১০৮ মেগাপিক্সেল পর্যন্ত ক্যামেরা সহ লঞ্চ হল Mi 10T, Mi 10T Pro ও Mi 10T Lite

mi-10t-mi-10t-pro-and-mi-10t-lite-launched-with-144hz-display-and-sd865-soc

Xiaomi আজ তাদের গত ফেব্রুয়ারিতে লঞ্চ হওয়া Mi 10 এবং Mi 10 Pro এর আপগ্রেড ভার্সন Mi 10T সিরিজ লঞ্চ করলো। এই সিরিজে তিনটি ফোন আছে Mi 10T, Mi 10T Pro ও Mi 10T Lite। এরমধ্যে মি ১০টি ও মি ১০টি প্রো ফোনে আছে স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর। আবার মি ১০টি লাইট ফোনটি স্ন্যাপড্রাগন ৭৫০জি প্রসেসর সহ এসেছে। এছাড়াও প্রথম দুটি মডেলে যেখানে ১৪৪ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে, সেখানে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লে আছে লাইট মডেলে। Mi 10T সিরিজ আপাতত ইউরোপে লঞ্চ হয়েছে। কয়েকজন টিপ্সটার জানিয়েছেন অক্টোবরের মাঝামাঝি এই সিরিজ ভারতে লঞ্চ হতে পারে।

Mi 10T, Mi 10T Pro ও Mi 10T Lite এর দাম

মি ১০টি ফোনটি দুটি স্টোরেজের সাথে লঞ্চ হয়েছে। এর ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের দাম ৪৯৯ ইউরো (প্রায় ৪৩,০৫০ টাকা) এবং ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের দাম ৫৪৯ ইউরো (প্রায় ৪৭,৩৫০ টাকা)।

মি ১০টি প্রো এর দাম শুরু হয়েছে ৫৯৯ ইউরো (প্রায় ৫১,৬৯০ টাকা) থেকে। এই দাম ফোনটির ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের। আবার ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজের দাম ৬৪৯ ইউরো (প্রায় ৫৫,৯৮০ টাকা)।

আবার মি ১০টি লাইট দুটি স্টোরেজ সহ এসেছে। যেগুলি হল ৬ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ জিবি স্টোরেজ এবং ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ। এই দুই স্টোরেজের দাম যথাক্রমে ২৭৯ ইউরো (প্রায় ২৪,০৬০ টাকা) ও ৩২৯ ইউরো (প্রায় ২৮,৩৮০ টাকা)। এই ফোনটি আটলান্টিক ব্লু, রোজ গোল্ড বিচ এবং পার্ল গ্রে কালারে পাওয়া যাবে।

এদিকে Mi 10T কসমিক ব্ল্যাক এবং লুনার সিলভার শেড এবং Mi 10T Pro কসমিক ব্ল্যাক এবং লুনার সিলভার হিউস কালারে লঞ্চ হয়েছে।

Mi 10T স্পেসিফিকেশন

মি ১০টি ফোনে আছে ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে। এর পিক্সেল রেজুলেশন ১০৮০ x ২৪০০ এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। আবার এর রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হার্টজ এবং ব্রাইটনেস ৬৫০ নিটস। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য এতে পাবেন কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ এবং পিছনে আছে GG5 শিট কভার। ফোনটির পাশে আছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ফোনটি অক্টা কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর সহ এসেছে। আবার এতে পাবেন ৮ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও ১২৮ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ।

ফটোগ্রাফির জন্য Mi 10T ফোনে আছে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/১.৯ অ্যাপারচার সহ ৬৪ মেগাপিক্সেল। এছাড়াও আছে ১৩ মেগাপিক্সেল আলট্রা এঙ্গেল লেন্স ও ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর। সেলফির জন্য এতে ২০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। এই ক্যামেরা ৮কে ভিডিও রেকর্ড করতে পারে। পাওয়ারের জন্য এই ফোনে পাবেন ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। এতে ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। চার্জিংয়ের জন্য এখানে পাবেন ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এই ফোনে স্টিরিও স্পিকার, হাই-রেস অডিও সার্টিফিকেশন এবং এক্স অ্যাক্সিস লিনিয়ার ভাইব্রেটর মোটর দেওয়া হয়েছে। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এখানে আছে অ্যান্ড্রয়েড ১০ বেসড এমআইইউআই ১২।

Mi 10T Pro স্পেসিফিকেশন

মি ১০টি প্রো তেও ৬.৬৭ ইঞ্চি ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এর রেজুলেশন ফুল এইচডি প্লাস (১০৮০x২৪০০) এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হার্টজ এবং এতে ৬৫০ নিটস ব্রাইটনেস সাপোর্ট করে। এই ফোনের পিছনে আছে GG5 শিট কভার এবং সামনে আছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রটেকশন। Mi 10T Pro ফোনের পিছনেও ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ উপলব্ধ। যার প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/১.৭ অ্যাপারচার সহ ১০৮ মেগাপিক্সেল। এতে ইমেজ স্টেবিলাইজেশন সাপোর্ট করে। এছাড়াও অন্য ক্যামেরাগুলি হল ১২৩ ডিগ্রি ফিলড অফ ভিউ সহ ১৩ মেগাপিক্সেল ও ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর।

ভিডিও কল ও সেলফির জন্য এই ফোনে পাবেন ২০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। এই ক্যামেরায় নাইট মোড এবং ১২০ এফপিএস এ স্লো মোশন ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। Mi 10T Pro ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর। এতে আছে ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ বিকল্প। ফোনটি সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর সহ এসেছে। এতেও ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সহ ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি আছে। চার্জিংয়ের জন্য এতে পাবেন ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে আছে অ্যান্ড্রয়েড ১০ বেসড এমআইইউআই ১২ ইন্টারফেস।

Mi 10T Lite স্পেসিফিকেশন

মি ১০টি লাইট অ্যান্ড্রয়েড ১০ বেসড এমআইইউআই ১২ ইন্টারফেস সহ এসেছে। এই ফোনে আছে ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস এলসিডি। এর রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ, পিক্সেল রেজুলেশন ১০৮০ x ২৪০০ এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। এই ডিসপ্লের ব্রাইটনেস ৪৫০ নিটস। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য এতে পাবেন কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫। Mi 10T Lite হল প্রথম ফোন যেখানে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭৫০জি প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। র‌্যাম ও মেমোরির কথা বললে এতে আছে ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ। এতে লিকুইডকুল টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়েছে।

ফটোগ্রাফির জন্য মি ১০টি লাইট ফোনে কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা উপলব্ধ। এর প্রাইমারি ক্যামেরা ৬৪ মেগাপিক্সেল। এছাড়াও আছে ১২০ ডিগ্রি ফিলড অফ ভিউ সহ ৮ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল সেন্সর, ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর ও ২ মেগাপিক্সেল ডেপ্থ সেন্সর। সেলফির ক্যামেরার হিসাবে এখানে আছে ১৬ মেগাপিক্সেল সেন্সর। এই ফোনে ৪,৮২০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। এতেও ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। চার্জিংয়ের জন্য এতে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট আছে।