ডিলিট করার পরও প্রাইভেট মেসেজ ও ফটো সার্ভারে রেখে দিত ইনস্টাগ্রাম

instagram-retained-photos-direct-messages-in-servers-even-after-users-deleted

বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন এবং ইন্টারনেট ইউজারদের জন্য ডেটা সুরক্ষার বিষয়টি মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে ইউজারের গোপনীয়তা কতটা বজায় থাকছে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। যেমন সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, Instagram ইউজাররা তাদের ফটো বা মেসেজ ডিলিট করার পরেও, ইনস্টাগ্রামের সার্ভারে সেগুলি সেভ থেকে যাচ্ছে।

এই বিষয়টি প্রথম সামনে আনেন সিকিউরিটি রিসার্চার সৌগত পোখারেল। যদিও এটি বর্তমানের ঘটনা নয়, গত বছরের অক্টোবরে সৌগত ইনস্টাগ্রামের বাগ বাউন্টি প্রোগ্রামের মাধ্যমে এই বাগটি সম্পর্কে রিপোর্ট করেছিলেন। এতদিন পর ফেসবুকের মালিকানাধীন সংস্থা এই মাসের শুরুর দিকে বাগটি রিমুভ করেছে। এবং এই বাগটি খুঁজে বের করার জন্য সংস্থাটি সৌগতকে ৬,০০০ ডলার (প্রায় ৪,৪৯,০০০ টাকা) পুরস্কার দিয়েছে।

এমনিতে কোনো সোশ্যাল নেটওয়ার্ক থেকে মেসেজ বা ছবি পার্মানেন্টলি ডিলিট না হওয়া পর্যন্ত কিছুক্ষণের জন্য সেগুলি সার্ভারে সেভ থাকে, এই ঘটনা অস্বাভাবিক নয়। ইনস্টাগ্রাম বলেছে কোনো ডিলিট করা ডেটা তাদের সিস্টেম থেকে পার্মানেন্টলি রিমুভ করতে প্রায় ৯০ দিন সময় লাগে।কিন্তু, সিকিউরিটি রিসার্চার সৌগত দেখেন, ইনস্টাগ্রামের সার্ভারে তার এক বছরেরও বেশি সময়ের ডিলিট করা ডেটা সঞ্চিত রয়েছে। তিনি যখন ইনস্টাগ্রামের ‘ডেটা ডাউনলোড’ টুল ব্যবহার করছিলেন, তখন গবেষক অন্যান্য ইউজারদের সাথে শেয়ার করা সমস্ত গোপন মেসেজ এবং ফটো দেখতে পান যা তিনি অনেক আগে ডিলিট করেছিলেন।

প্রসঙ্গত, ইউজারদের তথ্যের গোপনীয়তার সাথে আপস করা হচ্ছে কিনা, তা নিয়ে বিশ্বব্যাপী উদ্বেগের কারণে ইনস্টাগ্রাম ২০১৮ সালে ‘ডেটা ডাউনলোড’ টুলটি চালু করে। এই ফিচারটি ইউজারদের নিজের ফটো, ভিডিও, আর্কাইভ স্টোরি, কমেন্ট ইত্যাদি এক্সপোর্ট করার অনুমতি দেয়। যাইহোক ইনস্টাগ্রাম আপাতত এই সমস্যাটির সমাধান করেছে বলে জানিয়েছে।