Apple কে ট্রল করতে গিয়ে Xiaomi -র হাতে বিদ্ধ OnePlus

oneplus-tried-to-troll-apple-but-get-reply-from-xiaomi

নিজেকে সেরা হিসেবে তুলে ধরতে গিয়ে, স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলি প্রায়ই একে অপরকে নিয়ে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি করে! স্বাভাবিকভাবেই প্রতিযোগিতার বাজারে মজা-ঠাট্টা, মন্তব্য-পাল্টা মন্তব্য চলতেই থাকে। সেক্ষেত্রে প্রোডাক্টের প্রচার বা উপস্থাপনা নিয়েও ব্র্যান্ডগুলি নানাবিধ কারিকুরি করার চেষ্টা করে। কিন্তু এবার, এই বিজ্ঞাপনী প্রচারকে কেন্দ্র করেই প্রকাশ্যে বিতন্ডায় জড়ালো দুই জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড Xiaomi এবং OnePlus।

প্রিমিয়াম ডিভাইস নির্মাতা Apple, তার নতুন iPhone 12 সিরিজ লঞ্চ করার ঠিক পরেই, Samsung, Xiaomi-র মত কিছু সংস্থা যে পরোক্ষভাবে মার্কিনি সংস্থাটিকে বিদ্রুপ করেছিল – সেকথা আমাদের সকলেরই জানা। কিন্তু সম্প্রতি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন নির্মাতা OnePlus, তার নতুন OnePlus 8T 5G ডিভাইসটির প্রচার করতে গিয়ে, গ্রাহকদের ‘অ্যাপল’ প্রীতি ছেড়ে ওয়ানপ্লাসের ওপর ভরসা রাখার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছে। আর ঠিক এইখানেই শুরু হয়েছে আসল গল্প! আসলে ওয়ানপ্লাস, একটি টুইট পোস্টে একটি ছবি শেয়ার করেছে যেখানে রাশি রাশি আপেলের মাঝে ব্র্যান্ডের উল্লিখিত হ্যান্ডসেটটিকে দেখা গিয়েছে এবং টুইটের ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে – অ্যাপলের দুনিয়ায় ওয়ানপ্লাসের পাশে দাঁড়ান!

এই টুইট পোস্ট থেকে একথা বেশ স্পষ্ট বোঝা যায়, যে নিজেদের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলিকে, অ্যাপলের প্রিমিয়াম স্ট্যাটাসের সমতুল্যে নিয়ে যেতে মরিয়া চীনা কোম্পানি ওয়ানপ্লাস। সেক্ষেত্রে অন্যান্য বারের মতই, এই টুইট পোস্ট নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি কাপার্টিনো ভিত্তিক টেক জায়ান্ট সংস্থাটি। কিন্তু মজার ব্যাপার এটাই যে, ওয়ানপ্লাসের ওই বিজ্ঞাপনী টুইটে অভিনব কায়দায় নিজের ডিভাইসের প্রচার সেরেছে Xiaomi India।

Xiaomi-র ভারতীয় শাখাটি, ওয়ানপ্লাসের ওই টুইটে রিপ্লাই দিয়ে নিজের Mi 10T Pro ফোনটির কথা জানিয়ে বলেছে – যখন বেশি কিছু পাওয়ার সুযোগ রয়েছে তবে কেন অল্পেতে সন্তুষ্ট থাকবেন! ওই রিটুইটে শাওমি, Mi 10T Pro-এর মূল আকর্ষণ অর্থাৎ ১০৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরার কথা তো উল্লেখ করেছেই, পাশাপাশি ওয়ানপ্লাসের ট্যাগলাইনে (Never Settle) ব্যবহৃত ‘Settle’ শব্দটিকে দিয়েই কায়দা করে হ্যাশট্যাগ (#SettleForBetter) ব্যবহার করেছে। এরপরেই নেটিজেনরা দুই দলে ভাগ হয়ে, দুই ব্র্যান্ডের পক্ষ নিয়েছেন।

OnePlus 8T 5G নাকি Mi 10T Pro – সেরা কোনটি?

দুটি ফোনের ফিচার সম্পর্কে বলতে গেলে, OnePlus 8T 5G-তে ৬.৫৫ ইঞ্চি স্ক্রিন, ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারী ক্যামেরাযুক্ত কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ, ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি, স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ চিপসেট এবং ১২ জিবি র‌্যাম রয়েছে। সেক্ষেত্রে Mi 10T Pro ডিভাইসটিতে ৬.৬৭ ইঞ্চি ডিসপ্লে (যার স্ক্রিন রেজোলিউশন ২৪০০×১০৮০ পিক্সেল এবং স্ক্রিন রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হার্টজ), কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রোটেকশন, ৭ ন্যানোমিটার ফ্যাব্রিকেশন বেসড স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ চিপসেট, ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং এবং ২০ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। এছাড়া, Mi 10T Pro-তে ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারী ক্যামেরা (স্যামসাং HMX/1.33 সেন্সর, অ্যাপারচার f/1.69) সহ ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে।

সুতরাং, সব দিক বিচার করে পারফরম্যান্সের নিরিখে যে Mi 10T Pro-ই কয়েক ধাপ এগিয়ে থাকছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না!