবথেকে বড় স্মার্টফোন নির্মাণকারী দেশ হিসেবে ভারতের উত্থান ঘটেছে। ন্যাশনাল পলিসি অন ইলেক্ট্রনিক্স বা এনপিই ২০১৯ অনুযায়ী, ২০২৫ সালের মধ্যে আমাদের দেশে ইলেকট্রনিক্স উৎপাদন মারফত বার্ষিক ২৬ লক্ষ কোটি টাকা আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছে। এর মধ্যে থেকে ১৩ লক্ষ কোটি টাকাই মোবাইল উৎপাদন থেকে আসবে বলে সরকারের প্রত্যাশা।

আসলে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার মেক ইন ইন্ডিয়া’র মতোই PLI প্রকল্পটিকেও অত্যন্ত গুরুত্ব দিচ্ছে। ” PLI প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ স্মার্টফোন প্রস্তুতকারকদের ব্যবসাকে নিজেদের দেশে টেনে আনার পাশাপাশি, ভারতীয় কোম্পানিগুলিকে বিশ্বের দরবারে আরো বেশী করে তুলে ধরবো” – রবিশঙ্কর প্রসাদ এমনটাই দাবী করেছেন।

পিএলআই প্রকল্পে আবেদন গৃহীত হলে সরকার বিভিন্ন দেশীয় এবং বিদেশী সংস্থাগুলিকে ৪৮ হাজার কোটি টাকা পর্যন্ত ভর্তুকি প্রদান করবে। ইতিমধ্যেই ১৬টি আবেদনকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর ফলে কোম্পানীগুলি পিএলআই স্কীম মারফত মোবাইল ফোন উৎপাদনে মোট ১১ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের ইচ্ছে প্রকাশ করেছে। এর থেকে উৎপাদিত পণ্যের বাজারমূল্য ১০.৫ লক্ষ কোটি টাকার ধারেকাছে থাকতে পারে।

এখনো পর্যন্ত যে বিদেশী সংস্থাগুলির আবেদন গৃহীত হয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছে Apple এর কন্ট্রাক্ট ম্যানুফ্যাকচারার Foxconn Hon Hai, Wistron এবং Pegatron। তাছাড়া আছে স্যামসাং এবং রাইজিং স্টার। দেশীয় কোম্পানীগুলির মধ্যে এখন পর্যন্ত Lava, Bhagwati (মাইক্রোম্যাক্স), Padget ইলেক্ট্রনিক্স ( Dixon Technologies), UTL Neolyncs এবং Optiemus এর আবেদন গৃহীত হয়েছে।

One of the newest members of the Techgup Family. Soumo grew his liking for gadgets almost a decade back while searching for his first smartphone, and started writing about tech recently in 2020