Xiaomi 13 Pro ভারতে লঞ্চ হচ্ছে খুব তাড়াতাড়িই, কেমন ফিচার থাকবে দেখে নিন

Xiaomi 13 Pro Appears BIS

শাওমি (Xiaomi) গত ডিসেম্বরে চীনে তাদের লেটেস্ট ফ্ল্যাগশিপ Xiaomi 13 সিরিজটি উন্মোচন করেছে। যদিও, এই লাইনআপে অন্তর্ভুক্ত Xiaomi 13 এবং 13 Pro হ্যান্ডসেট দুটি চীনের বাইরে বাজারে এখনও পা রাখেনি। তবে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০২৩ (MWC 2023) এর মঞ্চ থেকে Xiaomi 13 সিরিজের গ্লোবাল ভ্যারিয়েন্ট আত্মপ্রকাশ করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তার আগে এখন Xiaomi 13 এবং 13 Pro-কে থাইল্যান্ডের এনবিটিসি (NBTC), ভারতের বিআইএস (BIS)-এর মতো গুরুত্বপূর্ণ সার্টিফিকেশন সাইটে স্পট করা গেছে। এই সার্টিফিকেশনগুলি আসন্ন ডিভাইসগুলির বিষয়ে কি কি তথ্য প্রকাশ করেছে, আসুন জেনে নেওয়া যাক।

Xiaomi 13 সিরিজের স্মার্টফোনগুলিকে দেখা গেল একাধিক সার্টিফিকেশন সাইটে

সুপরিচিত টিপস্টার মুকুল শর্মা জানিয়েছেন যে, 2211133G মডেল নম্বর সহ শাওমি ১৩ এবং 2210132G মডেল নম্বর সহ শাওমি ১৩ প্রো হ্যান্ডসেট দুটি থাইল্যান্ডের ন্যাশনাল ব্রডকাস্টিং অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন কমিশন (NBTC) কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত হয়েছে৷ এর পাশাপাশি, শাওমি ১৩ প্রো মডেলটি ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস (BIS)-এর সাইটেও তালিকাভুক্ত হয়েছে। জানিয়ে রাখি, গত বছর শাওমি ভারতে স্ট্যান্ডার্ড শাওমি ১২ লঞ্চ করেনি। এদেশের বাজারে শুধুমাত্র শাওমি ১২ প্রো মডেলটি উপলব্ধ। তাই, মনে করা হচ্ছে যে, এবারও ভারতে রেগুলার শাওমি ১৩ লঞ্চ হবে না, শুধুমাত্র তার প্রো সংস্করণটি আত্মপ্রকাশ করতে পারে।

প্রসঙ্গত, উল্লেখিত সার্টিফিকেশন তালিকাগুলির কোনোটিই শাওমি ১৩ এবং ১৩ প্রো সম্পর্কে কোনও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশ করেনি। তবে, গ্লোবাল সংস্করণগুলি সম্ভবত তাদের চীনা ভ্যারিয়েন্টগুলির মতো একই স্পেসিফিকেশন অফার করবে। গত মাসে চীনে লঞ্চ হওয়া রেগুলার মডেলটিতে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট সহ ৬.৩৬ ইঞ্চির ফুল-এইচডি+ অ্যামোলেড (AMOLED) প্যানেল রয়েছে, যেখানে প্রো মডেলটিতে ৬.৭৩ ইঞ্চির কোয়াড-কোর+ অ্যামোলেড কার্ভড-এজ ডিসপ্লে রয়েছে, যা ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট অফার করে৷ উভয় ফোনেই স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেন ২ প্রসেসর, এলপিডিডিআর৫ র‍্যাম এবং ইউএফএস ৪.০ স্টোরেজ পাওয়া যায়। দুটি ডিভাইসই অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক এমআইইউআই ১৪ (MIUI 14) কাস্টম স্কিনে রান করে।

ফটোগ্রাফির জন্য, Xiaomi 13 সিরিজের হ্যান্ডসেটগুলিতে একটি ৩২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। স্ট্যান্ডার্ড মডেলটির রিয়ার প্যানেলে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন (OIS) সহ ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর, ১২ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং ১০ মেগাপিক্সেলের টেলিফোটো সেন্সর সহ ট্রিপল ক্যামেরা সিস্টেম রয়েছে।

অন্যদিকে, Xiaomi 13 Pro-এর ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন (OIS) সাপোর্ট সহ ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা সেন্সর, ৫০ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং ৫০ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো লেন্স অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য, Xiaomi 13-এ ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি রয়েছে, আর প্রো মডেলে ৪,৮২০ এমএএইচ ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে৷ এই ফোনগুলি যথাক্রমে ৬৭ ওয়াট এবং ১২০ ওয়াট ওয়্যার্ড চার্জিং সাপোর্ট করে। প্রো মডেলে ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তিও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।