মানসিক অবসাদ কাটিয়ে ওঠার অ্যাপ বানিয়ে তাক লাগলো ভারতীয় মেয়ে, জিতে নিল পুরস্কারও

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের অকস্মাৎ মৃত্যু আমাদের সবার মনে একটা ধাক্কা দিয়েছে। ৩৪ বছর বয়েসী অভিনেতা মানসিক অবসাদে আত্মহত্যা করার পর নানা তর্ক-বিতর্ক তৈরি হয়েছে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে। আপনারও হয়তো মনে হয়েছে সত্যি যদি মনের কষ্ট মাপার কোনো মেশিন থাকতো!

সম্প্রতি গুজরাটের হাইস্কুলের ছাত্রী কনিষ্ক চৌধরী তৈরি করেছে একটি iOS অ্যাপ্লিকেশন, যার সাহায্যে মনের কষ্ট মাপা যাবেনা কিন্তু, টিনএজার এবং প্রাপ্তবয়স্কদের মানসিক স্বাস্থ্যে ব্যাঘাত ঘটানো সমস্যাগুলি কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করবে এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

আপনাকে জানিয়ে রাখি, অ্যাপল আয়োজিত বার্ষিক WWDC সুইফট স্টুডেন্ট চ্যালেঞ্জে ৪১টি বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চল অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ৩৫০ জন বিজয়ী (যার মধ্যে ভারত থেকে রয়েছে ১৫ জন) ঘোষিত হয়েছে। এই বিজয়ী ক্রিয়েটরদের মধ্যে রয়েছে কনিষ্ক চৌধরীর নাম।
কনিষ্ক, গুজরাতের ভারুচের GNFC নর্মদা বিদ্যালয়ের এক ছাত্রী। সে লকডাউনের সময় ‘Ralasi Teen’ নামে একটি অ্যাপ তৈরি করেছিল যা শীঘ্রই অ্যাপল অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যাবে।

তরুণীটি এই বছর মানসিক স্বাস্থ্য সচেতনতা সম্পর্কে একটি Xcode প্লেগ্রাউন্ড তৈরি করেছে। এটি তিন ভাগে বিভক্ত এবং কিছু পাঠ্য স্লাইড শো দিয়ে শুরু হয় যা মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে কিছু তথ্য প্রদর্শন করে, এবং এতে কিছু প্রাক্টিকাল টিপস থাকবে। অ্যাপল Xcode হল macOS-এর সফ্টওয়্যার ডেভেলপমেন্ট টুলের জন্য একটি ইন্টিগ্রেটেড ডেভেলপমেন্ট এনভায়রমেন্ট। এই অ্যাপ্লিকেশনটির সাথে মানুষ সহজেই সংযুক্ত হতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সুইফড স্টুডেন্ট চ্যালেঞ্জের আরেক বিজয়ী ইন্দোরের শিক্ষার্থী অমিত সাওয়ান্ত বলেছে – অ্যাপল, তার মতো শিক্ষার্থীদের চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে প্রোগ্রামিংয়ে অংশ নিতে অনুপ্রাণিত করছে। অমিত আরো জানিয়েছে, মানুষ এই মহামারীতে হতাশার মতো অনেক সময় মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে, তাই সে এমন একটি অ্যাপ তৈরিতে অবদান রাখতে চায় যা মানুষের মানসিক স্বাস্থ্য বজায় রাখতে সহায়তা করতে পারে। সে স্পনসর, কন্টেন্ট স্রষ্টা, ইভেন্ট আয়োজক এবং বাস্তব জীবনের সমস্যাগুলি সমাধানের জন্য প্লাটফর্ম তৈরি করে। চেন্নাইয়ের আরেক বিজয়ী হরিহরন মুরুগেসান যিনি ২০১৪ সালে সুইফট ঘোষণার পর কোডিং শুরু করেছিলেন, তিনি ARKit, Vision, SwiftUI ইত্যাদি নতুন ফিচার্স নিয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত।