অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ১৩ অক্টোবর লঞ্চ হবে iPhone 12 সিরিজ

iphone-12-series-may-launch-on-13-october-on-special-apple-event

গত মাসের ১৫ তারিখ ‘টাইম ফ্লাইস’ নামের একটি ইভেন্টের আয়োজন করেছিল জনপ্রিয় টেক ব্র্যান্ড Apple। ওই ইভেন্টে নতুন Apple Watch সহ কয়েকটি প্রোডাক্ট লঞ্চ হয়েছিল। যদিও ওই ইভেন্টে কোম্পানি বহু প্রতীক্ষিত iPhone 12 সিরিজের ঘোষণা করেনি। জানানো হয়েছিল, কয়েক সপ্তাহ পরে আরও একটি ইভেন্টের আয়োজন করা হবে। এরপর গতকাল অ্যাপল জানিয়েছে, আগামী ১৩ই অক্টোবর সংস্থার ‘Special Apple Event’ অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে এই ইভেন্টের জন্য আমন্ত্রণ পাঠাতেও শুরু করেছে সংস্থাটি।

রিপোর্ট অনুযায়ী, আগামী ১৩ অক্টোবর ভারতীয় সময় রাত ১০:৩০ মিনিটে এই ইভেন্টটি অনুষ্ঠিত হবে। এই ইভেন্টেই লঞ্চ হতে পারে বহু প্রত্যাশিত iPhone 12 সিরিজ। অ্যাপল আমন্ত্রণ পত্রে কোন প্রোডাক্ট লঞ্চ করা হবে তা উল্লেখ করেনি। কিন্তু এতে পরিচিত আধ খাওয়া আপেল লোগোসহ কয়েকটি সার্কেল দেখা যাচ্ছে, যেখানে শুধুমাত্র দুটি শব্দ লেখা আছে – “Hi, Speed”। ফলে, অনেকেই মনে করছেন এই শব্দদুটি সম্ভবত 5G স্পিডের দিকে ইঙ্গিত করছে। কারণ আশা করা হচ্ছে নতুন iPhone 12 মডেলগুলিতে হাই-স্পিড 5G কানেকশন সাপোর্ট করবে।

অনেকে বলছেন ওই ইভেন্টে iPhone 12 লাইনআপে iPhone 12, iPhone 12 Pro, iPhone 12 Pro Max, এবং iPhone 12 Mini-এর মত ডিভাইসগুলি লঞ্চ হতে পারে। যদিও কয়েকটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে এই ইভেন্টে কেবল iPhone 12 Mini মডেলটি লঞ্চ হবে। ইতিমধ্যে নতুন আইফোন সম্পর্কিত কিছু তথ্য ফাঁস হয়েছে যা দেখে মনে হচ্ছে, iPhone 12 ডিভাইসটিতে ৬.১ ইঞ্চি ডিসপ্লে থাকবে এবং iPhone 12 Mini-তে ৫.৪-ইঞ্চি ডিসপ্লে থাকবে। তবে, এই ফোনগুলিতে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লে থাকবেনা – এমনটাও বলা হচ্ছে।

অনেকে বলছেন iPhone 12 Pro Max মডেলটিতে ফাস্ট মিলিমিটার-ওয়েভ যুক্ত 5G প্রযুক্তি থাকবে, অন্যদিকে অন্যান্য মডেলগুলিতে সাধারণ Sub-6 গিগাহার্টজ 5G সাপোর্ট থাকবে। এও শোনা যাচ্ছে অ্যাপল, এই নতুন আইফোনগুলির সাথে কোনো চার্জিং কেবল সরবরাহ করবেনা। প্রসঙ্গত অ্যাপল তাদের নতুন iPad, Apple Watch Series 6 এবং Watch SE-র মত বেশ কিছু প্রোডাক্টের সাথেও চার্জার দেয়নি।

দামের কথা বললে, আসন্ন iPhone 12 মডেলগুলির দাম বিগত বছরগুলির তুলনায় অনেকটাই ব্যয়বহুল হতে পারে। বাজারে এগুলির দাম সংক্রান্ত যে জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে তা থেকে বলা যায়, নতুন আইফোন মডেলগুলির দাম ৬৯৯-৭৪৯ ডলার (ভারতীয় মূল্যে প্রায় ৫১,৩০০ টাকা থেকে ৫৫,০০০ টাকা) হতে পারে। আবার অনেকে বলছেন, iPhone 12-র প্রারম্ভিক দাম হবে ৭৪৯ ডলার। ফোনগুলিতে 5G সাপোর্ট দেওয়ার কারণেই অ্যাপল এগুলির দাম বাড়াতে পারে। আবার ফোনগুলি ভারতে আমদানি হওয়ার পর শিপিং চার্জ, শুল্ক ইত্যাদি কারণে বিক্রয়মূল্য যে আরো খানিকটা বেশি হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।