চলে এল জিও মার্ট অ্যাপ, বেকায়দায় অ্যামাজন থেকে ফ্লিপকার্ট

jiomart-app-now-available-for-android-and-ios

এই মুহূর্তে দেশের বৃহত্তম ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম রিলায়েন্স জিও-র JioMart। ফেসবুকের সাথে চুক্তির পর এই প্ল্যাটফর্ম এখন আরও শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। মুকেশ আম্বানির এই ‘দেশ কি দুকান’ Amazon বা Flipkart কে যে বেশ টক্কর দিচ্ছে তা আমরা আগের কয়েকটি প্রতিবেদনে জানিয়েছি। যদিও শুরুতে জিওমার্ট কেবল ডেস্কটপ ভার্সন হিসাবে উপলব্ধ ছিল। তবে এবার অ্যান্ড্রয়েড এবং আইফোন ইউজারদের জন্য কোম্পানি JioMart অ্যাপ নিয়ে এল। অ্যাপটি এখন গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল অ্যাপ স্টোরে উপলব্ধ।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

আসলে রিলায়েন্স জিও, এবার দেশের অন্যান্য ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মগুলির মত মানুষের পছন্দের তালিকায় আসতে চলেছে। এতদিন JioMart-এর ওয়েবসাইটটি (jiomart.com) পরীক্ষাধীন অবস্থায় ছিল, ২০০-র বেশি শহরের মানুষ এটিতে অর্ডার দিতে সক্ষম হচ্ছিলেন। জিওমার্ট অ্যাপটির সাহায্যে গ্রাহকরা আরো সহজে অর্ডার দিতে পারবেন।

এই সপ্তাহের শুরুতে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রির ৪৩ তম বার্ষিক সভায় মুকেশ আম্বানি, জিওমার্ট সম্পর্কে তাদের পরিকল্পনা এবং আগামী মাসগুলিতে সংস্থাটি এটির জন্য কী পদক্ষেপ নিতে চলেছে তা ঘোষণা করেছিলেন। তিনি বলেছেন, জিওমার্ট এবং হোয়াটসঅ্যাপ একসাথে কাজ করবে, এবং লক্ষ লক্ষ ভারতীয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এবং রিটেলারদের বিকাশের সুযোগ দেবে। এছাড়া জিওমার্ট কিরানা স্টোরগুলি ব্যবসা এবং উপার্জন বৃদ্ধিতে সহায়তা করতে পারে। ওই সভা থেকে আরো জানা গেছে, জিওমার্টে প্রতিদিন প্রায় ২,৫০,০০০ অর্ডার হচ্ছে এবং ক্রমশ এর চাহিদা বাড়ছে।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

বর্তমানে, JioMart-এ কেবল গ্রোসারি এবং খাদ্য সামগ্রী বিক্রি হয়। তবে আম্বানি নিশ্চিত করেছেন, শীঘ্রই এই প্লাটফর্মে ইলেকট্রনিক্স, ফ্যাশন, ফার্মাসিউটিক্যাল ইত্যাদি পরিষেবা অন্তর্ভুক্ত হবে। অতএব, ভবিষ্যতে এটি অন্যান্য ই-কমার্স সংস্থাগুলির শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠবে, এমনটা মনে করা যেতেই পারে।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন