ভারতের বাজারে এল KTM 250 Adventure মোটরবাইক, সস্তায় প্রিমিয়াম ফিচার

KTM ভারতে লঞ্চ করে দিল KTM 250 Adventure মোটরবাইক। এই অ্যাডভেঞ্চর বাইকের দাম রাখা হয়েছে ২,৪৮,২৫৬ টাকা (এক্স-শোরুম দিল্লি)। সুতারাং KTM 390 Adventure-এর তুলনায় প্রায় ৫৬,০০০ টাকা সস্তায় আপনি এই বাইকটি পেয়ে যাচ্ছেন। KTM 250 Adventure-এর বুকিংও ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে। ব্ল্যাক কালারের এই বাইকে দুটি গ্রাফিক্স অপশন পাওয়া যাবে। একটি হোয়াইট গ্রাফিক্সের সাথে অরেঞ্জ এবং অপরটি অরেঞ্জ গ্রাফিক্সে সাথে ব্ল্যাক।

KTM 250 Adventure-এর ডিজাইন

KTM 390 Adventure-এর মতোই KTM 250 Adventure ডিজাইন ও স্ট্যাইল এলিমেন্ট পেয়েছে। তবে 390 Adventure-এর সস্তা ভার্সান হওয়ায় KTM 250 Adventure বাইকে স্প্লিট হেডল্যাম্প সেটআপের পরিবর্তে দেওয়া হয়েছে সিঙ্গল হেডল্যাম্প। এখানে এলইডি ডিআরএলের সাথে হ্যালোজেন ল্যাম্প পাবেন। উল্লেখ্য, KTM 390 Adventure বাইকে এলইডি হেডল্যাম্প ব্যবহার করা হয়েছে।

KTM 250 Adventure-এর ইঞ্জিন

এই বাইকে ২৪৮ সিসি সিঙ্গেল সিলিন্ডার ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, KTM 250, Bajaj Dominar 250, এবং Husqvarna 250 Twins, এই বাইকগুলিতেও একই ইঞ্জিন লক্ষ্য করা যায়। লিক্যুইড কুলড এই ইঞ্জিন ৯০০০ আরপিএমে সর্বোচ্চ ৩০ বিএচপি পাওয়ার এবং ৭,৫০০ আরপিএমে ২৪ এনএম টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম। কেটিএম এই ইঞ্জিনে সিক্স স্পিড গিয়ারবক্সের সাথে অ্যাসিস্ট ও স্লিপার ক্ল্যাচ দিয়েছে।

KTM 250 Adventure-এর হার্ডওয়্যার ও অন্যান্য ফিচার

KTM 250 Adventure মোটরবাইকে সাসপেনশন সেটআপের মধ্যে পাবেন ৪৩ মিমি ডব্লুপি অ্যাপেক্স ইউএসডি ফর্ক আপফ্রন্ট এবং রিয়র মনোশক। বাইকের ফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেকের ডায়ামিটার ৩২০ মিমি এবং রিয়র ডিস্ক ২৩০ মিমি। ২০০ মিমি গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্সের এই বাইকের ফুয়েল ট্যাঙ্কের ক্যাপাসিটি ১৪.৫ লিটার। কেটিএম দাবি করেছে, ফুয়েল ট্যাঙ্ক একবার সর্ম্পূর্ণ ভর্তি করে নিলেই ৪০০ কিনি নন-স্টপ বাইকটি চালানো যাবে। বাইকটি ১৯/১৭ ইঞ্চির অ্যালয় হুইলে ছুটবে। KTM এই বাইকের চাকায় MRF Mogrip Meteor টায়ার ব্যবহার করেছে।

KTM 250 Adventure বাইকে ডিজিটাল এলসিডি ড্যাশবোর্ড আছে। তবে সস্তায় লঞ্চ হওয়ায় KTM 390 Adventure থাকা ব্লুটুথ কানেক্টিভিটি যুক্ত টিএফটি টিএফটি ডিসপ্লে এখানে দেওয়া হয় নি। ফলে এখানে স্মার্টফোন কানেক্টিভিটি এবং টার্ন বাই টার্ন নেভিগেশানের মতো ফিচারগুলি না থাকলেও এটি গিয়ার লেভেল পজিশান, ট্যাকোমিটার, ওডোমিটার, ট্রিপ মিটারের রিডআউট অফার করবে। KTM 390 Adventure বাইকের মতো এটি ট্র্যাকশন কন্ট্রোল সিস্টেম, আপ/ডাউন ক্যুইকশিফটার, লিন অ্যাঙ্গেল সেন্সিটিভ কর্নারিং এবিএসের মতো ফিচারের সাথে আসেনি। তবে অফ-রোড মোডের সাথে ডুয়াল চ্যানেল এবিএস এই বাইকে পেয়ে যাবেন।

KTM 250 Adventure মোটরবাইকের সাথে অ্যাক্সেসরিজও পাওয়া যাবে। গ্রাহকরা এর মধ্যে হেডল্যাম্প কভার, হ্যান্ডেলবার পড, জিপিএস মাউন্ট, প্রোটেকশানের জন্য রেডিয়েটর গ্রিল, ক্রাশ প্রোটেক্টর ছাড়াও একগুচ্ছ পছন্দসই অ্যক্সেসরিজ বেছে নিতে পারবেন৷ যারা Duke 390 Adventure কেনার কথা চিন্তাভাবনা করছেন কিন্তু দাম দেখে পিছুপা হচ্ছেন, তাদের জন্য KTM 250 Adventure ভাল বিকল্প হতে পারে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।