পিছনে চারটি ক্যামেরা সহ ভারতে আসছে Moto G30, থাকবে শক্তিশালী ব্যাটারি

motorola-capri-plus-aka-moto-g30-spotted-on-bis-certifications-site-launch-imminent

থাইল্যান্ডের সার্টিফিকেশন সাইটের পর এবার ভারতের ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস (BIS) সাইটেও অন্তর্ভুক্ত করা হল Moto G30 কে। গতকাল এই ফোনের কোডনেম, Motorola Capri Plus (মডেল নম্বর- XT2129-2) কে ভারতীয় সার্টিফিকেশন সাইটে দেখা যায়। ফোনটি চলতি বছরের প্রথম কোয়ার্টারে লঞ্চ হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে। এটি একটি বাজেট রেঞ্জ স্মার্টফোন হবে। মোটো জি৩০ ফোনে এইচডি প্লাস ডিসপ্লে, কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ ও স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর থাকতে পারে।

BIS সার্টিফিকেশন সাইট থেকে Motorola Capri Plus (কোডনেম) ফোনটি সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা যায়নি। তবে লঞ্চের পর এই ফোনটি যে ভারতেও পাওয়া যাবে তা একপ্রকার নিশ্চিত হয়। কয়েকদিন আগেই এই ফোনের প্রায় সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন ফাঁস হয়। আসুন জেনে নিই Moto G30 আমাদের কি ফিচার অফার করবে।

Moto G30 এর স্পেসিফিকেশন (সম্ভাব্য)

রিপোর্ট অনুযায়ী, মোটো জি৩০ ফোনটি এইচডি প্লাস ডিসপ্লে সহ আসবে। যার রিফ্রেশ রেট হবে ৯০ হার্টজ। আশা করা হচ্ছে এর ডিসপ্লে ডিজাইন হবে পাঞ্চ হোল, যার মধ্যে সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হবে। যদিও ডিসপ্লে সাইজ এখনও জানা যায়নি। আবার Moto G30 ফোনে এড্রেনো ৬১০ জিপিইউ এর সাথে স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর ব্যবহার করা হতে পারে। ফোনটি দুটি স্টোরেজ সহ আসতে পারে – ৪ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি স্টোরেজ, ৬ জিবি র‌্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ।

আমরা আশা করতে পারি মোটোরোলা-র অন্যান্য বাজেট ফোনের মত এতেও মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে স্টোরেজ বাড়ানোর সুবিধা ও ৩.৫মিমি হেডফোন জ্যাক উপলব্ধ থাকবে। এছাড়াও এই ফোনে পাওয়া যাবে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। যার সাথে ২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। এর সাথে থাকবে ডুয়েল সিম সাপোর্ট, এনএফসি ও অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেম।

Moto G30 ফোনের ক্যামেরার কথা বললে এর পিছনে চারটি ক্যামেরা থাকবে। এই ক্যামেরাগুলি হল ৬৪ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা (OmniVision OV64B), ২ মেগাপিক্সেলের ডেপ্থ অ্যাসিস্ট লেন্স (OmniVision OV02B), ১৩ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ওয়াইড লেন্স (Samsung S5K3L6) ও ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স (GalaxyCore GC02M1)। আবার ফোনটির সামনে ১৩ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হতে পারে।