Cryptocurrency: ক্রিপ্টোমুদ্রার প্রলোভন দেখিয়ে যুবসমাজকে বিপথগামী করার চেষ্টা কড়া হাতে দমন করবে মোদী সরকার

কিছুদিন আগে RBI-ও দেশের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার পক্ষে ডিজিটাল কারেন্সির বিপজ্জনক প্রভাব সম্পর্কে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে

mislead-youth-by-overpromising-on-cryptocurrency-should-stop-pm-modi-chairs-k

দেশজুড়ে ডিজিটাল মুদ্রার বৈধতা প্রাপ্তি নিয়ে চলতে থাকা তুমুল জল্পনার মাঝেই Bitcoin, Dogcoin- নিয়ে ফের কড়া আভাস কেন্দ্রের। শনিবার, ক্রিপ্টো-সম্পর্কিত একটি বৈঠকে, ক্রিপ্টোমুদ্রার অতিরিক্ত প্রলোভন দেখিয়ে যুবসমাজকে বিপথগামী করার চেষ্টা প্রসঙ্গে হুঁশিয়ারি শোনালো কেন্দ্র।

১৩ই নভেম্বর, শনিবার, কেন্দ্রের তরফে, মূলত দেশে ক্রিপ্টোকারেন্সির ভবিষ্যত ও তা সম্পর্কে সরকারের আসন্ন পদক্ষেপ বিষয়ে আলোচনার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) সভাপতিত্বে, একটি সম্মিলিত বৈঠকের আয়োজন করা হয়। সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, নয়া দিল্লীতে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে, রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার বর্তমান গভর্নর শক্তিকান্ত দাস (Shaktikanto Das), SEBI-(Securities and Exchange Board of India)-র চেয়ারপার্সন অজয় ত্যাগী (Ajay Tyagi) সহ উপস্থিত ছিলেন আরও অনেক উচ্চস্তরের আধিকারিকরা।

সভায় উপস্থিত সকলেই বর্তমান যুবসমাজের ওপর ক্রিপ্টোকারেন্সির কুপ্রভাব সম্পর্কে সহমত পোষণ করেন। তাদের মতে, বেশ কিছু ক্রিপ্টো প্ল্যার্টফর্মে ক্রমাগত, অস্বচ্ছ কিছু বিজ্ঞাপন ঘুরে বেড়াচ্ছে, যেগুলি অতিরিক্ত লাভের আশা দেখিয়ে যুবসমাজকে প্রলোভিত করার চেষ্টা করছে যা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া প্রয়োজন। এ বিষয়ে উন্নয়নশীল প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়েই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার দিকে এগোবে সরকার। অনিয়ন্ত্রিত ক্রিপ্টো মার্কেটগুলি মুদ্রা জালিয়াতি ও সন্ত্রাস-তহবিলের কেন্দ্র হয়ে উঠছে কিনা, সে বিষয়েও কড়া নজর থাকবে কেন্দ্রের, এমনটাই সূত্র মারফত খবর।

সরকারী রিপোর্ট অনুযায়ী, কেন্দ্র এ বিষয়ে বিভিন্ন স্টেকহোল্ডার ও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। ক্রিপ্টো কারেন্সির বিষয়টি যেহেতু দেশীয় স্তরে সীমাবদ্ধ নেই, তাই এ নিয়ে সক্রিয় ও প্রগতিশীল সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আন্তর্জাতিক মিত্রতা ও সম্মিলিত কৌশলের সাহায্য নেওয়াতেই আপাতত সায় সরকারের। সংবাদসংস্থা ANI জানায়, RBI, অর্থ মন্ত্রক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরের বিভিন্ন বিশেষজ্ঞদের সম্মিলিত বিশদ আলোচনা ও গবেষণারই ফলস্বরূপ আয়োজিত হয়েছে উক্ত বৈঠকটি।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে RBI-ও দেশের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার পক্ষে ডিজিটাল কারেন্সির বিপজ্জনক প্রভাব সম্পর্কে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে। গভর্নর শক্তিকান্ত দাস, বিনিয়োগকারীদের সম্ভাব্য ক্ষতির সম্পর্কে সতর্ক করেছেন। চলতি বছরের শুরুর দিকে, ক্রিপ্টোকারেন্সি নিষিদ্ধকরণের জন্য সরকারী আইন প্রণয়নের গুঞ্জনও বেশ শোনা যাচ্ছিল। তবে আপাতত সে জল্পনার অবসান হয়েছে।

এসব কিছুর মাঝেও দেশে অব্যাহত রয়েছে ক্রিপ্টো ব্যবহার। প্রতিনিয়ত আরও বেশী সংখ্যক ভারতীয় ক্রিপ্টোর প্রতি আগ্রহী হচ্ছে। সম্প্রতি, বেশ কিছু বলিউড তারকাকেও ক্রিপ্টো-ট্রেডিং প্রচারে দেখা গিয়েছে। অফিশিয়াল তথ্য অনুযায়ী, গতবছরের তুলনায় ভারতে ক্রিপ্টো মার্কেট ৬৪১% বৃদ্ধি পেয়েছে। Chainalysis-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, গ্লোবাল ক্রিপ্টো অ্যাডাপশন ইনডেস্কে (Global Crypto Adaption Index) বর্তমানে ভারতের স্থান দ্বিতীয়।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।