মোবাইল

মুড়ি মুড়কির মতো বিক্রি হচ্ছে iPhone 14 Pro, চাহিদা মেটাতে হিমসিম খাচ্ছে Apple

Apple-এর iPhone-এর জনপ্রিয়তার কথা আমাদের কারোরই অজানা নয়। বেশ চড়া দামের ডিভাইস হওয়া সত্ত্বেও যত দিন যাচ্ছে, গোটা বিশ্বজুড়ে প্রিমিয়াম স্মার্টফোনগুলির চাহিদা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে হালফিলে এই চাহিদা এতটাই তুঙ্গে পৌঁছেছে যে, এখন বিশ্বের অধিকাংশ জায়গাতেই সদ্য (মাসখানেক আগে) লঞ্চ হওয়া iPhone 14 Pro হয়ে গিয়েছে আউট অফ স্টক! আজ্ঞে হ্যাঁ, শুনে কিঞ্চিৎ অবিশ্বাস্য বলে মনে হলেও সম্প্রতি গোটা দুনিয়ায় এরকম ঘটনাই প্রত্যক্ষ করা গিয়েছে। অফিসিয়াল স্টোর থেকে শুরু করে বিভিন্ন ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম – সব জায়গাতেই অমিল হয়ে গিয়েছে এই হ্যান্ডসেট। বিশেষজ্ঞদের মতে, iPhone 14 Pro মডেলের চাহিদা মার্কিনি প্রযুক্তি সংস্থাটির হ্যান্ডসেট উৎপাদনের সর্বাধিক ক্ষমতাকে ছাড়িয়ে গিয়েছে বলেই ইদানীংকালে গোটা বিশ্বজুড়ে এরকম ঘটনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

iPhone 14 Pro হাতে পেতে হলে অতিরিক্ত ৫ থেকে ২৫ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ক্রেতাদের

অ্যাপল ইনসাইডার (Apple Insider)-এর এক সাম্প্রতিক রিপোর্ট অনুযায়ী, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আইফোন ১৪ প্রো এবং আইফোন ১৪ প্রো ম্যাক্স (iPhone 14 Pro Max) মডেলগুলি হাতে পেতে হলে ক্রেতাদের আরও ২৫ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে। উল্লেখ্য যে, ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্ক ইউবিএস (UBS) কর্তৃক গৃহীত ৩০ টি দেশে আইফোনের প্রাপ্যতা সম্পর্কিত সাম্প্রতিক তথ্যও রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। ইউবিএস ট্র্যাকারের মতে, আইফোন ১৪ প্রো এবং আইফোন ১৪ প্রো ম্যাক্স মডেলগুলি হাতে পেতে হলে কমবেশি প্রতিটি দেশের ক্রেতাদেরকেই ৫ থেকে ২৫ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও অমিল iPhone 14 Pro

উল্লেখ্য যে, গোটা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো ভারতেও এই একই ছবি লক্ষ্য করা গিয়েছে। সম্প্রতি এদেশের বাজারে আইফোন ১৪ প্রো মডেলটি পা রাখলেও আপামর ভারতবাসীর হাতের মুঠোয় আসছে না এই স্মার্টফোন। সাম্প্রতিক এক রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে যে, হালফিলে দিল্লি এনসিআরে আইফোন ১৪ প্রো ফোনটি আউট অফ স্টক হয়ে যাওয়ায় সেখানকার বাসিন্দারা এখন আর এই হ্যান্ডসেটটিকে পকেটস্থ করার সুযোগ পাচ্ছেন না। সেইসাথে টুইটার (Twitter)-এ বহু ব্যবহারকারী অভিযোগ করেছেন যে, এই সুযোগের ফায়দা তুলে অনেক প্রাইভেট সেলার দিল্লিতে এই ফোনটি ব্ল্যাকে বিক্রি করছে। আর জল এতটাই দূর গড়িয়েছে যে, অবশেষে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে মাঠে নেমেছেন ইলেক্ট্রনিক্স ও আইটি প্রতিমন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর (Rajeev Chandrasekhar)। তিনি জানিয়েছেন যে, মূলত চাহিদা বাড়ায় সাপ্লাইয়ে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। উল্লেখ্য যে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ইতিমধ্যেই বিষয়টি সম্পর্কে অ্যাপলের সাথে কথা বলেছেন, এবং সংস্থার তরফেও আশ্বাস দেওয়া হয়েছে যে, চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদনের পরিমাণ আরও খানিকটা বাড়ানো হলেই এই সমস্যার সমাধান হবে।

সমস্যার সমাধান কীভাবে হবে, তা একমাত্র সময়ই বলতে পারবে

এখন প্রশ্ন হল, চাইলেই কি উৎপাদন বাড়ানো খুব সহজে সম্ভব হবে? আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি, তিনটি সাপ্লায়ারের সাথে হাতে হাত মিলিয়ে Apple এদেশে iPhone 13, iPhone 12 এবং iPhone 11 তৈরি করে। এবার সম্প্রতি সেই তালিকায় iPhone 14-ও যুক্ত হয়েছে। ব্লুমবার্গ নিউজ (Bloomberg News)-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ইতিমধ্যেই Apple-এর তাইওয়ানিজ কন্ট্র্যাক্ট মানুফ্যাকচারার পেগাট্রন কর্প (Pegatron Corp) ভারতে iPhone 14 অ্যাসেম্বল করা শুরু করেছে; যদিও Pro মডেলগুলির ক্ষেত্রে সমস্ত পার্টস আমদানি করা হয়। সেইসাথে অন্য আর-একটি রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে যে, ওয়াশিংটন ও বেজিংয়ের মধ্যে চলমান বাণিজ্য যুদ্ধের কারণে চীন থেকে উৎপাদন কেন্দ্রগুলিকে অন্য দেশে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে Apple। তবে এই প্রসঙ্গে কাউন্টারপয়েন্ট (Counterpoint)-এর এক সিনিয়র অ্যানালিস্ট ইভান লাম (Ivan Lam) জানিয়েছেন যে, চাইলেই কিন্তু সংস্থাটি খুব সহজে এই কাজ করতে পারবে না; কারণ iPhone-এর বেশিরভাগ কম্পোনেন্ট চীনেই তৈরি হয়। এখন সবমিলিয়ে, ক্রেতাদের iPhone 14 Pro-এর চাহিদা পূরণ করতে কার্পেটিনো ভিত্তিক টেক জায়েন্টটি আগামী দিনে কী পদক্ষেপ নেয়, এবার সেটাই দেখার…

Back to top button