দাম শুরু ১৩ হাজার টাকা থেকে, আসছে Moto G10, Moto G30, Moto E7 Power

moto-g10-g30-e7-power-render-reveals-design-and-specificarions

লেনোভো মালিকানাধীন স্মার্টফোন কোম্পানি Motorola শীঘ্রই Moto G10, Moto G30, Moto G40 ও Moto E7 Power নামের চারটি ফোন লঞ্চ করতে পারে। এরমধ্যে Moto G40 এর কোডনেম হবে Motorola Ibiza। চলতি মাসেই এই ফোনটি ভারতে লঞ্চ হবে। সার্টিফিকেশন সাইট থেকে মোটো জি৪০ এর স্পেসিফিকেশন ও ডিজাইন আগেই জানা গিয়েছিল। এবার জনপ্রিয় টিপ্সটার Nils Ahrensmeier, বাকি তিনটি ফোন অর্থাৎ Moto G10, Moto G30, Moto E7 Power এর রেন্ডার ও স্পেসিফিকেশন সামনে এনেছেন।

টিপ্সটার জানিয়েছেন, Moto G10 ফোনটির কোডনেম হবে Motorola Capri এবং দাম হতে পারে ১৪৯.৯৯ ইউরো (প্রায় ১৩,১০০ টাকা)। আবার Motorola Capri Plus কোডনেমের সাথে আসবে Moto G30, যার মূল্য রাখা হতে পারে ১৭৯.৯৯ ইউরো (প্রায় ১৫,৬৯০ টাকা)। অন্যদিকে Moto E7 Power এর কোডনেম হবে ‘Malta Lite’।

Moto G10 এর স্পেসিফিকেশন (সম্ভাব্য)

মোটো জি১০ ফোনে থাকতে পারে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস (৭২০×১,৬০০ পিক্সেল) ওয়াটারড্রপ নচ ডিসপ্লে, এর রিফ্রেশ রেট হবে ৬০ হার্টজ। এই ফোনে স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর ব্যবহার করা হবে। সাথে থাকবে ৪ জিবি র‌্যাম ও ৬৪/১২৮ জিবি স্টোরেজ। এছাড়াও এই ফোনে থাকবে ৩.৫মিমি অডিও জ্যাক, ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট।

Moto G10

ফোনটিতে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের জন্য ডেডিকেটেড বাটন সহ আসবে। ফোনটির ব্যাটারি হবে ৪৮৫০ এমএএইচ (যা ৫০০০ এমএএইচ বলেই সাধারণত মার্কেটিং করা হয়ে থাকে) এবং ১০ ওয়াট চার্জিং সাপোর্ট করবে। ফোনের পেছনে কোয়াড ক্যামেরার দেখা মিলবে, যার প্রাইমারী সেন্সর হবে ৪৮ মেগাপিক্সেলের। এছাড়াও থাকবে ৮ মেগাপিক্সয়েল আলট্রা ওয়াইড সেন্সর ও দুটি ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ও ডেপ্থ সেন্সর। সেলফির জন্য এতে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা থাকতে পারে। ফোনটি ইরিডেসেন্ট পার্ল এবং অরোরা গ্রে কালারে পাওয়া যাবে।

Moto G30 এর স্পেসিফিকেশন (সম্ভাব্য)

মোটো জি৩০ ফোনে থাকতে পারে ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট সহ ৬.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে। এতে গ্লোসি ব্যাক প্যানেল ফিনিশ থাকবে। আবার ফোনটিতে ব্যবহার করা হতে পারে স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর। এটি ৪ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ এবং ৬ জিবি র‌্যাম + ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ সহ পাওয়া যেতে পারে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ আরও বাড়ানো যাবে।

Moto G30

ডুয়েল সিমের এই ফোনে অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেমে থাকবে। এখানেও আমরা পাবো কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। এই ক্যামেরাগুলি হবে ৬৪ মেগাপিক্সেলের OmniVision OV64B প্রাইমারি সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেলের OmniVision OV02B1B ডেপ্থ অ্যাসিস্ট লেন্স + ১৩ মেগাপিক্সেলের Samsung S5K3I6 সুপারওয়াইড লেন্স + ২ মেগাপিক্সেলের GC02M1 ম্যাক্রো লেন্স। আবার সেলফির জন্য এতে থাকতে পারে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। এই ফোনে ২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সহ ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হতে পারে। ফোনটি ফ্যান্টম ব্ল্যাক এবং প্যাস্টেল স্কাই কালারে আসবে।

Moto E7 Power এর স্পেসিফিকেশন (সম্ভাব্য)

মোটো ই৭ পাওয়ার ফোনে থাকবে ওয়াটারড্রপ নচ ডিসপ্লে। যার রেজোলিউশন হবে এইচডি প্লাস। ফোনটিতে মিডিয়াটেক হেলিও পি২২ প্রসেসর ব্যবহার করা হবে। ফোনটি ২ জিবি র‌্যাম + ৩২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ এবং ৪ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ সহ আসতে পারে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবে।

Moto E7 Power

এই ফোনের পিছনে ডুয়েল ক্যামেরা থাকতে পারে। এই ক্যামেরাগুলি হবে ১৩ মেগাপিক্সেল ও ২ মেগাপিক্সেল। সেলফির জন্য পাওয়া যেতে পারে ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। আবার সিকিউরিটির জন্য এতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকবে। এতে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি থাকতে পারে। ফোনটি ডিজিটাল ব্লু ও অক্সি রেড কালারে আসতে পারে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন