চীনের পর এবার Vivo X90 সিরিজের স্বাদ পাবে বিশ্ববাসী, লঞ্চের আগেই দাম ফাঁস

Vivo X90 Series Global Launch Date

ভিভো (Vivo) গত নভেম্বর মাসে তাদের লেটেস্ট X90 সিরিজের হ্যান্ডসেটগুলি চীনের বাজারে লঞ্চ করেছে। এই সিরিজের অধীনে Vivo X90 এবং Vivo X90 Pro এবং Vivo X90 Pro+- এই তিনটি মডেল দেশীয় বাজারে আত্মপ্রকাশ করেছে। বর্তমানে কোম্পানিটি গ্লোবাল মার্কেটে MediaTek Dimensity 9200 চিপসেট দ্বারা চালিত স্ট্যান্ডার্ড Vivo X90 এবং X90 Pro মডেল দুটি লঞ্চ করার পরিকল্পনা করছে। তবে শোনা যাচ্ছে যে, বিশ্বের প্রথম Qualcomm Snapdragon 8 Gen 2-চালিত ফোন হিসাবে চীনা মার্কেটে আত্মপ্রকাশ করা Vivo X90 Pro+ মডেলটি বিশ্ব বাজারে মুক্তি পাবে না। আর এখন, একটি নতুন প্রতিবেদনে Vivo X90 সিরিজের বিশ্বব্যাপী লঞ্চের তারিখ প্রকাশ করা হয়েছে। আসুন এসম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক।

Vivo X90 সিরিজ বিশ্ববাজারে আসছে আগামী মাসেই

প্রাইসবাবার রিপোর্ট অনুসারে, ভিভো এক্স৯০ লাইনআপটি বিশ্ববাজারে আগামী ২৭ জানুয়ারী থেকে ২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রি-অর্ডারের জন্য উপলব্ধ হবে। ফাঁস হওয়া পোস্টারটি থেকে জানা গেছে যে, ভিভোর এই সিরিজটি আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি গ্লোবাল মার্কেটে উন্মোচিত হবে। আবার, অন্য একটি প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়েছে যে, ভিভো এক্স৯০ এবং এক্স৯০ প্রো মালয়েশিয়ায় শুধুমাত্র ১২ জিবি র‍্যাম + ২৫৬ জিবি স্টোরেজ কনফিগারেশনে পাওয়া যাবে৷ সেদেশে, এক্স৯০ অ্যাস্টেরয়েড ব্ল্যাক এবং ব্রীজ ব্লু-এর মতো কালারে আসতে পারে৷ অন্যদিকে, প্রো মডেলটি শুধুমাত্র লেজেন্ড ব্ল্যাক কালারেই পাওয়া যেতে পারে। এছাড়াও, লিকটি থেকে জানা গেছে যে, এক্স৯০-এর দাম হবে ৩,৬৯৯ মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত (প্রায় ৬৯,৩০০ টাকা), যেখানে এক্স৯০ প্রো-এর দাম হবে ৫,২৯৯ মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত (প্রায় ৯৯,২৫০ টাকা)।

Vivo X90, X90 Pro-এর স্পেসিফিকেশন

ভিভো এক্স৯০ এবং এক্স ৯০ প্রো-তে একটি কেন্দ্রীভূত পাঞ্চ-হোল সহ ৬.৭৮ ইঞ্চির ফ্ল্যাট অ্যামোলেড (AMOLED) ডিসপ্লে রয়েছে, যা ফুল-এইচডি+ রেজোলিউশন, ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট এবং ১৩০০ নিট পিক ব্রাইটনেস অফার করবে। ডিসপ্লেটিতে নিরাপত্তায় জন্য একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারও এম্বেড করা রয়েছে। এক্স৯০ সিরিজটি অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১৩ (FunTouch OS 13) ইউজার ইন্টারফেসে রান করে। উভয় মডেলই মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৯২০০ প্রসেসর দ্বারা চালিত, যার সাথে এলপিডিডিআর৫ র‍্যাম এবং ইউএফএস ৪.০ স্টোরেজ যুক্ত রয়েছে।

ফটোগ্রাফির জন্য, স্ট্যান্ডার্ড Vivo X90-এর ব্যাক প্যানেলে ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা, একটি ১২ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং একটি ১২ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো সেন্সর যুক্ত ট্রিপল ক্যামেরা ইউনিট অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। অন্যদিকে, Vivo X90 Pro-এর ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপের মধ্যে ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর, একটি ১৩ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং ৫০ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো সেন্সর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। আর সেলফির জন্য, দুটি ফোনের সামনেই একটি ৩২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা বর্তমান।

পাওয়ার ব্যাকআপের ক্ষেত্রে, রেগুলার X90 মডেলটিতে ১২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ ৪,৮১০ এমএএইচ ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। আর X90 Pro মডেলটি ৪,৮৭০ এমএএইচ ব্যাটারির সাথে এসেছে, যা ১২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং এবং ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে।