Mi 11 Lite 4G ফোনে থাকবে স্ন্যাপড্রাগন ৭৩২জি প্রসেসর, ভারতে নাম হতে পারে Poco F2

mi-11-lite-4g-spotted-on-nbtc-with-snapdragon-732g-soc-could-come-as-poco-f2

২০২০-এর একেবারে শেষ লগ্নে এসে Xiaomi তার ঘরেলু মার্কেটে লঞ্চ করেছে Mi 11 5G ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন। Mi 11 সিরিজে একটি Pro ভ্যারিয়েন্ট থাকবে বলে চর্চা চললেও, Mi 11-এর লঞ্চ ইভেন্টে আমরা Mi 11 Pro লঞ্চ হতে দেখিনি। তবে ফোনটি ফেব্রুয়ারি/মার্চ মাসে লঞ্চ হতে পারে বলে বেশ কিছু রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে। এদিকে জোর জল্পনা চলছে যে, শাওমি Mi 11 Lite 4G নামে একটি ডিভাইসের ওপর কাজ শুরু করেছে৷ এতে অবশ্য প্রিমিয়াম স্পেসিফিকেশন থাকবে না। মিডরেঞ্জ সেগমেন্টে এটি বাজারে আসবে।

সম্প্রতি M2101K9AG নামে শাওমির একটি ফোনকে আমেরিকার এফসিসি (FCC) সার্টিফিকেশন সাইটে স্পট করা হয়েছিল। FCC-র ওয়েবসাইটে থেকে আমরা জানতে পেরেছিলাম, হ্যান্ডসেটটি ৬ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি স্টোরেজ এবং ৬ জিবি র‌্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে আসতে চলেছে। অনেকে দাবি করে বসেন, ফোনটি আসলে Mi 11 Lite৷ এবার এই একই মডেল নম্বর (M2101K9AG)-এর সাথে ফোনটিকে থাইল্যান্ডের NBTC সার্টিফিকেশন সাইটে দেখা গেল। সেখান থেকে নিশ্চিত হয়েছে, ফোনটির নাম Mi 11 Lite এবং এটি LTE (4G) কানেক্টিভিটি সাথে আসবে৷

অন্যদিকে টিপ্সটারদের মতে, শাওমি Mi 11 Lite 4G ফোনটিকে রিব্রান্ডেড হিসাবে Poco F2 নামে ভারতে লঞ্চ করতে পারে। ইতিমধ্যে Mi 11 Lite-এর রেন্ডার ও কয়েকটি স্পেসিফিকেশন ভিয়েতনামের একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে ফাঁস করা হয়েছে। The Pixel নামের চ্যানেলটির শেয়ার করা রেন্ডারে এমআই ১১ লাইট ৪জি-কে ব্ল্যাক ও ব্লু কালার অপশনে দেখা গিয়েছিল।

Mi 11 Lite 4G-এর স্পেসিফিকেশন (সম্ভাব্য)

এমআই ১১ লাইট ৪জি ফোনের পিছনে বর্গাকার ক্যামেরা মডিউল রাখা হয়েছে। যার প্রাইমারি ক্যামেরাতে ৬৪ মেগাপিক্সেল সেন্সর থাকতে পারে। দ্য পিক্সেল দাবি করেছে, ফোনটি ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের সাথে আসতে পারে। ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা সর্ম্পকে কিছু জানানো হয় নি। তবে হ্যান্ডসেটে আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে থাকতে পারে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সেলফি ক্যামেরার জন্য কাটআউট ডিসপ্লের বামদিকে থাকবে। এমআই ১১ লাইট ৪জি চলবে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭৩২জি প্রসেসরে।

যেহেতু শাওমি ফোনটির বিষয়ে অফিসিয়ালি কিছু বলে নি। তাই সমস্ত স্পেসিফিকেশন একটা জল্পনার ওপর দাঁড়িয়ে। তবে সার্টিফিকেশন পাওয়ার অর্থ ফোনটি হয়ত বেশীদিন লোকচক্ষুর অন্তরালে থাকবে না। শাওমি শীঘ্রই এটি লঞ্চ করার পরিকল্পনা নিচ্ছে।