গর্বের বিষয়! Realme, OnePlus এবং Infinix এর টিভি তৈরী করছে ভারতীয় কোম্পানি

micromax-subsidiary-company-making-tvs-for-realme-oneplus-and-infinix-in-india

আক্ষরিক অর্থে টেলিভিশনও এখন সবদিক থেকেই স্মার্ট হয়ে উঠেছে। কোম্পানিগুলি তাদের টিভিতে উন্নত সফটওয়্যার, প্রসেসর, ওটিটি প্ল্যাটফর্মের অ্যাক্সেস, গেম ও বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন সাপোর্ট দেওয়ার মাধ্যমে দর্শকের বিনোদনের অভিজ্ঞতায় আলাদা মাত্রা যোগ করতে সর্বদাই সচেষ্ট৷ তাই ভারতে Smart TV-র বাজার ক্রমশ বড়ো হচ্ছে৷ একারণেই স্মার্টফোনের দৌলতে নিজেদের পরিচিতি তৈরি করলেও, গ্রাহকদের চাহিদা অনুমান করে Realme, Xiaomi, OnePlus -এর মতো সংস্থা এখন ভারতে টিভি সেগমেন্টে প্রবেশ করেছে৷ তবে সম্প্রতি একটি খবর সামনে এসেছে, যা জানার পর আপনার ভারতীয় হিসাবে গর্ব অনুভব হওয়া স্বাভাবিক। আসলে এই সমস্ত বিদেশি কোম্পানিগুলি মেক ইন ইন্ডিয়া উদ্যোগ অনুসরণ করে তাদের টিভিগুলি ভারতের একটি সংস্থাকে দিয়ে উৎপাদন করাচ্ছে বলে জানা গেছে৷

মোবাইল ইন্ডিয়া তার একটি প্রতিবেদনে বলেছে, ভগবতী প্রোডাক্টস লিমিটেড (Bhagwati Products Limited) নামে ভারতীয় কোম্পানিটি বর্তমানে BPL, OnePlus, Realme, TCL, এবং Infinix ব্রান্ডের স্মার্ট টিভি উৎপাদনের কাজ করছে। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি, ভগবতী প্রোডাক্টস লিমিটেড মূলত ইলেকট্রনিক্স দ্রব্য ও টেলিকমিউনিকেশন ডিভাইসের ম্যানুফ্যাকচারিং ও অ্যাসেম্বলির কাজ করে থাকে।

মাইক্রোম্যাক্স ইনফরমেটিক্স-এর সাবসিডিয়ারি ব্রান্ড হিসেবে ২০০২ সালে ভগবতী প্রোডাক্টস লিমিটেডের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। ভারতে সংস্থাটির তিনটি কারখানা (ভিওয়ান্ডি, তেলেঙ্গানা, রুদ্রপুরে) রয়েছে। মাইক্রোমাক্সের স্মার্টফোন ও টিভি উৎপাদনও এই সংস্থাটি করে থাকে। রিপোর্ট বলছে, ভগবতী প্রোডাক্টস লিমিটেড এখনও পর্যন্ত ৪০ মিলিয়ন মোবাইল ফোন (স্মার্ট ফোন ও ফিচার ফোন) এবং ৩ মিলিয়ন এলইডি লাইট, মোবাইল চার্জার, ও লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি উৎপাদন করেছে।

Realme তাদের ৩২ ইঞ্চি, ৪৩ ইঞ্চি ও ৫৫ ইঞ্চির এসএলইডি স্মার্টটিভি উৎপাদনের জন্য ভগবতী প্রোডাক্টস ছাড়াও ভিডিওটেক্স ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেড নামের একটি দেশীয় সংস্থার সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বলে রিপোর্টে জানানো হয়েছে। রিয়েলমির একজন মুখপাত্র বলেছেন, “অংশীদারদের সাথে কাজ করার মাধ্যমে রিয়েলমি মেক ইন ইন্ডিয়া উদ্যোগকে সমর্থন করে এবং তারা লোকাল স্মার্টফোন ও এআইওটি (আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স অফ থিংস) ইকোসিস্টেমের উন্নয়নে এবং স্থানীয় চাকরি তৈরিতে অবদান রাখছে।”