লকডাউন বাড়ালে ৪ কোটি মানুষের হাতে থাকবেনা ফোন, নতুন রিপোর্টে চাঞ্চল্য

lockdown-effect-icea-thinks-4-crore-users-can-not-use-mobile-phone-after-end-of-may

করোনা ভাইরাসের কারণে দেশজুড়ে ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন থাকবে। যদিও এই লকডাউন আর বাড়ানো হবে কিনা তা এখনও পরিষ্কার নয়। তবে আইসিইএ (ইন্ডিয়ান সেলুলার অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স অ্যাসোসিয়েশন) আশঙ্কা প্রকাশ করেছে, সরকার যদি লকডাউন আরও বাড়ায় তাহলে মে মাসের শেষে ৪ কোটিরও বেশি ব্যবহারকারী মোবাইল ফোন ব্যবহার বন্ধ করতে পারে।

আপনাকে জানিয়ে রাখি লকডাউনের দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০ এপ্রিল থেকে ই-কমার্স সাইটগুলিকে স্মার্টফোন, ফ্রিজ, ল্যাপটপ বিক্রির অনুমতি দিয়েছিল কেন্দ্র সরকার, তবে পরে তা প্রত্যাহার করা হয়। এর পরে শুক্রবার আইসিইএ একটি বিবৃতি জারি করে বলেছে, সরকার যদি লকডাউনের স্মার্টফোন এবং প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশগুলি বিক্রির অনুমতি না দেয় তাহলে মে মাসের শেষে ৪ কোটি মানুষের হাতে মোবাইল থাকবেনা।

ICEA আরও জানিয়েছে, বর্তমানে দেশে ২.৫ কোটিরও বেশি ব্যবহারকারী মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারছেনা। এর কারণ উপাদানগুলির সহজলভ্যতা। মহামারীর কারণে মোবাইল ডিভাইসের উপাদান সরবরাহকারী চেইনটি ভেঙে গেছে। যার কারণে ২.৫ ব্যবহারকারীর মোবাইল ডিভাইস অকেজো হয়ে পরে আছে। যদি লকডাউনটি আরও বাড়ানো হয়, তবে এই সংখ্যা বেড়ে ৪ কোটি হবে।

লকডাউনের পঞ্চম সপ্তাহে, কেন্দ্রীয় সরকার কেবলমাত্র প্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয়ের অনুমতি দিয়েছে। ICEA বলেছে যে সরকার প্রয়োজনীয় পরিষেবার মধ্যে টেলিকম, ইন্টারনেট, ব্রডকাস্টিং এবং আইটি কে অন্তর্ভুক্ত করলেও মোবাইল ডিভাইসকে অন্তর্ভুক্ত করেনি। আর এই কারণেই নতুন ফোন বিক্রি বন্ধ হয়েছে এবং খারাপ ফোন ঠিক ও করা সম্ভব হচ্ছেনা। আইসিইএ-র মতে, প্রতি মাসে ভারতে ২.৫ কোটি নতুন মোবাইল ফোন বিক্রি হয়। বর্তমানে ভারতে ৮৫ কোটির বেশি সক্রিয় মোবাইল ডিভাইস রয়েছে।