Cryptocurrency Ban: ভারতে ব্যান হতে চলেছে বেশিরভাগ প্রাইভেট ডিজিটাল মুদ্রা, নয়া বিল আনছে সরকার

চলতি মাসের শুরুতে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ক্রিপ্টো নিয়ে কড়া অবস্থান নেন

india-government-to-ban-private-cryptocurrency-and-introduce-bill-bitcoin

Cryptocurrency Ban in India: ভারতে খুব শীঘ্রই বিটকয়েন (Bitcoin) সহ প্রায় সমস্ত (কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে) প্রাইভেট ক্রিপ্টো কারেন্সি নিষিদ্ধ হতে চলেছে। আসন্ন শীতকালীন বাজেট অধিবেশনেই ক্রিপ্টো নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত নয়া বিলটি পার্লামেন্টে পেশ করা হবে। সংবাদ সংস্থা, রয়টার্স তাদের প্রতিবেদনে এমনই দাবি করেছে।

অনেক আগে থেকেই, ক্রিপ্টো নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত একটি নতুন বিল পার্লামেন্টে পেশ হওয়ার কথা চলছিল। তবে, এতদিন পর্যন্ত, ‘ব্যতিক্রম’ এর অাওতায় থাকা প্রাইভেট মুদ্রাগুলির ব্যাপারে কোনো স্পষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি।

তবে সূত্র অনুসারে ‘ক্রিপ্টোকারেন্সি অ্যান্ড রেগুলেশন অফ্ অফিশিয়াল ডিজিটাল কারেন্সি’ (Cryptocurrency and Regulation of Official Digital Currency) নামের একটি নয়া বিল রিজার্ভ ব্যাংক অব্ ইন্ডিয়া (RBI) কতৃক চালু করা হবে, যা অফিশিয়াল ক্রিপ্টো কারেন্সিটির জন্য একটি কার্যকরী ও সঠিক পরিকাঠামো প্রদান করবে এবং কয়েকটি মুদ্রা বাদ দিয়ে, দেশে প্রায় সমস্ত প্রাইভেট মুদ্রার ব্যবহার নিষিদ্ধ করবে।

এই পূর্ব যাচাই পদ্ধতিটি স্বাভাবিকভাবেই বিপুল সংখ্যক ক্রিপ্টো মুদ্রা, যেগুলি নিয়ন্ত্রণের আওতার বাইরে থেকেই সাধারণত ফুলেফেঁপে ওঠে, তাদের জন্য নেতিবাচক প্রভাব বয়ে আনবে।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শুরুতে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi), ক্রিপ্টো নিয়ে কড়া অবস্থান নেন। সিডনি ডায়ালগের মঞ্চ থেকে বিশ্বের বড় বড় গণতন্ত্রগুলিকে তিনি ক্রিপ্টো নিয়ে একজোট হওয়ার বার্তা দেন। ভুল হাতে পড়ে এই ডিজিটাল মুদ্রা যাতে যুবসমাজের জন্য সর্বনাশ না ডেকে আনে সে বিষয়েও তিনি বিশ্ববাসীকে সতর্ক করেন। এছাড়া বছর শুরুর দিকে, সরকারের তরফে ক্রিপ্টো সম্পর্কিত যে কোনো কার্যকলাপ কে শাস্তিযোগ্য অপরাধের আওতায় আনার পরিকল্পনাও করা হচ্ছিল।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী, দেশে ক্রিপ্টোর ভবিষ্যত ও ক্রিপ্টো সম্পর্কিত অপরাধ যেমন টাকা জালিয়াতি, সন্ত্রাস তহবিল প্রভৃতির নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশ্যে আধিকারিকদের নিয়ে একটি উচ্চস্তরের বৈঠকেও বসেন এবং একটি আইন আনার কথা বলেন।

সোমবার নাগাদ, এই একই বিষয়ের ওপর আয়োজিত একটি পার্লামেন্টারি প্যানেল আলোচনা সভায় উপস্থিত এক সদস্য জানান, আসন্ন আইনটি সম্ভবত বিনিয়োগকারীদের প্রলুব্ধ করার উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত, ক্রিপ্টো সম্পর্কিত সমস্ত বিজ্ঞাপন ও প্রচার এর রমরমাতেও লাগাম পড়াবে।

একজন পদস্থ সরকারি আধিকারিক সংবাদ মাধ্যম কে জানান, সমস্ত প্রাইভেট কারেন্সিগুলিকে নিষিদ্ধ করে অফিশিয়াল ডিজিটাল কারেন্সি চালু করার পথই সুগম করছে কেন্দ্র।

ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জগুলির দাবি অনুযায়ী, সরকার আপাতত ক্রিপ্টো মুদ্রাকে লেনদেন মাধ্যম হিসেবে না বিবেচনা করে, ডিজিটাল অ্যাসেট হিসেবেই ভাবছে।

অন্যদিকে, রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, যেটি কিছুদিন আগেই ক্রিপ্টোকে ‘বিপজ্জনক উদ্বেগ’ আখ্যা দিয়েছিল, এই মুহুর্তে দেশে অফিশিয়াল ক্রিপ্টো কারেন্সি চালুর পথে অগ্রসর হয়েছে।

প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখা দরকার, ভারত বর্তমানে সবচেয়ে বড় ক্রিপ্টো মার্কেটগুলির মধ্যে অন্যতম। সম্প্রতি, একটি তথ্য থেকে জানা গিয়েছে ভারতে ক্রিপ্টো ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১০ কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।