Ola Futurefactory-তে ই-স্কুটার তৈরি করবে ১০ হাজার নারী, পুরুষ কর্মচারী থাকবে না, সিদ্ধান্ত ওলার

৫০০ একর জমির উপর তৈরি বিশ্বের বৃহত্তম ওলা ইলেকট্রিক স্কুটার কারখানায় ১০,০০০ জন মহিলার কর্মসংস্থান হবে

ola-electric-futurefactory-to-be-run-by-10-000-women no men confirmed ceo

দেশে চাকরীর ক্ষেত্রে নারীর স্থান বাড়ানোর দাবি চলে আসছে বহুকাল ধরেই। শেষ এক দশকের কথা ভাবলে এ দেশে নারীর শিক্ষা, সুযোগ ও কর্মক্ষেত্রের অধিকার অনেকটাই বেড়েছে। আর ভবিষ্যতেও সেটা আরো প্রসারিত হতে চলেছে। তবে এখনই মহিলাদের অর্থনৈতিক কর্মে যোগদানের এক নতুন দ্বার খুলে দিয়েছে ওলা ইলেকট্রিক (Ola Electric)-এর সিইও ভাবিশ আগরওয়াল (ভাবিশ আগরওয়াল)-এর উদ্যোগ। নারীর উন্নয়ন বা তাঁদের ক্ষমতায়নকে একধাপ এগিয়ে আত্মনির্ভর ভারতে আত্মনির্ভর নারীর প্রয়োজনের কথা বলেছেন তিনি।

ওলা ইলেকট্রিক কারখানা সম্পূর্ণভাবে মহিলা পরিচালিত হবে বলে ঘোষণা করেছেন ভাবিশ। ৫০০ একর জমির উপর তৈরি বিশ্বের বৃহত্তম সেই ইলেকট্রিক স্কুটার কারখানায় ১০,০০০ জন মহিলার কর্মসংস্থান হবে। ভাবিশের কথায়,”ওলায় নারীদের অর্থনৈতিক সুযোগ প্রদানের উদ্দেশ্যে আমাদের নেওয়া ধারাবাহিক উদ্যোগের মধ্যে এটিই প্রথম। উৎপাদন ক্ষেত্রে তাঁদেরকে আরো প্রশিক্ষিত ও দক্ষ করে তুলতে ভারিমাত্রায় বিনিয়োগ করেছি আমরা৷ ওলা ফিউচারফ্যাক্টরিতে প্রতিটি গাড়ি তৈরির দায়িত্বে থাকবেন ওনারা।”

OLA Electric Futurefactory

প্রথম ক্ষেপে নিয়োগ হওয়া মহিলা কর্মীদের নিয়ে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন ভাবিশ। তাতে মহিলাদের বলতে শোনা যাচ্ছে, ওলা পরিবারের সদস্য হতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। ওলাতে এসে আমি নিজের স্বপ্ন উপলব্ধি করেছি৷ আবার কেউ বলছেন বিপ্লব আনতেই আমার ওলায় যোগদান।

ভাবিশের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবশ্য ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন অনেকেই। তাঁর টুইটের নীচে একজন লিখেছেন, নারীদের ক্ষমতায়নের অর্থ তাঁদেরকে সমান অধিকার দেওয়া। পুরুষ-মহিলা বৈষম্য নয়! আর একজনের বক্তব্য, লিঙ্গ নয় দক্ষতার বিচার করে চাকরি দিক ওলা।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপে শুভ্রর প্রথম প্রযুক্তি বিষয়ক লেখায় হাতেখরি৷ স্নাতক স্তরের পড়াশোনার পাশাপাশি এখানেই চলতে থাকে শুভ্রর লেখালেখি৷ কলেজের অধ্যায় শেষ হওয়ার পর শুভ্র এখন টেকগাপের কনটেন্ট টিমের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য৷