পুড়ছে মাদারবোর্ড, Mi 11 স্মার্টফোনকে ঘিরে ব্যাপক অসন্তোষ ইউজারদের

mi-11-face-issue-burnt-motherboards Xiaomi ignore replies

লঞ্চ হওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই শাওমির নতুন ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন Mi 11 -কে ঘিরে ক্রেতাদের মধ্যে অসন্তোষ দানা বাঁধছে। এদের মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ফোনটির বিষয়ে নিজেদের অভিযোগ ব্যক্ত করছেন। অথচ কিছুদিন আগেও ডিভাইসটির প্রতি মানুষের আগ্রহ ছিলো প্রবল। এর মধ্যে হঠাৎ কি কারণে ক্রেতাদের মন বদলে গেল সেটা বুঝতে হলে অভিযোগকারীদের সমস্যার ব্যাপারটা মন দিয়ে শুনতে হবে। আসলে শাওমির এই ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনে প্রতিদিন কিছু না কিছু ত্রুটি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্যে ব্যাটারি ও তার শক্তিক্ষয়জনিত সমস্যা সবথেকে বেশী। এর সাথে বর্তমানে অতিরিক্ত উত্তপ্ত হওয়া এবং তার ফলে ডিভাইসের মাদারবোর্ড পুড়ে যাওয়ার অভিযোগ জুড়েছে। স্মার্টফোনের একাধিক ক্রেতা এই সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন। যদিও শাওমির (Xiaomi) পক্ষ থেকে সমস্যাটির বিষয়ে এখনো কোন উচ্চবাচ্য শোনা যায়নি।

সম্প্রতি ITHome -এর প্রতিবেদন থেকে সমস্যাটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা গিয়েছে। খোদ চীনে এই নিয়ে সবথেকে বেশী মানুষ বিপদে পড়েছেন। এতে অবশ্য অস্বাভাবিকতার কিছু নেই। কারণ এবছর প্রকাশ্যে আসার মাত্র ২১ দিনের মধ্যে চীনে Xiaomi Mi 11 স্মার্টফোন বিক্রির পরিমাণ দশ লক্ষ ছাড়িয়েছে! এমন রেকর্ড পরিমাণ বিক্রির পরে কোন সমস্যা হলে তা নিয়ে শোরগোল যে নেহাত কম হবেনা সেটা বোঝাই যায়। ফলে চীনের বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমেও মুহুর্মুহূ অসংখ্য অভিযোগ আছড়ে পড়ছে।

উদাহরণ হিসেবে জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং ওয়েবসাইট উইবো’র (Weibo) দৃষ্টান্ত দেওয়া যায়। শাওমির নয়া ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসটির বিভিন্ন ত্রুটি নিয়ে অভিযোগকারীরা এখানেও ভীড় বাড়াচ্ছেন। এদের মধ্যে অনেকের বক্তব্য যে অতিরিক্ত উত্তপ্ত হওয়ার কারণে তাদের নতুন স্মার্টফোনের মাদারবোর্ড পুড়ে গেছে। এটি নিঃসন্দেহে ডিভাইসের অভ্যন্তরীণ তাপ নিয়ন্ত্রণকারী ব্যবস্থার সমস্যা। ফলে এবিষয়ে তারা স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক সংস্থার জবাব তলব করেছেন।

শুধু মাদারবোর্ডের ক্ষতি নয়, স্বল্প ব্যবহারে উত্তপ্ত হওয়ার ফলে Xiaomi Mi 11 স্মার্টফোনের ক্রেতারা আরো একাধিক দুশ্চিন্তায় নাকাল হচ্ছেন। অনেকের অভিযোগ এই স্মার্টফোনে মাত্র দশ মিনিট গেম খেললেই সেটি একটি হ্যান্ড ওয়ার্মারের থেকেও বেশী উত্তপ্ত হয়ে পড়ছে। তাছাড়া এর ব্যাটারি সক্ষমতা যথেষ্ট কম, উপরন্তু অতিরিক্ত শক্তি খরচের ফলে এর ব্যাটারি নিমেষে ফুরিয়ে যাচ্ছে। শাওমির মতো বিশ্বাসভাজন সংস্থার ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের আচমকা এই দশা কেন, অভিযোগকারীরা সেটাও জানতে চেয়েছেন। যদিও পুরো বিষয়টি সম্পর্কে শাওমি’র পক্ষ থেকে কোন মন্তব্য করা হয়নি। ভবিষ্যতে এই সংক্রান্ত কোন আপডেট পেলে আমরা তৎক্ষণাৎ সেটা আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নেবো।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন