সবাই কে পিছনে ফেলে ৫ মিনিটে সাড়ে তিন লক্ষ Mi 11 বিক্রি হল

mi-11-first-sale-350000-unit-over-1-5-billion-yuan-sold-in-5-minutes

গত ২৯ ডিসেম্বর চীনে লঞ্চ হয়েছিল Mi 11। এই ফোনটি কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসরের প্রথম ফোন। আজ অর্থাৎ ১ জানুয়ারি এই ফোনটির প্রথম সেল অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আর এই সেলে ‘রেকর্ড ব্রেকিং’ সাড়া পেল মি ১১ ফোনটি। কোম্পানির দাবি অনুযায়ী, সেল শুরু হওয়ার ৫ মিনিটের মধ্যেই Mi 11 এর প্রায় ৩৫০,০০০ স্মার্টফোন বিক্রি হয়েছে।

শাওমির মোবাইল ফোন ডিভিশন, কিছুক্ষন আগেই Mi 11 এর প্রথম সেলের রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। তারা জানিয়েছে, প্রথম সেলে ১৩ মিনিটের আগেই মি ১১ আউট অফ স্টক হয়ে যায়। এছাড়া সেল শুরুর প্রথম ৫ মিনিটের মধ্যে তারা ১.৫ বিলিয়ন ইউয়ান (প্রায় ১৬৭৮ কোটি টাকার অধিক) এর স্মার্টফোন বিক্রি করেছে। জানিয়ে রাখি এই ফোনের দাম শুরু হয়েছে ৩,৯৯৯ ইউয়ান ( প্রায় ৪৫,০০০ টাকা) থেকে। আবার টপ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৪,৬৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৫২,৮০০ টাকা)। সেক্ষত্রে আমরা যদি গড়ে বিক্রি হওয়া প্রতিটি ফোনের মূল্য ধরি ৪,৩০০ ইউয়ান ( প্রায় ৪৮,৩০০ টাকা)। তাহলে শাওমি ৫ মিনিটে প্রায় ৩৫০,০০০ স্মার্টফোন বিক্রি করেছে।

এবার আপনি বলতে পারেন, মি ১১ এমন কি ফোন যে এত মানুষ কিনছে। তাহলে বলি এটি শুধু প্রথম স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসরের ফোন নয়, এর সাথে এই ফোনে ৬.৮১ ইঞ্চি ফুল WQHD অ্যামোলেড কার্ভড ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এর রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ, সর্বোচ্চ ব্রাইটনেস ৫১৫ পিপিআই এবং টাচ স্যাম্পেলিং রেট ৪৮০ হার্টজ। এটি হল পৃথিবীর দ্বিতীয় স্মার্টফোন যেখানে গোরিলা গ্লাস ভিক্টাস প্রটেকশান ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া এতে পাবেন Mi TurboCharge ৫৫ ওয়াট ওয়্যারড ফাস্ট চার্জিং সহ ৪,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারি।

ক্যামেরার কথা বললে Mi 11 ফোনে আছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর (এফ/১.৮ অ্যাপারচার)যুক্ত ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা। অন্য দুটি ক্যামেরা হল  ১৩ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স (এফ/২.৪ অ্যাপারচার), ও ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা (এফ/২.৪ অ্যাপারচার)। আবার সেলফির জন্য আছে  ২০ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৪ অ্যাপারচার) ফ্রন্ট ক্যামেরা। ফোনটির সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন পড়তে এখানে ক্লিক করুন