WhatsApp-এ সমস্ত মেসেজের উত্তর দেওয়া উচিত নয় কেন, জানালো মুম্বাই পুলিশ

Mumbai police warns why you should not reply every message on WhatsApp

সোশ্যাল মিডিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ জনসচেতনতামূলক বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য সৃজনশীল উপায়গুলি চিন্তাভাবনা করার ক্ষেত্রে মুম্বাই পুলিশ সর্বদা এক নম্বরে থাকে। সড়ক নিরাপত্তা বিধি অনুসরণ করা থেকে শুরু করে COVID-19 সম্পর্কিত নিয়ম— প্রতিটি বিষয়ে জনগণকে তৎপর করতে, সতর্কতা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ মেসেজগুলি কীভাবে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে অনন্য, বুদ্ধিদীপ্ত, সাদামাটা অথচ আকর্ষণীয় তথা মজাদার ভঙ্গিতে ছড়িয়ে দিতে হয়, তা এই পুলিশ বিভাগ খুব ভালোভাবেই জানে। এর আগেও বহুবার তার প্রমাণ পাওয়া গেছে, সম্প্রতি আরও একবার মুম্বাই পুলিশ, COVID-19-এর বাড়বাড়ন্ত রোধ করতে জনসাধারণের বাড়িতে থাকার গুরুত্ব তুলে ধরেছে একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে।

পোস্টটির শিরোনাম হল, “কিঁউকি হার মেসেজ কা রিপ্লাই দেনা জারুরি নেহি হোতা হ্যায়!”, অর্থাৎ সব মেসেজের উত্তর দেবার প্রয়োজন নেই। পোস্টটিতে সাধারণ হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের (কাল্পনিক) রিয়েলিস্টিক মকের একটি স্ক্রিনশট রয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে যে, বেশ কিছু পরিচিত ( অফিস ফ্রেন্ড, ট্রাভেল ফ্রেন্ড, সোসাইটি ফ্রেন্ড এবং অন্যান্যরা) একজন ব্যক্তিকে বাইরে দেখা করতে বলছে। স্ক্রিনশটে দেখানো হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজগুলি অনেকটা এইরকম:

“চলো বাইরে বেরিয়ে একটু হাওয়া খেয়ে আসি”(“Let’s go out for some air!”) বা “বাইরে খেতে যাবে?” (“Wanna Eat Outdoor?”)। কিন্তু মূল যে বিষয়টির ওপর আলোকপাত করা হয়েছে তা হল, যাকে এই মেসেজগুলি করা হয়েছে তিনি কোনো উত্তর না দিয়ে কেবল তাদের উপেক্ষা করেছেন। এর অর্থ হল কিছু তাজা বাতাস, রাতের খাবার বা হাঁটার জন্য বাইরে বেরোনো মানে করোনা ভাইরাসকে বাড়িতে আমন্ত্রণ জানানো।

পোস্টটি ১৬,০০০-এরও বেশি ‘লাইক’ পেয়েছে এবং ইউজাররা প্রশংসাসূচক এবং মজাদার মন্তব্যের বন্যা বইয়ে দিয়েছেন। jeetesh_chavan নামের একজন ইউজার মন্তব্য করেছেন, “কিছু সময় না বলা ভাল” (“Some times its good to say NO”)। আবার মজার ছলে samp37_ লিখেছেন, “এবার আমি বুঝতে পেরেছি আমার ক্রাশ আমার মেসেজ উপেক্ষা করার আইডিয়া কোথা থেকে পেয়েছে” (“No wonder where my crush gets ideas of ignoring my msgs”)। এর পাশাপাশি বহু ইউজার মুম্বাই পুলিশ বিভাগের দক্ষতার প্রশংসা করেছেন এবং বলেছেন তারা যেন এইভাবেই মজাদার অথচ আকর্ষণীয় ভঙ্গিতে জনগণকে সতর্ক করে যেতে থাকে। ইউজারদের মন্তব্যে ব্যাং অন (Bang on), ওয়াও ( wow) সহ একাধিক প্রশংসাসূচক শব্দের ব্যাপকভাবে উল্লেখ পাওয়া গেছে।

অতীতেও একাধিকবার মুম্বাই পুলিশ জনসচেতনতা বাড়াতে তার সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে মজাদার বিভিন্ন বিষয় পোস্ট করেছিল। মার্চ মাসে, মুম্বাই পুলিশ মাস্ক পরার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরার জন্য টুইটারে বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপন শেয়ার করেছিল। সেখানে তারা একাধিক জনপ্রিয় ব্র্যান্ডের ট্যাগলাইনগুলিকে একটু ‘টুইস্ট’ করে ব্যবহার করেছিল।

মুম্বাই পুলিশের এই উদ্যোগ যে অমূলক, তা একেবারেই বলা চলে না। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, মহারাষ্ট্রে ৬৭,০১৩ টি নতুন কোভিড কেস রেজিস্টার হয়েছে এবং ৬.৯৯ লক্ষেরও বেশি অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে। সব মিলিয়ে, মহারাষ্ট্রে কোভিড আক্রান্তের মোট সংখ্যা এখন ৪০.৯ লক্ষেরও বেশি।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন