অবশেষে পরাজয় লেজেন্ডের, মজবুতিতে iPhone 13 Pro-র কাছে হার মানল Nokia 3310

Nokia ফিচার ফোনের তুলনায় কতটা টেকসই নতুন Apple iPhone 13 Pro? ড্রপ টেস্টের ফলাফলে হতবাক গোটা দুনিয়া!

nokia-3310-apple-iphone-13-pro-drop-test-result-wonder-you

পুরোনো Nokia ফিচার ফোনগুলির সহনক্ষমতা সম্পর্কে আমরা সকলেই ওয়াকিবহাল। এরা যে কতটা টেকসই তার প্রমাণ আমরা বহুবার পেয়েছি। বর্তমানে উপলব্ধ বিভিন্ন স্মার্টফোনের সহনক্ষমতা পুরোনো Nokia ফিচার ফোনগুলির তুলনায় নেহাতই সামান্য। অন্তত একটা বড় অংশের ক্রেতা এমনটাই মনে করেন। কিন্তু সাম্প্রতিক একটি পরীক্ষার ফলাফল মানুষের এই ধারণায় যথেষ্ট প্রভাব ফেলবে বলে আমাদের অনুমান। কেননা এক্ষেত্রে নোকিয়ার ‘আদিম’ ফিচার ফোনের মজবুতিকে টেক্কা দিয়েছে সদ্য লঞ্চ হওয়া Apple iPhone 13 Pro ডিভাইস!

ড্রপ টেস্টে আশ্চর্যজনক ফলাফল, Nokia ফিচার ফোনকে মজবুতিতে টেক্কা দিল আইফোন

আজ্ঞে হ্যাঁ, পরীক্ষা বলতে উপরে আমরা ড্রপ টেস্টের কথাই বলছিলাম। কোনো ডিভাইসের সহ্যক্ষমতা ও মজবুতি বোঝার জন্য ড্রপ টেস্টের ফলাফল গ্রহণ করা হয়। সম্প্রতি TechRax নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল এমনই এক ড্রপ টেস্টের ভিডিও আপলোড করে, যেখানে প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মুখোমুখি হয় জনপ্রিয় Nokia 3310 ফিচার ফোন এবং Apple iPhone 13 Pro ডিভাইস। এখন ফোন দুটির নাম শোনার পর অনেকের মধ্যে পরীক্ষার ফলাফল সম্পর্কে ধারণা তৈরী হবে। কারণ মজবুতি আর সহ্যক্ষমতায় নোকিয়া ৩৩১০ ফিচার ফোনকে যে কেউ হারাতে পারে তা আমাদের কল্পনার অতীত! তবে এক্ষেত্রে ড্রপ টেস্টের ফলাফল সত্যিই আপনাকে চমকে দেবে।

আলোচ্য ড্রপ টেস্টের ক্ষেত্রে TechRax চ্যানেলের প্রতিনিধিরা দুটি ফোনকে একটি সর্পিল বা ঘোরানো সিঁড়ির থেকে নীচে ফেলেছেন। এজন্য প্রথমেই তারা Nokia 3310 ফিচার ফোনকে বেছে নেন। সিঁড়ি থেকে নীচে পড়ার ফলে নোকিয়া ৩৩১০ ফোনটি আলাদা আলাদা টুকরোয় বিভক্ত হয়ে যায়। অবশ্য এক্ষেত্রে ফোনটি চূর্ণবিচূর্ণ না হয়ে কয়েকটি লেগো (LEGO) খন্ডে বিযুক্ত হয়ে পড়ে। এরপর পরীক্ষার জন্য অ্যাপল আইফোন ১৩ প্রো ডিভাইসের ডাক পড়ে!

আশ্চর্যের কথা হলো Apple iPhone 13 Pro ডিভাইসটিকে একবার নয়, দুইবার নয় বরং পরপর তিনবার সিঁড়ি থেকে নীচে ফেলা হয়। প্রথমবার এর রিয়ার গ্লাস প্যানেল ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ফ্রন্ট প্যানেল প্রায় অক্ষত থেকেছে। দ্বিতীয়বার নীচে ফেলা হলে ডিভাইস ডিসপ্লের নীচে ডানদিকে চিঁড় ধরে এবং অন্যদিকে চোটের ফলে এর রিয়ার প্যানেল আরো কিছুটা ভেঙে যায়।

এরপরেই আসে তৃতীয়বার পরীক্ষার পালা। এবার অ্যাপলের নয়া ফ্ল্যাগশিপ ফোনটিকে নীচে ফেললে তাতে তার বড় কোন ক্ষতি লক্ষ্য করা যায়নি! শুধু সামনের দিকে আরো কিছু অতিরিক্ত স্ক্র্যাচ ধরা দিয়েছে। যদিও সেক্ষেত্রে এর ক্যামেরা বা অন্যান্য পারফরম্যান্সে একটুও খামতি দেখা যায়নি যা অবাক করার মতো ব্যাপার বৈকি! একারণেই হয়তো TechRax প্রতিনিধিরা আলাদা আলাদা খন্ডে বিভক্ত নোকিয়া ৩৩১০ ফিচার ফোনটিকে জোড়া লাগিয়ে আবার পরীক্ষা করতে চাননি।

যাদের বোঝানো গেলোনা তাদের মনে করিয়ে দিই, পুরোনো নোকিয়া ফিচার ফোনগুলির ব্যাক প্যানেল, ব্যাটারি, কিবোর্ড সব আলাদা আলাদা হয়ে গেলেও ফের জোড়া লাগিয়ে সেগুলি ব্যবহার করা যেতো। এতে তাদের পারফরম্যান্সে কোনো প্রভাব পড়তো না যা তাদের মজবুতিকে প্রবাদে পরিণত করে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

One of the newest members of the Techgup Family. Soumo grew his liking for gadgets almost a decade back while searching for his first smartphone, and started writing about tech recently in 2020