JioPhone Next কিনবেন ভাবছেন? নাও চলতে পারে জিও ছাড়া অন্য সিম

JioPhone Next, জিও সিম লক প্রোগ্রামের অধীনে আসবে বলে অনেকে মনে করছেন

jiophone-next-may-come-with-jio-network-lock-program-all-you-need-to-know

JioPhone Next-কে কেন্দ্র করে ক্রমশই সাধারণ জনগণের উন্মাদনা বাড়ছে। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর Reliance Jio ভারতে এই সাশ্রয়ী মূল্যের 4G স্মার্টফোন নিয়ে আসতে চলেছে। Google-এর সাথে হাত মিলিয়ে এই ফোনটি ডেভেলপ করেছে Jio, যা তারা এ বছর রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের (RIL) ৪৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় সামনে এনেছিল। লঞ্চ হওয়ার আগে বিভিন্ন রিপোর্টে এই সাশ্রয়ী মূল্যের ফোনটি সম্পর্কে একাধিক তথ্য প্রকাশ্যে আসছে। সম্প্রতি এক রিপোর্ট থেকে জানা গেছে যে, JioPhone Next, জিও সিম লক (নেটওয়ার্ক লক) প্রোগ্রামের অধীনে আসবে। অর্থাৎ Jio SIM ছাড়া অন্য কোনো সিম আসন্ন এই সাশ্রয়ী মূল্যের স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা যাবে না। আসুন বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক।

নেটওয়ার্ক লক স্মার্টফোন কী

নেটওয়ার্ক লক প্রোগ্রাম আসলে মার্কেটে একচেটিয়াভাবে স্মার্টফোন বিক্রির একটি প্রধান কৌশল। পাশাপাশি টেলিকম সংস্থা গুলির জন্যেও গ্রাহক ধরে রাখার এক উত্তম ব্যবস্থা। আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি যে, নেটওয়ার্ক-লক স্মার্টফোন একটি নির্দিষ্ট নেটওয়ার্ক প্রোভাইডারের সাথে কাজ করে। খুব সহজ ভাষায় বললে, নেটওয়ার্ক লকিং ফোন এই বিষয়টি স্পষ্ট করে দেয় যে, গ্রাহকরা কেবলমাত্র একটি নেটওয়ার্কেই স্মার্টফোন ব্যবহার করতে পারবেন। ফলে JioPhone Next শুধুমাত্র Jio নেটওয়ার্কেই চলবে বলে মনে করা হচ্ছে।

কীভাবে ব্যবহারকারীরা উপকৃত হবেন

একটি নেটওয়ার্ক লক স্মার্টফোন উৎপাদনকারী সংস্থাটিকে কমপক্ষে কয়েক বছরের জন্য অর্থ উপার্জনের পথ প্রশস্ত করে। তাহলে এখন প্রশ্ন হল, ব্যবহারকারীরা আসন্ন এই স্মার্টফোনটির মাধ্যমে কীভাবে উপকৃত হবেন? আশা করা হচ্ছে যে, JioPhone Next-এর জন্য সংস্থাটি একটি বিশেষ রিচার্জ প্ল্যান নিয়ে আসতে পারে। এটি ব্যবহারকারীদের সাশ্রয়ী মূল্যে কল, টেক্সট এবং ইন্টারনেটের মতো পরিষেবা পেতে সক্ষম করবে।

উল্লেখ্য যে, JioPhone Next মূলত সেইসব ইউজারদের টার্গেট করে আনা হচ্ছে, যারা প্রথমবার স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন। ফলে নেটওয়ার্ক লক তাদের জন্য কোনো বড়ো সমস্যা হবে না বলেই মনে হয়।

রিপোর্টে অনুযায়ী, JioPhone Next-এর বেস মডেল, ২+১৬ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম আনুমানিক ৩,৫০০ টাকা হতে পারে। অন্যদিকে, এর টপ মডেল অর্থাৎ ৩২ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম প্রায় ৫,০০০ টাকা রাখা হতে পারে। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে স্মার্টফোনটি পাওয়া যাবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।