অবিশ্বাস্য দামে ভারতে লঞ্চ হল Moto E7 Plus, দশ হাজার টাকার কমে এত কিছু

moto-e7-plus-launched-in-india-with-5000-mah-battery-price-specifications-sale-date

কথা মত আজ ভারতে লঞ্চ হল Moto E7 Plus। এই ফোনটিকে কয়েক সপ্তাহ আগেই ব্রাজিলে লঞ্চ করা হয়েছিল। এই ফোনটি Flipkart এক্সক্লুসিভ হিসাবে ভারতে আনা হয়েছে। মোটো ই৭ প্লাস এর বিশেষ বিশেষ ফিচারের কথা বললে এতে পাবেন স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর, ৫০০০ এমএএইচ এর লং লাস্টিং ব্যাটারি, ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা ও ওয়াটারড্রপ নচ ডিসপ্লে। এছাড়াও Moto E7 Plus ফোনটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের সাথে লঞ্চ হয়েছে। আসুন এই ফোনের দাম ও স্পেসিফিকেশন জেনে নিই।

Moto E7 Plus দাম ও লভ্যতা

ভারতে মোটো ই৭ প্লাস এর দাম ৯,৪৯৯ টাকা। এই দাম ফোনটির ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের। ফোনটি মিস্টি ব্লু এবং টুইলাইট অরেঞ্জ কালারে পাওয়া যাবে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২ টা থেকে ফোনটি কেনা যাবে।

জানিয়ে রাখি ব্রাজিলে এই ফোনের ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের দাম ১৩৪৯.১০ বিএলআর, যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৮,৮০০ টাকা। অর্থাৎ ভারতে Moto E7 Plus প্রায় অর্ধেক দামে এসেছে।

Moto E7 Plus স্পেসিফিকেশন

ডিসপ্লে

মোটো ই৭ প্লাস ফোনে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস আইপিএস ম্যাক্স ভিশন ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এর পিক্সেল রেজুলেশন ১৬০০ x ৭২০ এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। আবার স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৮৭ শতাংশ। এর ডিসপ্লে ডিজাইন ওয়াটারড্রপ নচ।

প্রসেসর, র‌্যাম ও স্টোরেজ

এই ফোনে পাবেন ১.৮ গিগাহার্টজ অক্টা কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর। আবার গ্রাফিক্সের জন্য এড্রেনো ৬১০ জিপিইউ ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও আছে ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবে।

ক্যামেরা

মোটো ই৭ প্লাস ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরার সাথে এসেছে। এর প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/১.৭ অ্যাপারচার সহ ৪৮ মেগাপিক্সেল। আবার অন্য ক্যামেরাটি হল এফ/২.৪ অ্যাপারচার সহ ২ মেগাপিক্সেল। রিয়ার ক্যামেরার সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ উপলব্ধ। এই ক্যামেরা দিয়ে ৩০ এফপিএস এ ফুল এইচডি ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। ভিডিও কল ও সেলফির জন্য এতে এফ/২.২ অ্যাপারচার সহ ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

পিছনের ক্যামেরায় অটো স্মাইল ক্যাপচার, স্মার্ট কম্পোজিশন, নাইট ভিশন, হাই-রেজাম জুম, এইচডিআর, টাইমার, অ্যাক্টিভ ফটো, ম্যানুয়াল মোড, পোর্ট্রেট মোড, কাটআউট, স্পট কালার, প্যানোরামা, লাইভ ফিল্টার, ওয়াটারমার্ক, বেস্ট শট, গুগল লেন্স ইন্টিগ্রেশন, স্লো মোশন ভিডিও, টাইমলেস ভিডিও, হাইপারলেপস ভিডিও প্রভৃতি ফিচার আছে।

ব্যাটারি ও অন্যান্য

পাওয়ারের কথা বললে এই ফোনে পাবেন ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। ফোনটিতে ১০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। কোম্পানি দাবি করেছে এই ব্যাটারি দুদিন ব্যাকআপ দেবে। চার্জিংয়ের জন্য এতে আছে মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট। ফোনটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ও ৩.৫ মিমি হেডফোন জ্যাকের সাথে এসেছে। এই ফোনের ওজন ২০০ গ্রাম।