Flipkart Offer: ২০,০০০ টাকারও কমে মিলছে iPhone, এখনই কাজে লাগান সোনায় সোহাগা অফার

Flipkart Offer iPhone under rs 20000

প্রিমিয়াম স্মার্টফোন হিসেবে Apple iPhone সবসময়ই এগিয়ে থাকে। শুধু ফিচার বা পারফরম্যান্স দেখে নয়, বরঞ্চ হাজার হাজার টাকা (বলা ভালো লাখ টাকা পর্যন্ত) ব্যয় করে অনেকে এই হ্যান্ডসেট কেনেন স্টাইল সেগমেন্ট হিসেবেও; এদিকে অনেকেই আবার শখ থাকলেও পর্যাপ্ত বাজেটের অভাবে iPhone পকেটস্থ করে উঠতে পারেননা। যদিও সাম্প্রতিক বছরগুলিতে Amazon, Flipkart, Croma ইত্যাদি অনলাইন শপিং প্ল্যাটফর্ম iPhone-এর ওপর এমন কিছু সুবিধাজনক অফার দিচ্ছে, যাতে করে এগুলি ধরাছোঁয়ার মধ্যে আসছে (পড়ুন সাধারণ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের দামে কেনা যাচ্ছে)। সেক্ষেত্রে এই মুহূর্তে যদি কেউ একটি নতুন iPhone কিনতে চান, তাহলে তাদের ইচ্ছেপূরণের চাবিকাঠি হতে পারে Flipkart-এর এমনই একটি অফার। আসলে সম্প্রতি ই-কমার্স জায়ান্ট সংস্থাটি শক্তিশালী ক্যামেরা এবং প্রসেসর বিশিষ্ট iPhone 11 মডেলের ওপর এমন বাম্পার অফার দিচ্ছে, যার ফলে এটি ২০,০০০ টাকারও কমে কেনা যাবে। মানে, এখন চাইলেই একটি মিড রেঞ্জ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের দামে কেনা যাবে প্রিমিয়াম iPhone। আসুন Flipkart-এর এই অফার সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

২০,০০০ টাকার কমে iPhone 11 কেনার সুযোগ দিচ্ছে Flipkart

ভারতের বাজারে আইফোন ১১ মডেলের বেস ভ্যারিয়েন্টের (৬৪ জিবি স্টোরেজ) দাম এমনিতে ৪৩,৯০০ টাকা। তবে ফ্লিপকার্ট এর দামের ওপর ৮% ছাড় দিচ্ছে, যে কারণে আইফোনটি এখন ৩৯,৯৯৯ টাকা দিয়ে কেনা যাবে। তবে এক্ষেত্রে রয়েছে আরেকটি চমকপ্রদ স্কিম – কেউ যদি পুরনো স্মার্টফোন এক্সচেঞ্জ করে ফ্লিপকার্ট থেকে আইফোন ১১ কেনেন, তাহলে তিনি আরও ২৩,০০০ টাকা পর্যন্ত ছাড় পেতে পারেন (শর্তাবলী প্রযোজ্য)। সেক্ষেত্রে সমস্ত অফার কাজে লাগানো গেলে আইফোনটি কেনার জন্য ক্রেতাকে ১৬,৯৯৯ টাকা খরচ করতে হবে।

এখানেই শেষ নয়! ফ্লিপকার্ট বর্তমানে আইফোন ১১-র ওপর কিছু ব্যাঙ্কিং অফারও দিচ্ছে। সেক্ষেত্রে কেউ ফ্লিপকার্ট অ্যাক্সিস ব্যাঙ্কের কার্ড ব্যবহার করে ফোনটি কিনলে ৫% ক্যাশব্যাক পাবেন; অন্যদিকে ইউপিআই ট্রানজাকশন করলে মিলবে ২৫০ টাকা ছাড়। উল্লেখ্য, আইফোন ১১ কেনার ক্ষেত্রে নো কস্ট ইএমআই অপশনেরও ফায়দা তোলা যাবে।

iPhone 11-এর স্পেসিফিকেশন

অ্যাপল আইফোন ১১ হ্যান্ডসেটে রয়েছে ৬.১ ইঞ্চি লিকুইড রেটিনা এইচডি ডিসপ্লে। এটি সংস্থার নিজস্ব এ১৩ (A13) বায়োনিক প্রসেসরের সাহায্যে চালিত হয়। অন্যদিকে পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য এতে দেওয়া হয়েছে ৩,১১০ এমএএইচ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। এছাড়া ফটোগ্রাফির জন্য এতে ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ এবং ১২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেখা যাবে। তবে এতে ৫জি (5G) কানেক্টিভিটি উপভোগ করা যাবেনা।