দাম শুরু ৫ হাজার টাকা থেকে, লঞ্চ হল Nokia C5 Endi, Nokia C2 Tava ও Nokia C2 Tennen

HMD Global তাদের নোকিয়া ব্র্যান্ডের তিনটি স্মার্টফোন লঞ্চ করলো। এই তিনটি ফোন হল Nokia C5 Endi, Nokia C2 Tava এবং Nokia C2 Tennen । এরমধ্যে নোকিয়া সি ৫ এন্ডি ফোনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা ও ওয়াটারড্রপ নচ দেওয়া হয়েছে। আবার ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরার সাথে এসেছে নোকিয়া সি ২ তাবা ও নোকিয়া সি ২ টেননেন। এই তিনটি ফোনে Google Assistant এর জন্য আলাদা বাটন দেওয়া হয়েছে।

Nokia C5 Endi, Nokia C2 Tava এবং Nokia C2 Tennen দাম ও উপলব্ধতা :

এই তিনটি এক্সক্লুসিভ আমেরিকা ক্যারিয়ার ক্রিকেট ওয়্যারলেসে পাওয়া যাবে। নোকিয়া সি ২ তাবা এর ২ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি মেমোরির দাম ৬৯.৯৯ ডলার, যা প্রায় ৫,২০০ টাকার সমান। আবার ২ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি মেমোরির নোকিয়া সি ২ টেননেন দাম ১০৯.৯৯ ডলার, যা প্রায় ৮৩০০ টাকার সমান। আবার নোকিয়া সি ৫ এন্ডি এর ৩ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি স্টোরেজের দাম ১৬৯.৯৯ ডলার, প্রায় ১২,৭০০ টাকা।

Nokia C5 Endi স্পেসিফিকেশন :

নোকিয়া সি ৫ এন্ডি ফোনে ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস ওয়াটারড্রপ নচ ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এর ডিসপ্লের আসপেক্ট রেশিও ১৯:৯। ফোনটি মিডিয়াটেক হেলিও পি ২২ প্রসেসরের সাথে এসেছে। ফোনটি স্টক অ্যান্ড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমে চলে। ফোনের পিছনে আছে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রাইমারি ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেল, সেকেন্ডারি ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল ও থার্ড ক্যামেরা হল ডেপ্থ সেন্সর। ক্যামেরায় এআই সিন ডিটেকশন, এআই শট, পোর্ট্রেট মোড, এইচডিআর, বোকেহের মতো বৈশিষ্ট্য রয়েছে। যদিও সেলফি ক্যামেরা সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি। সিকিউরিটির জন্য এখানে আছে ফেস আনলক ফিচার। ফোনটি ৪,০০০ এমএএইচ ব্যাটারির সাথে এসেছে।

Nokia C2 Tava এবং Nokia C2 Tennen স্পেসিফিকেশন :

এই দুইফোনের স্পেসিফিকেশন অনেকটাই একই তবে এদের দামের মধ্যে পার্থক্য আছে। দুটো ফোনেই ৫.৪৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এতে মিডিয়াটেক হেলিও এ ২২ প্রসেসর আছে। দুটি ফোনেই ২ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি মেমোরি মিলবে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে স্টোরেজ ১২৮ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। সিকিউরিটির জন্য এতে ফেস আনলক ফিচার আছে। আবার দুটো ফোনেই ৩,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি রয়েছে।

ডুয়েল ক্যামেরার Nokia C2 Tava এবং Nokia C2 Tennen ফোনে পাবেন ৮ মেগাপিক্সেল অটোফোকাস ও ২ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি ডেপ্থ সেন্সর। সেলফির জন্য দুটো ফোনেই ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা আছে। ক্যামেরায় পোর্ট্রেট মোড দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ফুল এইচডি ভিডিও রেকর্ডিং ফিচার উপলব্ধ। কানেক্টিভিটির জন্য এতে ব্লুটুথ ৪.২, ওয়াই-ফাই, ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট এবং ৪ জি এলটিই এর মতো ফিচার রয়েছে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।