Microsoft Surface Pro 7 Plus ইন্টেল কোর টাইগার লেক সিপিইউ লঞ্চ হল

microsoft-surface-pro-7-plus-launched-with-11th-intel-core-tiger-lake-processor

জনপ্রিয় মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি Microsoft এবার Microsoft Surface Pro 7 Plus নামে একটি নতুন ল্যাপটপের ঘোষণা করল। এই ল্যাপটপটি, সংস্থার Surface 2-in-1 ডিভাইসগুলির একটি আপডেটেড সংস্করণ, যাতে উন্নত প্রসেসর, দীর্ঘ ব্যাটারি লাইফ, অ্যাডভান্সড কানেক্টিভিটি, শক্তিশালী র‌্যাম এবং আরও একাধিক মজার ফিচার দেওয়া হয়েছে। মাইক্রোসফট সারফেস প্রো ৭ প্লাস ল্যাপটপটি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং বাণিজ্যিক-কর্মক্ষেত্রগুলিতে সমান তালে ব্যবহার করা যাবে। আগ্রহীরা মাইক্রোসফ্টের এই নতুন সারফেস ল্যাপটপের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন।

Microsoft Surface Pro 7 Plus – স্পেসিফিকেশন

আগেই বলেছি, এই নতুন মাইক্রোসফ্ট ল্যাপটপটি সংস্থার Surface 2-in-1 সিরিজের ডিভাইসের একটি লেটেস্ট ভার্সন। সেক্ষেত্রে, এই ডিভাইসটিকে প্রয়োজনমত ট্যাবলেট, স্টুডিও, ল্যাপটপ এবং ডেস্কটপ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। নির্মাতা সংস্থার দাবি, ল্যাপটপটি মাইক্রোসফ্ট ওপেন সোর্স ইউইএফআই (UEFI)-এর মাধ্যমে পরিচালিত এবং এটির প্রতিটি লেয়ার মাইক্রোসফ্ট নিজে পরিচালনা করে – তাই এটি সম্পূর্ণ সুরক্ষিত। তাছাড়া, এই ল্যাপটপে ডিভাইস ফার্মওয়্যার কনফিগারেশন ইন্টারফেস (DFCI) রয়েছে, যার অর্থ হল কোনো ব্যক্তি পৃথকভাবে এটির ক্যামেরা, মাইক্রোফোন, স্পিকার ইত্যাদি অক্ষম করতে পারবেন।

মজার বিষয় হল, ল্যাপটপটি লেটেস্ট ১১তম প্রজন্মের ইন্টেল কোর টাইগার লেক প্রসেসর দ্বারা চালিত। এবং এটি Core i3, i5 এবং i7 – তিনটি বিকল্পে উপলব্ধ। তদতিরিক্ত, এটি সংস্থার প্রথম সারফেস প্রো ডিভাইস যা ৩২ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম এবং ১ টিবি স্টোরেজ সরবরাহ করে। ল্যাপটপটিতে একটি রিমুভেবল স্টোরেজ সলিউশনও রয়েছে। অন্যান্য ফিচারের কথা বললে এটি ১২.৩ পিক্সেলসেন্সের টাচ স্ক্রিন ডিসপ্লেসহ আসে যাতে অ্যাম্বিয়েন্ট লাইট সেন্সিং ফিচার রয়েছে। বৈশিষ্ট্যটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আলোক শর্তের সাথে সামঞ্জস্য হয়। এছাড়া ল্যাপটপটিতে ৫০.৪ ওয়াট আওয়ার ক্যাপাসিটিযুক্ত বড় ব্যাটারি রয়েছে যা একক চার্জে ১৫ ঘন্টা অবধি ব্যাকআপ দিতে সক্ষম।

অন্যদিকে, Surface Pro 7 Plus ল্যাপটপটিতে অপশনাল এলটিই (LTE) অ্যাডভান্সড কানেকশনের বিকল্প রয়েছে, তবে এটি ফ্যান-লেস Core i5 কনফিগারেশনের সাথে উপলব্ধ। এক্ষেত্রে এতে ই-সিম (eSIM) এবং সাধারণ ন্যানো-সিম – উভয়ই সাপোর্ট করে। শুধু তাই নয়, কানেক্টিভিটির জন্য এতে Wi-Fi 6 প্রযুক্তিও রয়েছে। এছাড়াও আছে ইউএসবি-সি টাইপ পোর্টও।

Microsoft Surface Pro 7 Plus – মূল্য, প্রাপ্যতা

এখনও পর্যন্ত, সংস্থাটি তার এই লেটেস্ট 2-in-1 সারফেস ডিভাইসটির দাম প্রকাশ করেনি। রিপোর্ট অনুযায়ী, এটি কেবলমাত্র এন্টারপ্রাইজ এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকদের জন্য উপলব্ধ হবে। সাধারণ গ্রাহকরা এটি কিনতে পারবেন কিনা সে সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে আগামী ১৫ই জানুয়ারিতে এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে আসবে। পরে কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপের কিছু অঞ্চলেও এটি উপলব্ধ হবে। আশা করা যায়, আগামী দিনে এটি ভারতীয় বাজারেও পা রাখতে পারে!