৬৪ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার সাথে লঞ্চ হল Moto G30, আছে শক্তিশালী ব্যাটারি

moto-g30-launched-price-in-europe-180-specifications-availability

গতবছরের শেষে শোনা গিয়েছিল Motorola, Capri Plus কোডনেমের একটি ফোনের ওপর কাজ করছে। কিছুদিন পর টিপ্সটাররা জানান এই ফোনের নাম হবে Moto G30। আজ এই ফোনটিকে বাজেট রেঞ্জে ইউরোপে লঞ্চ করা হয়েছে। মোটো জি৩০ ফোনটির কথা বললে, এতে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, ৬৪ মেগাপিক্সেল কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা, ১২৮ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল স্টোরেজ ও আইপি৫২ ওয়াটার রেসিস্টেন্স এর মত ফিচার আছে। এই ফোনে প্লেন ব্যাক প্যানেল উপলব্ধ।

Moto G30 এর দাম

মোটো জি৩০ ফোনটির প্রাথমিক ভ্যারিয়েন্টের দাম রাখা হয়েছে ১৮০ ইউরো (প্রায় ১৫,৯০০ টাকা)। ফোনটি ৪ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ এবং ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ সহ পাওয়া যাবে। যদিও ৬ জিবি র‌্যাম ভ্যারিয়েন্টের দাম কোম্পানি জানায়নি। এই ফোনটি প্যাস্টেল স্কাই এবং ফ্যান্টম ব্ল্যাক কালারে কেনা যাবে। ইউরোপের বাইরে ফোনটি কবে আসবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

Moto G30 এর স্পেসিফিকেশন

মোটো জি৩০ ফোনটি ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস আইপিএস ডিসপ্লে সহ এসেছে। এর পিক্সেল রেজোলিউশন ৭২০x১৬০০ এবং রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ। আবার ফোনের ডিসপ্লের ডিজাইন ডিউ ড্রপ নচ, যারমধ্যে ১৩ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা রয়েছে। এই ফোনে স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। সাথে আছে ৬ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ ৫১২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

ফটোগ্রাফির জন্য Moto G30 ফোনটির পিছনে কোয়াড ক্যামেরা উপলব্ধ। যার প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/১.৭ অ্যাপারচার সহ ৬৪ মেগাপিক্সেল। এছাড়াও বাকি তিনটি ক্যামেরা হল ৮ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স + ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেল ডেপ্থ সেন্সর। পাওয়ারের জন্য এতে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি বর্তমান। যার সাথে ২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। চার্জিংয়ের জন্য এতে আছে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপেরাটিং সিস্টেম সহ এসেছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন