জিও গ্রাহকরা JioSaavn অ্যাপে আর পাবেন না আনলিমিটেড কলারটিউন সেট করার সুবিধা

মুকেশ আম্বানির টেলিকম সংস্থাটি তার মিউজিক অ্যাপ JioSaavn-এর মাধ্যমে আনলিমিটেড JioTunes সাবস্ক্রিপশন দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

JioSaavn
Reliance Jio No Longer Offering Unlimited JioTunes

রিলায়েন্স জিও ভারতে 4G পরিষেবার পাশাপাশি JioTV, JioSaavn ইত্যাদি প্ল্যাটফর্ম নিয়ে হাজির হয়েছিল। এই প্ল্যাটফর্মগুলির দ্বারা কোম্পানি গ্রাহকদের কল ও ডেটা ছাড়াও অতিরিক্ত পরিষেবা দেয়। যেমন JioSaavn এর মাধ্যমে গ্রাহকরা আনলিমিটেড কলারটিউন সেট করার সুযোগ পায়। তবে কয়েক মাস ধরেই মুকেশ আম্বানির টেলিকম সংস্থাটি তার মিউজিক অ্যাপ JioSaavn-এর মাধ্যমে আনলিমিটেড JioTunes সাবস্ক্রিপশন দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এর আগে JioSaavn অ্যাপ থেকে পছন্দের যেকোনো গান যেকোনো সময় কলারটিউন হিসেবে সেট করা যেতো। কিন্তু এখন মাসে কেবল একটি মাত্র গান কলারটিউন হিসেবে সেট করা যায়।

বর্তমানে একবার কলারটিউন সেট করার পর সেটি পরিবর্তন করতে চাইলে, ৯৯ টাকা মাসিক ফি বা অন্য প্ল্যান ব্যবহার করে ‘JioSaavn Pro’-এ নিজের অ্যাকাউন্ট আপগ্রেড করতে বলা হচ্ছে। ‘JioSaavn Pro’ সাবস্ক্রিপশনে ইউজাররা বিজ্ঞাপন ছাড়া গান শুনতে, এবং নিজের পছন্দ মত যেকোনো গান যখন খুশি কলারটিউন হিসেবে সেট করতে পারবেন।

ফলে এই মুহূর্তে JioSaavn অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে JioTune সেট করা বা পরিবর্তন করা বেশ ঝামেলার বিষয় হয়ে উঠেছে। কারণ এই মুহূর্তে রিচার্জের জন্য বেশ মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করতে হয়, তাই সহজেই কেউ অতিরিক্ত টাকা ব্যয় করে কলারটিউন পাল্টানোর জন্য সাবস্ক্রিপশন নিতে চাইবেননা।

তবে স্বস্তির বিষয় একটাই, সংস্থাটি কেবল তার মিউজিক অ্যাপ থেকেই এই সীমাবদ্ধতা রেখেছে। ইউজাররা যদি নিজের কলারটিউন একবারের বেশি বদলাতে চান, তবে তারা ৫৬৭৮৯ নম্বরে মেসেজ করে কিংবা MyJio অ্যাপ থেকে নিখরচায় এই সুবিধাটি উপভোগ করতে পারবেন। এরজন্য মাই জিও অ্যাপ্লিকেশনে গিয়ে JioTune সেকশন থেকে বা ৫৬৭৮৯ নম্বরে ‘JT’ লিখে মেসেজ করে নিজের পছন্দের গান কলারটিউন হিসেবে বেছে নিতে পারবেন। তবে আপনি যদি জিও শাভন অ্যাপ্লিকেশন থেকেই একবারের বেশি কলারটিউন বদলাতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই সাবস্ক্রিপশন নিতে হবে।

প্রসঙ্গত, ভারতীয় টেলিকমিউনিকেশন বাজারে আমরা রিলায়েন্স জিওকে এখন ‘ট্রেন্ডসেটর’ হিসাবে দেখি। সংস্থাটি তার বিভিন্ন আনলিমিটেড পরিষেবার জন্য, অন্যান্য টেলিকম সংস্থাগুলিকে বিভিন্ন অফার দিতে বাধ্য করেছিল। জিও আসার আগে কলারটিউন সেট করার জন্য প্রতিমাসে এয়ারটেল, ভোডাফোন বা অন্যান্য সংস্থার গ্রাহকদের বেশ কিছু টাকা আলাদা ভাবে দিতে হতো। জিও-র দেখাদেখি বাকি টেলিকম অপারেটরগুলিও বিনামূল্যে আনলিমিটেড কলারটিউন সেট করার অফার দিতে বাধ্য হয়।