Samsung এর হাত ধরে আরও সুরক্ষিত হচ্ছে স্মার্টফোন, আসছে নতুন ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং প্রযুক্তি

বর্তমানে Samsung একটি নতুন প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে, যা স্মার্টফোনের ফিঙ্গারপ্রিন্ট লগ-ইনকে এই মুহূর্তে ডিভাইসে ব্যবহৃত ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং প্রযুক্তির চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ করে তুলবে

Samsung Make new Fingerprint Login Sensor

স্মার্টফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের (Fingerprint Sensor) আগমন বেশ কয়েক বছর আগেই ঘটেছে। যদিও আগে অপেক্ষাকৃত উচ্চমূল্যের ডিভাইসে এটির দেখা মিলতো, তবে ইদানীংকালে অধিকাংশ হ্যান্ডসেটেই এই সুরক্ষা প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। ইউজারদের ফোনে মজুত থাকা যাবতীয় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যাতে আগাগোড়া সুরক্ষিত থাকে, তার জন্য এখন অনেক বাজেট রেঞ্জের স্মার্টফোনেও ব্যবহৃত হচ্ছে এই টেকনোলজি। আর ব্যবহারকারীদের সুবিধার্থে ফোনে আরও উন্নত মানের প্রযুক্তি প্রয়োগ করার জন্য নির্মাতা সংস্থাগুলি অহরহ পরিশ্রম করে চলেছে। সেক্ষেত্রে সম্প্রতি পাওয়া খবর অনুযায়ী, বর্তমানে Samsung একটি নতুন প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে, যা স্মার্টফোনের ফিঙ্গারপ্রিন্ট লগ-ইনকে এই মুহূর্তে ডিভাইসে ব্যবহৃত ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং প্রযুক্তির চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ করে তুলবে। কিন্তু ঠিক কীভাবে ব্যবহারকারীরা পাবেন এই অতিরিক্ত স্তরের সুরক্ষা? আসুন জেনে নিই।

এবার এক নয়, বরং একাধিক আঙুলের ছাপ ব্যবহার করে আনলক করা যাবে স্মার্টফোন

আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি, বিদ্যমান ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং প্রযুক্তিতে মূলত একটি ছোটো স্ক্যানার ব্যবহৃত হয়, যার ফলে একবারে কেবলমাত্র একটি আঙুলের ছাপ স্ক্যান হয়। তবে স্যামমোবাইল (SamMobile)-এর একটি প্রতিবেদন অনুসারে, স্যামসাং হালফিলে একটি নতুন প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে, যার সুবাদে পুরো ওএলইডি (OLED) ডিসপ্লেটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারে পরিণত হবে। এর ফলে ব্যবহারকারীরা একযোগে একাধিক আঙুলের ছাপ ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই এর দৌলতে ইউজারদের সুরক্ষার দিকটি যে আগামী দিনে আরও পাকাপোক্ত হতে চলেছে, সেকথা আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখে না।

Samsung-এর এই নয়া উদ্যোগ ইউজারদেরকে ২.৫ বিলিয়ন গুণ বেশি নিরাপদ করে তুলবে

স্যামসাংয়ের মতে, আসন্ন টেকনোলজিটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট লগ-ইনকে এই মুহূর্তে ব্যবহৃত প্রযুক্তির চেয়ে ২.৫ বিলিয়ন গুণ বেশি নিরাপদ করে তুলবে। জানা গিয়েছে যে, দক্ষিণ কোরিয়ান টেক জায়েন্টটি আগামী কয়েক বছরের মধ্যে তাদের স্মার্টফোনে এই প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু করতে পারে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, স্যামসাং ডিসপ্লে (Samsung Display) এই বছরের শুরুতে ঘোষণা করেছিল যে, তারা পরবর্তী প্রজন্মের ডিসপ্লেগুলির জন্য ‘ওএলইডি ২.০’ (OLED 2.0) নামক একটি অল-ইন-ওয়ান ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং সলিউশন তৈরি করছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, স্যামসাং ওএলইডি ২.০ ডিসপ্লেতে একটি উন্নত ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং প্রযুক্তি অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে, যা স্মার্টফোনগুলিকে একবারে একাধিক আঙুলের ছাপ স্ক্যান করতে সক্ষম করবে।

একসাথে একাধিক আঙুলের ছাপ স্ক্যান করার জন্য ব্যবহৃত হবে OPD টেকনোলজি

প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি, একবারে একাধিক আঙুলের ছাপ স্ক্যান করতে পারার জন্য স্যামসাংয়ের ওএলইডি ২.০-এর অভ্যন্তরে ওপিডি (OPD অর্থাৎ অর্গ্যানিক ফটো ডায়োড) প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে, যা আইএসওআরজি (ISORG) নামক একটি ফরাসি সংস্থা কর্তৃক বিকশিত। এই প্রযুক্তিতে একটি খুব পাতলা কম্পোনেন্ট সেন্সর ব্যবহৃত হবে, যেটিকে ওএলইডি ডিসপ্লেতে ল্যামিনেট করা যেতে পারে, এবং এর সুবাদেই স্ক্রিনটি মাল্টি-ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিংয়ে সক্ষম হবে। এই প্রসঙ্গে সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আইএসওআরজি-র সিইও ডিয়েটার মে (Dieter May) জানিয়েছেন যে স্যামসাং, কোম্পানির প্রযুক্তির ইন-সেল ভার্সন ব্যবহার করার পরিকল্পনা করছে। তাই ওএলইডি ডিসপ্লের মধ্যে সেন্সর এবং কলিমেটর উভয়ই প্রয়োগ করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে, যা ইউজারদের সুরক্ষার জন্য খুবই ফলদায়ক।

আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই মার্কেটে এই প্রযুক্তির আগমন ঘটবে

সাক্ষাৎকারে ISORG-র সিইও আরও জানিয়েছেন যে, একটিমাত্র আঙুলের ছাপ থাকলে ইউজারদের সুরক্ষা অনেকক্ষেত্রেই বড়োসড়ো ঝুঁকির সম্মুখীন হতে পারে। তবে OPD প্রযুক্তির সাহায্যে ব্যবহারকারীরা একসাথে চারটি আঙুলের ছাপ ব্যবহার করতে পারবেন। ফলে সিঙ্গেল ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারের তুলনায় এই টেকনোলজি ইউজারদেরকে ২,৫০০ মিলিয়ন গুণ অতিরিক্ত নিরাপত্তা প্রদান করতে সক্ষম। এখন প্রশ্ন হল, কবে মার্কেটে এই চমকপ্রদ প্রযুক্তির আগমন ঘটবে? এর জবাবে ISORG-এর সিইও বলেছেন যে, ২০২৩ সালে OPD প্রযুক্তির সার্বিক বিকাশের জন্য সংস্থাটি জোরকদমে কাজ করা শুরু করবে, এবং ২০২৫ সালের মধ্যে Samsung-এর স্মার্টফোনগুলিতে এটির দেখা মিলবে।