Xiaomi ফের ভারতীয় স্মার্টফোন মার্কেটে সবার শীর্ষে, Samsung, Vivo, Realme -রা কোথায় জানুন

indias-smartphone-industry-grew-23-in-q1-xiaomi-leads-counterpoint

ভারতের বাজারে এই নিয়ে টানা তৃতীয়বার রেকর্ড পরিমাণ স্মার্টফোন সরবরাহের নজির তৈরী হলো। গত বছরের নিরিখে এই সরবরাহ প্রায় ২৩% বৃদ্ধি পেয়েছে যা অভূতপূর্ব। সমীক্ষাকারী সংস্থা কাউন্টারপয়েন্ট (CounterPoint) তাদের প্রতিবেদনে রীতিমতো পরিসংখ্যান দিয়ে স্মার্টফোন সরবরাহ বৃদ্ধির বিষয়টি তুলে ধরেছে। শুধু তাই নয়, একইসাথে তারা এই বৃদ্ধির কারণ বিশ্লেষণ করে ভবিষ্যত শঙ্কার প্রতি আমাদের সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। চলুন, দেরী না করে এখন কাউন্টারপয়েন্টের সমীক্ষার ফলাফল সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

কাউন্টারপয়েন্টের (CounterPoint) সমীক্ষকেরা নিপুণ বিশ্লেষণের মধ্যে দিয়ে ভারতের স্মার্টফোন বাজারের বর্তমান অবস্থার খুঁটিনাটি দিকগুলি তুলে ধরেছেন। সরবরাহ বা বিক্রি বাড়ার ক্ষেত্রে তারা বেশ কতগুলি ফ্যাক্টরকে দায়ী করেছেন। এগুলোর মধ্যে নতুন প্রোডাক্ট লঞ্চ, বিজ্ঞাপন ও প্রচার এবং ক্রেতা আকর্ষণের উপযোগী বিভিন্ন আর্থিক সুবিধার কথা উল্লেখের পাশাপাশি তারা আরেকটি বিষয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। তাদের মতে গতবছর অতিমারির প্রথম আঘাত সামলে বহু মানুষ নতুন স্মার্টফোন কেনার ব্যাপারে মনস্থির করতে পারেননি। তাদের এই দমিত ইচ্ছা চলতি বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকে স্মার্টফোন বিক্রিকে যথেষ্ট প্রভাবিত করেছে। বিশেষত ভ্যাকসিন-দান পর্ব শুরুর ফলে অনেকেই দুর্ভাবনা মুক্ত হয়ে নতুন স্মার্টফোন কিনে ফেলেছেন। ফলে স্মার্টফোনের বাজার সামগ্রিকভাবে উপকৃত হয়েছে। তবে বিক্রি বাড়লেও করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কার ফলে ভবিষ্যতে বিক্রি কমতে পারে বলেও তারা বারবার সাবধান করে দিয়েছেন।

কাউন্টারপয়েন্টের সমীক্ষা অনুযায়ী ২০২১ সালের প্রথম ত্রৈমাসিকে মোট স্মার্টফোন সরবরাহের ক্ষেত্রে শাওমির (Xiaomi) অবদান ২৬ শতাংশ। ২০ শতাংশ মার্কেট শেয়ার দখল করে স্যামসাং এক্ষেত্রে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। ১৬, ১১ ও ১১ শতাংশ মার্কেট শেয়ারের সাথে ভিভো (Vivo), রিয়েলমি (Realme) এবং অপ্পো (Oppo) যথাক্রমে তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে।

সামগ্রিকভাবে দেখতে গেলে সরবরাহ বৃদ্ধির ফলে ভারতে স্মার্টফোনের বাজারেও সম্প্রসারণ লক্ষ্য করা গেছে। বাৎসরিক হিসেবে এই বৃদ্ধি প্রায় ১৮ শতাংশ, যা যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ। শুধু স্মার্টফোন নয়, ফিচার ফোনের বাজারেও বিক্রির জোয়ার এসেছে। গত বছরের তুলনায় তাদের ১৪ শতাংশ মার্কেট শেয়ার বৃদ্ধি পেয়েছে। এক্ষেত্রে রিলায়েন্সের (Reliance) জিওফোনের (JioPhone) নতুন মডেলের যথেষ্ট অবদান রয়েছে। অবদান রয়েছে অন্যতম ফিচার ফোন প্রস্তুতকারক সংস্থা আইটেল (itel) এরও।

অন্যদিকে গতবছরের চেয়ে চলতি বছরে শাওমি (Xiaomi) অধিক পরিমাণ বিক্রির মুখ দেখেছে। বাৎসরিক হিসেবে তাদের ৪ শতাংশ বৃদ্ধি লক্ষ্য করা গেছে। এক্ষেত্রে শাওমির Redmi 9A হ্যান্ডসেট সর্বাধিক বিক্রির গৌরব অর্জন করেছে। মোট স্মার্টফোন সরবরাহের ক্ষেত্রে স্যামসাং (Samsung) দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া বাৎসরিক ১৬ শতাংশ বৃদ্ধির ফলে ভিভো (Vivo) রয়েছে তৃতীয় স্থানে। বিশেষত অফলাইনে বিক্রির ক্ষেত্রে তারা অত্যন্ত ভালো ফল করেছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন