Mi 11 নাকি Vivo X60 Pro+, কোন ফোনটি আপনার জন্য সেরা জেনে নিন

mi-11-vs-vivo-x60-pro-plus-comparison-specifications-price-cons.jpg

স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসরের প্রথম ফোন হিসাবে গতবছরের শেষে Xiaomi ঘরেলু মার্কেটে লঞ্চ করেছিল Mi 11। ওই একই প্রসেসর সহ Vivo X60 Pro+ গতমাসে চীনে লঞ্চ হয়েছে। আগামীকাল অর্থাৎ ৮ ফেব্রুয়ারি মি ১১ গ্লোবাল মার্কেটে পা রাখতে চলেছে। এদিকে আগামী কয়েকমাসের মধ্যে ভিভো এক্স৬০ প্রো প্লাস কেও বিভিন্ন মার্কেটে লঞ্চ করা হবে। দুটি ফোনই দুর্দান্ত স্পেসিফিকেশন সহ বাজারে এসেছে। আজ আমরা এই দুই ফোনের স্পেসিফিকেশনের পার্থক্য আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। যারপরে আপনি নিশ্চিত হয়ে যাবেন কোন ফোনটি আপনার জন্য সেরা বিকল্প হবে।

Mi 11 vs Vivo X60 Pro+: দাম

শাওমি এমআই ১১-এর দাম শুরু হয়েছে ৩,৯৯৯ ইউয়ান ( প্রায় ৪৫,০০০ টাকা থেকে)। এই দাম ফোনটির ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের। আবার এর ৮  জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের দাম ৪,২৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৪৮,৩০০ টাকা)। ফোনটির ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজযুক্ত মডেলের দাম পড়বে ৪,৬৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৫২,৮০০ টাকা)।

এদিকে ভিভো এক্স৬০ প্রো প্লাস-এর ৮ জিবি র‌্যাম  + ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৪,৪৯৮ ইউয়ান (প্রায় ৫০,৮০০ টাকা) এবং এর ১২ জিবি র‌্যাম + ২৫৬ জিবি স্টোরেজ মডেলের দাম ৫৯৯৮ ইউয়ান (প্রায় ৬৭,৭৪৯ টাকা)। 

Mi 11 vs Vivo X60 Pro+: ডিসপ্লে

শাওমি এমআই ১১ ফোনে WQHD (৩২০০x১৪৪০) রেজোলিউশনের ৬.৮১ ইঞ্চি ফুল অ্যামোলেড কার্ভড ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এর রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ, সর্বোচ্চ ব্রাইটনেস ৫১৫ পিপিআই এবং টাচ স্যাম্পেলিং রেট ৪৮০ হার্টজ। ডিসপ্লেতে কর্নিং গোরিলা গ্লাস ভিক্টাস প্রোটেকশান রয়েছে। Mi 11-এর ডিসপ্লে DCI-P3 কালার গামুট, HDR10, এবং Motion Estimation, Motion Compensation (MEMC) সাপোর্ট করবে। 

ভিভো এক্স৬০ প্রো প্লাস ফোনে পাবেন ৬.৫৬ ইঞ্চির ফুলএইচডি প্লাস (১০৮০x২৩৭৬ পিক্সেল) অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ এবং টাচ স্যাম্পলিং রেট ১২০ হার্টজ। এটি HDR10 ও HDR10+ সাপোর্ট করবে।

Mi 11 vs Vivo X60 Pro+: প্রসেসর, সফটওয়্যার

মি ১১ ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকমের লেটেস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর। এতে ইন ডিসপ্লে অপটিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর আছে যা হার্ট রেট মনিটর হিসেবেও কাজ করবে। ফোনটি চলবে অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড এমআইইউআই ১২ ইন্টারফেসে।

ভিভো এক্স৬০ প্রো প্লাস স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসরের সাথে এসেছে। ফোনটি চলবে অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড অরিজিন ওএস ১.০ ইন্টারফেসে।

Mi 11 vs Vivo X60 Pro+: ক্যামেরা

মি ১১ ফোনের পিছনে আছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। যেখানে প্রাইমারি ক্যামেরা হিসাবে রয়েছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের সেন্সর (এফ/১.৮ অ্যাপারচার)। অন্য দুটি ক্যামেরা হল ১২৩ ডিগ্রী ফিল্ড অফ ভিউযুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স (এফ/২.৪ অ্যাপারচার), ও ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা (এফ/২.৪ অ্যাপারচার)। এই ক্যামেরায় সুপার নাইট সিন মোড আছে যেখানে নাইড মোড ব্যবহার করে স্বল্প আলোতেই ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। এছাড়া প্রফেশনাল মোডের সাথে 8K ভিডিও রেকর্ডিং, ভিডিও লগ মোড, HEIF ফরম্যাট সাপোর্ট, সিনেমাটিক লেন্স, এবং অসংখ্য ক্লাসিক মুভি ফিল্টার রয়েছে। এতে ২০ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৪ অ্যাপারচার) সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

ভিভো এক্স৬০ প্রো প্লাস এর পিছনে আছে কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ। এর প্রথম প্রধান ক্যামেরাটি হচ্ছে ৪-অ্যাক্সিস OIS, ১১৪° আল্ট্রাওয়াইড অ্যাঙ্গেল, ১৪ মিমি ফোকাল লেংথ সহ ৪৮ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.২) সনি IMX598 ক্যামেরা৷ দ্বিতীয় প্রধান ক্যামেরাটি হল ৫০ মেগাপিক্সেলের (এফ/১.৫৭) স্যামসাং GN1 ক্যামেরা৷ এছাড়া আছে ৫০ মিমি ফোকাল লেংথ ৩২ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৮) পোট্রেট ক্যামেরা ও ৮ মেগাপিক্সেলের (এফ/৩.৪) পেরিস্কোপ ক্যামেরা যা OIS ৫x অপটিক্যাল জুম এবং ৬০x সুপার জুম সাপোর্ট করে৷ ভিভো বলেছে, চারটি ক্যামেরায় এএফ অটোফোকাস এবং ভিডিও স্ট্যাবিলাইজেশন সাপোর্ট করে৷ এতে 8K ভিডিও রেকর্ডিং করার সুবিধা পাওয়া যাবে৷ সেলফি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য ফোনের সামনে রয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা।

Mi 11 vs Vivo X60 Pro+: ব্যাটারি

মি ১১ ফোনে ৪,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে, যা Mi TurboCharge ৫৫ ওয়াট ওয়্যারড ফাস্ট চার্জিং এবং ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করবে। এতে আবার ১০ ওয়াট ওয়্যারলেস রিভার্স চার্জিং সাপোর্টও রয়েছে। এছাড়া এটি ক্যুইক চার্জ ৪+, ক্যুইক চার্জ ৩+, এবং পাওয়ার ডেলিভারি ৩.০ সাপোর্ট করবে।

ভিভো এক্স৬০ প্রো প্লাস ফোনে ৫৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ ৪,২০০ এমএইচের ব্যাটারি পাওয়া যাবে। চার্জিংয়ের জন্য আছে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এতে ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে না।

Mi 11 এর ভালো দিক

  • ভ্যালু ফর মানি স্মার্টফোন
  • দুর্দান্ত ডিসপ্লে
  • ওয়্যারলেস চার্জিং
  • বড় ব্যাটারি
  • Mi 11 এর খারাপ দিক

কোনো অপটিক্যাল জুম নেই

Vivo X60 Pro+ এর ভালো দিক

ক্যামেরা
উন্নত ফাস্ট চার্জিং

Vivo X60 Pro+ এর খারাপ দিক

তুলনামূলক কম শক্তিশালী ব্যাটারি

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন