গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ হতে চলেছে Mi 11, থাকবে ১২ জিবি র‌্যাম

mi-11-spotted-on-imda-certification-and-geekbench-global-launch-imminent

গতবছরের শেষ সপ্তাহে চীনে লঞ্চ হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসরের প্রথম ফোন Mi 11। লঞ্চের কয়েকদিনের পরেই Xiaomi -র তরফে একটি টিজার পোস্ট করে জানানো হয়েছিল যে, এই ফোনটি শীঘ্রই গ্লোবাল মার্কেটে উপলব্ধ হবে। যারপরে আজ Mi 11 কে M2011K2G মডেল নম্বরের সাথে সিঙ্গাপুরের IMDA সার্টিফিকেশন ও Geekbench এ দেখা গেল। ফলে নিশ্চিত যে মি ১১ এর গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ হওয়া এখন কেবল সময়ের অপেক্ষা।

জনপ্রিয় টিপ্সটার মুকুল শর্মা আজ টুইট করে জানিয়েছেন, মি ১১ শীঘ্রই গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ হতে পারে। কারণ M2011K2G মডেল নম্বরের একটি ফোনকে সিঙ্গাপুরের IMDA সার্টিফিকেশন সাইটে দেখা গেছে। জানিয়ে রাখি চীনের 3C সার্টিফিকেশন সাইটে Mi 11 ফোনের মডেল নম্বর ছিল M2011K2C। ফলে বুঝে নিতে অসুবিধা নেই M2011K2G এর ‘G’ এর অর্থ গ্লোবাল।

এদিকে Xiaomi যখন মি ১১ এর Kernel সোর্স কোড রিলিজ করেছিল, তখন দেখা গিয়েছিলো এই ফোনের কোডনেম “Venus”। এই কোডনেম ও IMDA সার্টিফিকেশন সাইটের মডেল নম্বর সহ একটি ফোনকে বেঞ্চমার্ক সাইট গিকবেঞ্চেও দেখা গেছে। বলতে দ্বিধা নেই এই ফোনটি আসলে মি ১১। গিকবেঞ্চে ফোনটি ১২ জিবি র‌্যাম ও অ্যান্ড্রয়েড ১১ সহ অন্তর্ভুক্ত আছে। এখন দেখার শাওমি ঠিক কবে গ্লোবাল মার্কেটে এই ফোন লঞ্চ করে।

Mi 11 এর মূল স্পেসিফিকেশন

মি ১১ ফোনে আছে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট যুক্ত ৬.৮১ ইঞ্চি ফুল WQHD অ্যামোলেড কার্ভড ডিসপ্লে। এর ডিসপ্লে ডিজাইন পাঞ্চ হোল, যার মধ্যে ২০ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৪ অ্যাপারচার) ফ্রন্ট ক্যামেরা উপলব্ধ। মি ১১ হল কর্নিং গোরিলা গ্লাস ভিক্টাস প্রটেকশনের দ্বিতীয় ফোন। এতে স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। সাথে আছে ১২ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ।

Mi 11 ফোনে ৪,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারি পাবেন, এর সাথে Mi TurboCharge ৫৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং এবং ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করবে। আবার ফোনের পিছনে আছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রাইমারি ক্যামেরা ১০৮ মেগাপিক্সেলের (এফ/১.৮ অ্যাপারচার), সেকেন্ডারি ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স (এফ/২.৪ অ্যাপারচার), ও তৃতীয় সেন্সরটি ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা (এফ/২.৪ অ্যাপারচার)। ফোনটির সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন পড়তে এখানে ক্লিক করুন