সহজ কিস্তিতে কেনা যাবে ভারতের সবচেয়ে দ্রুত ইলেকট্রিক বাইক Kridan

Kridan e bike now available easy emi led headlamp color options
ছবি : rushlane.com

ভারতের সবচেয়ে দ্রুততম বৈদ্যুতিন বাইক হিসেবে আখ্যা পাওয়া ওয়ান ইলেকট্রিকের Kridan এখন সহজ কিস্তি, এলইডি হেডল্যাম্প (আগে হ্যালোজেন হেডল্যাম্প ছিল), এবং নতুন মেটালিক কালার অপশনে আসতে চলেছে।

ওয়ান ইলেকট্রিক একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, ক্রেতার ক্রেডিট স্কোরের ওপর নির্ভর করে আনুমানিক ৫০০০ টাকার ইএমআই বা তার চেয়ে কম ইএমআইতে তাদের যানবাহনের জন্য অর্থায়ন করতে তারা একাধিক সংস্থার সাথে গাটছাড়া বাঁধছে।

ওয়ান ইলেকট্রিকের সিওও অভিজিত শাহের কথায়, ” যারা নতুন মোটরসাইকেলের জন্য খোঁজ করছেন, তাদের কাছে প্রায় ৫০০০ টাকার ইএমআইতে উপলব্ধ Kridan তাৎক্ষণিকভাবে একটি কার্যকর বিকল্প হয়ে উঠবে। ইএমআইয়ের স্বল্প সময়কাল, জ্বালানী, এবং পরিষেবা ব্যয়ের সঞ্চয়গুলি বিবেচনা করলে মালিকানার ব্যয় অবশ্যই কম হবে।”

ওয়ান ইলেকট্রিক জানিয়েছে, এই বছরের শেষে তারা আমদানির পরিমান শূন্যে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে। কারণ আত্মনির্ভর ভারত গড়ার লক্ষ্যে তারা সম্পূর্ণ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। অভিজিত শাহ বলেছেন, “আমরা ইতিমধ্যে বাকী আমদানিকৃত উপাদানগুলি নিজেরাই তৈরি করে সেগুলির ট্রায়াল শুরু করেছি।”

গতবছরের সেপ্টেম্বরে স্টার্টআপ সংস্থা ওয়ান ইলেকট্রিক তাদের প্রথম বৈদ্যুতিন বাইক Kridn বাজারে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র পেয়েছিল। গত ডিসেম্বর থেকে হায়দ্রাবাদ ও বেঙ্গালুরুতে গ্রাহকদের কাছে এটি পৌছাতে শুরু করে। ডিলার চূড়ান্ত করার পর দিল্লি এনসিআর, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কেরল, মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান এবং অন্ধ্রপ্রদেশে এর ডেলিভারি চালু করা হবে।

এবার Kridn ই-বাইকের প্রসঙ্গে আসা যাক, এতে ব্যবহৃত মোটর ৫.৫ kW (৭.৪ bhp) পর্যন্ত শক্তি উৎপন্ন করে। এর সর্বোচ্চ গতিবেগ ৯৫কিমি/ঘন্টা এবং ৮ সেকেন্ডেই এটি ০-৬০ কিমি/ঘন্টা গতি তুলতে সক্ষম। এতে ৩ kWh ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে। সম্পূর্ণ চার্জ হয়ে যাওয়ার পর সাধারণভাবে ই-বাইকটি চালালে এটি ৮০ কিমি এবং ইকো মোডে ১১০ কিমির পরিসীমা দেবে। বাইকটির অন্যান্য ফিচারের মধ্যে ডিজিটাল ওডোমিটার, জিপিএস (অপশনাল), দু’চাকাতে ডিস্ক ব্রেক সহ কম্বি ব্রেকিং সিস্টেম।