Homeমোবাইলদাম শুরু ১০ হাজার টাকা থেকে, সবচেয়ে স্টাইলিস ৫টি 5G মোবাইল ফোন দেখে নিন

দাম শুরু ১০ হাজার টাকা থেকে, সবচেয়ে স্টাইলিস ৫টি 5G মোবাইল ফোন দেখে নিন

রকেটের' গতির নেট সার্ভিসের স্বাদ পেতে চাইলে এখনই কিনে নিন এই ৫ টি দুর্দান্ত স্মার্টফোন

গত মাসের গোড়ার দিকে ভারতে চালু হয়ে গিয়েছে 5G সার্ভিস। ইতিমধ্যেই দেশের বেশ কয়েকটি শহরের বাসিন্দাদেরকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই দুরন্ত গতির নেট পরিষেবা ব্যবহারের সুযোগ দিয়েছে Reliance Jio এবং Bharti Airtel। সংস্থা দুটির দাবি অনুযায়ী, 4G-র চাইতে ২০ গুণ দ্রুত স্পিড দেবে 5G। ফলে খুব স্বাভাবিকভাবেই এখন অনেকেই 5G স্মার্টফোন কেনার প্রতি চরম আগ্রহ দেখা দিয়েছে, যার জেরে বর্তমানে মার্কেটে পঞ্চম প্রজন্মের কানেক্টিভিটিযুক্ত হ্যান্ডসেটের চাহিদাও প্রচুর পরিমাণে বেড়েছে। উল্লেখ্য যে, এই মুহূর্তে ভারতের বাজারে একাধিক প্রখ্যাত কোম্পানির বিভিন্ন ধরনের 5G ফোন রয়েছে। কিন্তু সবথেকে বেশি খুশির খবর হল, এই সকল স্মার্টফোনগুলির মধ্যে বেশ কয়েকটি অত্যন্ত সাশ্রয়ী মূল্যে মার্কেটে উপলব্ধ। এই প্রতিবেদনে আজ আমরা আপনাদেরকে এমনই ৫ টি দুর্দান্ত 5G ফোনের কথা জানাতে চলেছি। হালফিলে পকেটের উপর বিশেষ চাপ না দিয়ে ঝড়ের গতির নেট সার্ভিস ব্যবহারের মজা উপভোগ করতে চাইলে ক্রেতারা নির্দ্বিধায় এই স্মার্টফোনগুলি কেনার কথা ভেবে দেখতে পারেন।

‘রকেটের’ গতির নেট সার্ভিসের স্বাদ পেতে চাইলে এখনই কিনে নিন এই ৫ টি দুর্দান্ত স্মার্টফোন

Samsung Galaxy M13 5G

স্যামসাংয়ের এই ফোনটি ১৩,৯৯৯ টাকায় কেনা যাবে। অ্যান্ড্রয়েড ১২ (Android 12) ভিত্তিক ওয়ান ইউআই ৪ (One UI 4) দ্বারা চালিত এই ডিভাইসটিতে রয়েছে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি+ ডিসপ্লে যার রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ, মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৭০০ (MediaTek Dimensity 700) প্রসেসর, ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ। এছাড়া, ফোনটিতে ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ বিদ্যমান। এর মধ্যে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর। আবার, সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য হ্যান্ডসেটটির সামনে ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১৩ ৫জি-তে মিলবে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, যা ১৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।  

Poco M4 Pro 5G

পোকো এম৪ প্রো ৫জি ফোনটি কিনতে হলে খরচ পড়বে ১২,৯৯৯ টাকা। পোকোর এই ডিভাইসে রয়েছে ৬.৬ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ডট নচ ডিসপ্লে, যার রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ। ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ (Android 11) ভিত্তিক এমআইইউআই ১২.৫ (MIUI 12.5)-এ কাজ করে। মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৮১০ (MediaTek Dimensity 810) প্রসেসর দ্বারা চালিত এই স্মার্টফোনে ৪ জিবি পর্যন্ত এলপিডিডিআর৪এক্স (LPDDR4X) র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ বিদ্যমান। ক্যামেরার কথা বললে, পোকো এম৪ প্রো ৫জি-তে ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ উপস্থিত, যার মধ্যে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি লেন্স এবং ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স। এছাড়া, সেলফির জন্য সামনে আছে ১৬ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা সেন্সর। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য পোকোর এই ফোনটিতে রয়েছে ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্টযুক্ত ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি।

iQOO Z6 5G

আইকোর এই স্মার্টফোনটির ৪ জিবি র‌্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ মডেলটি কিনতে হলে ক্রেতাদের ১৫,৪৯৯ টাকা খসাতে হবে। স্ন্যাপড্রাগন ৬৯৫ (Snapdragon 695) প্রসেসর দ্বারা চালিত এই ডিভাইসটিতে রয়েছে ৬.৫৮ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে যার রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ, এবং ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্টযুক্ত ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। এছাড়া, ফোনটিতে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বিদ্যমান, যার মধ্যে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি লেন্স, ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো এবং ২ মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর।

Redmi Note 11 Pro Plus 5G

রেডমি নোট ১১ প্রো প্লাস ৫জি-তে আছে ৬.৬৭ ইঞ্চি সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে, যা ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট অফার করে। ফাস্ট পারফরম্যান্সের জন্য ফোনটিতে স্ন্যাপড্রাগন ৬৯৫ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। হ্যান্ডসেটটিতে ৮ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম এবং ২৫৬ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজের সুবিধা পাওয়া যায়। রেডমির এই ফোনটিতে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে, যা ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি লেন্স, ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর সহ আসে। তদুপরি, সেলফির জন্য হ্যান্ডসেটটিতে মিলবে ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য রেডমি নোট ১১ প্রো প্লাস ৫জি-তে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে, যা ৬৭ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে। ফোনটির বেস ভ্যারিয়েন্টটি কিনতে হলে ক্রেতাদের ২০,৯৯৯ টাকা ব্যয় করতে হবে।

Lava Blaze 5G

এটি ভারতের সর্বনিম্ন দামের ৫জি ফোন। আজ, ৩ নভেম্বর থেকে এর বিক্রি শুরু হবে। লাভা ব্লেজ ৫জি-এর দাম ১০,০০০ টাকারও কম হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে। এই ডিভাইসটিতে আছে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি+ আইপিএস ডিসপ্লে, যার রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ। সিকিউরিটির জন্য ফোনটিতে সাইড-মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের পাশাপাশি ফেস আনলকের সুবিধাও পাওয়া যাবে। মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৭০০ প্রসেসর দ্বারা চালিত লাভা ব্লেজ ৫জি-তে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি বিদ্যমান। এছাড়া, হ্যান্ডসেটটিতে ৫০ মেগাপিক্সেল + ২ মেগাপিক্সেল + ২ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। তদুপরি, সেলফির জন্য ডিভাইসটির সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা।

আরও পড়ুন