Password: মুহূর্তে হ্যাক হবে আপনার ডিভাইস, এই জনপ্রিয় পাসওয়ার্ডগুলি কখনোই ব্যবহার করবেন না

৫০ টি দেশের মধ্যে ৪৩ টি দেশেই এক নম্বর পাসওয়ার্ডের স্থানটি দখল করে রয়েছে '123456'

most-popular-password-of-2021-but-why-you-should-never-use-it

বর্তমান ডিজিটাল যুগে উত্তরোত্তর বৃদ্ধিপ্রাপ্ত সাইবার জালিয়াতির হাত থেকে নিরাপদ ও সুরক্ষিত থাকার জন্য এক অন্যতম হাতিয়ার হল পাসওয়ার্ড। আমরা সকলেই ফোন, ইমেইল এবং সোশ্যাল মিডিয়ার পাশাপাশি ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিংয়ের জন্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকি। হ্যাকাররা যাতে সহজে কারোর ব্যক্তিগত ডিটেলসের নাগাল না পেতে পারে, সেইজন্য বিশেষজ্ঞরা সবসময় এমন কোনো পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার পরামর্শ দেন, যা সহজে অনুমান করা যাবে না। কিন্তু গোটা বিশ্বে এই বিপুল সংখ্যক জনগণের কোটি কোটি পাসওয়ার্ডের মধ্যে কোনো না কোনো পাসওয়ার্ড একে অপরের সাথে মিলেই যায়। অন্তত পাসওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট সার্ভিস নর্ডপাস (NordPass) এর রিপোর্ট সেই কথাই বলছে। সম্প্রতি তারা বিশ্বে ইউজারদের দ্বারা সর্বাধিক ব্যবহৃত ২০০টি পাসওয়ার্ডের তালিকা প্রকাশ করেছে।

সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড (Most use password)

NordPass-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ‘123456’ এখনও পর্যন্ত বিশ্বে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড। সবচেয়ে আশ্চর্যজনক বিষয়টি হল যে, ‘123456’ পাসওয়ার্ডটি ২০২০ সালে গোটা বিশ্বে ২,৫৪৩,২৮৫ বার ব্যবহার করা হয়েছিল, যা ২০২১ সালে বেড়ে ১০৩,১৭০,৫৫২ বার হয়েছে। এই সহজ পাসওয়ার্ড দেওয়ার পিছনেও কিন্তু একটি কারণ আছে। অনেক ইউজারই মনে করেন যে, হ্যাকাররা হয়তো ভাববে ব্যবহারকারীরা জোরালো পাসওয়ার্ড দিয়েছে; ইউজাররা যে সহজ পাসওয়ার্ড দিয়ে থাকতে পারে একথা হয়তো জালিয়াতদের মাথাতেই আসবে না।

এই প্রসঙ্গে NordPass-এর সিইও জোনাস কার্ক্লিস (Jonas Karklys) জানিয়েছেন, ”যথাযথ পাসওয়ার্ড দেওয়ার বিষয়ে এখনও বেশিরভাগ মানুষ সচেতন নন। বর্তমান ডিজিটাল অগ্রগতির যুগে এখন সব সার্ভিসই হয়ে গিয়েছে অনলাইন, তাই সেক্ষেত্রে শক্তিশালী তথা সহজে অনুমেয় নয় এমন কোনো পাসওয়ার্ড না দিলে ইউজাররা যে কোনো মুহূর্তে সাইবার হামলার শিকার হতে পারেন। তাই এই বিষয়ে সকলের সচেতন হওয়া একান্ত আবশ্যক।” গবেষণা সংস্থাটির মতে, ‘123456’ পাসওয়ার্ডটিকে এক সেকেন্ডেরও কম সময়ের মধ্যে ক্র্যাক করা যেতে পারে। এই পাসওয়ার্ড সংক্রান্ত অ্যানালিসিসের জন্য সংস্থাটি গোটা বিশ্বের ৫০ টি দেশের যাবতীয় পাসওয়ার্ড খতিয়ে দেখেছে, এবং জানা গেছে যে, ৫০ টি দেশের মধ্যে ৪৩ টি দেশেই এক নম্বর পাসওয়ার্ডের স্থানটি দখল করে রয়েছে ‘123456’।

তবে ভারতের পাসওয়ার্ড পরিসংখ্যান কিন্তু একটি মজাদার বিষয় সামনে এনেছে। সংস্থাটির সার্ভে অনুযায়ী জানা গেছে যে, ভারতে ‘password’ শব্দটিই হল সর্বাধিক ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড। এটি দেশের ১,৭১৪,৬৪৬ জন মানুষ ব্যবহার করেন। ‘password’-এর পর ভারতে সবচেয়ে প্রচলিত কয়েকটি পাসওয়ার্ড হল 12345, 123456, 12345678, 123456789, india123, 1234567890, 1234567 এবং qwerty। এছাড়া, ভারতীয় ইউজারদের ব্যবহৃত অন্যান্য কয়েকটি পাসওয়ার্ডের মধ্যে রয়েছে “iloveyou”, “krishna”, “sairam” এবং “omsairam”। সংস্থাটি জানিয়েছে, ভারতে ২০০ টির মধ্যে ৬২ টি পাসওয়ার্ড এক সেকেন্ডেরও কম সময়ে ক্র্যাক করা যেতে পারে।

যে কোনো দেশে ব্যবহৃত পাসওয়ার্ডগুলিকে কত সহজে হ্যাকাররা আন্দাজ করে ফেলতে পারে সেই সম্ভাবনাকে প্রত্যক্ষ করে সংস্থাটি বিভিন্ন দেশকে লো, অ্যাভারেজ এবং হাই – এই তিনটি ক্যাটাগরিভুক্ত করেছে। সেক্ষেত্রে দেখা গেছে যে, মধ্য ও উত্তর আমেরিকা, রাশিয়া এবং অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশগুলিকে হাই, বেশিরভাগ ইউরোপীয় দেশগুলিকে অ্যাভারেজ, এবং ভারতকে লো ক্যাটাগরির অধীনে রাখা হয়েছে। তাই পাঠকদের উদ্দেশ্যে বলছি, সাইবার জালিয়াতির হাত থেকে নিজেকে নিরাপদ ও সুরক্ষিত রাখতে সহজ পাসওয়ার্ড বদলে এখনই নিজের জন্য কোনো জটিল পাসওয়ার্ড তৈরি করে ফেলুন, যাতে হ্যাকাররা কোনোমতেই আপনার নাগাল না পেতে পারে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।