আসছে সস্তা ভ্যারিয়েন্ট OnePlus Z, পাঞ্চ হোল ডিসপ্লের সাথে থাকবে তাক লাগানো ফিচার

OnePlus Z

জনপ্রিয় ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন নির্মাতা ওয়ানপ্লাস এই বছরে ইতিমধ্যেই ওয়ানপ্লাস ৮ সিরিজে দুটি ফোন OnePlus 8 এবং OnePlus 8 Pro লঞ্চ করেছে। এবার কোম্পানি এই সিরিজের তৃতীয় ফোন নিয়ে আসার পরিকল্পনা নিচ্ছে। এই ফোনটি ওয়ানপ্লাস ৮ সিরিজের লাইট ভার্সন হিসাবে আসবে। যার নাম ওয়ানপ্লাস জেড (OnePlus Z)। সম্প্রতি এই ফোনের কিছু ফিচার ফাঁস হয়েছে।

OnePlus Z এর সম্ভাব্য ফিচার ও দাম :

রিপোর্ট অনুযায়ী, ওয়ানপ্লাস জেড ফোনে ৬.৪ ইঞ্চি OLED পাঞ্চ হোল ডিসপ্লে দেওয়া হবে। এই ফোনে আন্ডার ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকবে। কোম্পানি এখানে মিডিয়াটেক ডিমেন্সিটি ১০০০ প্রসেসর ব্যবহার করবে। র‌্যাম ও স্টোরেজের কথা বললে এতে ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি/২৫৬ জিবি স্টোরেজ থাকতে পারে। ফোনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা দেওয়া হতে পারে- ৪৮ মেগাপিক্সেল + ১৬ মেগাপিক্সেল + ১২ মেগাপিক্সেল। এই ফোনে ৩০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্টের সাথে ৪,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হবে। অনুমান করা হচ্ছে এই ফোন ৩০,০০০ টাকার রেঞ্জে লঞ্চ হবে।

OnePlus 8 এবং OnePlus 8 Pro স্পেসিফিকেশন :

ওয়ানপ্লাস ৮ ফোনটি ৬.৫৫ ইঞ্চি ফ্লুইড AMOLED ডিসপ্লে সহ এসেছে। এর আসপেক্ট রেশিও ২০:৯ এবং এতে এইচডিআর ১০ প্লাস ও থ্রিডি কর্নিং গরিলা গ্লাস সাপোর্ট দেওয়া হয়েছে। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্জ এবং এতে sRGB সাপোর্ট করবে। অন্যদিকে ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনে পাবেন ১৯.৮:৯ আসপেক্ট রেশিও, এইচডিআর ১০ প্লাস, QHD+ রেজুলেশন এবং ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট যুক্ত ৬.৭৮ ইঞ্চি ফ্লুইড AMOLED ডিসপ্লে।

ওয়ানপ্লাসের এই দুই ফোনেই কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। সাথে দেওয়া হয়েছে এড্রেন ৬৫০ জিপিইউ। ওয়ানপ্লাস ৮ ফোনে রয়েছে ৪,৩০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি রয়েছে ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনে। দুটো ফোনেই Warp charge 30T ( ৩০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং) সাপোর্ট করবে। যদিও প্রো ভার্সনে ৩০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং এবং হ্যাপিটিক ২.০ ভাইব্রেশন অতিরিক্ত দেওয়া হয়েছে। সিকিউরিটির জন্য দুটি ফোনেই পাবেন ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ফোন দুটো অ্যান্ড্রয়েড ১০ ভিত্তিক OxygenOS অপারেটিং সিস্টেমে চলবে। এতে ডলবি অ্যাটমোস এর সাথে ডুয়াল স্টেরিও স্পিকার দেওয়া হয়েছে।

ক্যামেরার কথা বললে ওয়ানপ্লাস ৮ ফোনের পিছনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা উপলব্ধ। যার প্রধান ক্যামেরা ৪৮ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ৫৮৬ সেন্সর। যার অ্যাপারচার এফ / ১.৭৫ এবং ০.৮ মিমি পিক্সেল সাইজ। এই সেন্সর অপটিকাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশ (OIS) এবং ইলেকট্রনিক ইমেজ স্টেবিলাইজেশন (EIS) উভয় সাপোর্ট করে। পিছনের দ্বিতীয় ক্যামেরাটি ১৬ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল লেন্স, যার অ্যাপারচার এফ / ২.২ এবং ১১৬ ডিগ্রী ফিল্ড অফ ভিউ। আবার তৃতীয় ক্যামেরাটি ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরা। এর অ্যাপারচার এফ/২.৪। এই সেটআপ পিডিএএফ এবং কনট্রাস্ট- বেসড অটোফোকাসকে সমর্থিত। এরসাথে ডুয়েল এলইডি ফ্ল্যাশ দেওয়া হয়েছে। আবার ফোনের সামনে এফ/২.৪৫ অ্যাপারচার, EIS সহ ১৬ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ৪৭১ সেন্সর আছে।

অন্যদিকে ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনের পিছনে আছে কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা। যার প্রধান ক্যামেরা ৪৮ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ৬৮৯ সেন্সর। যার অ্যাপারচার এফ / ১.৭৮ এবং ১.১২ মাইক্রন পিক্সেল সাইজ। এই সেন্সর অপটিকাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশ (OIS) এবং ইলেকট্রনিক ইমেজ স্টেবিলাইজেশন (EIS) উভয় সাপোর্ট করে। এছাড়াও দ্বিতীয় ক্যামেরা হিসাবে অ্যাপারচার এফ / ২.২ এবং ১১৯.৭ ডিগ্রী ফিল্ড অফ ভিউ সহ ৪৮ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল লেন্স আছে। আবার ৮ মেগাপিক্সেল টেলিফোটো লেন্স দেওয়া হয়েছে, যার অ্যাপারচার এফ/২.৪। এছাড়াও চতুর্থ ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল কালার ফিল্টার সেন্সর, যার অ্যাপারচার এফ/২.৪। ক্যামেরা সেটআপে পিডিএএফ, লেজার অটো-ফোকাস, সিএএফ, ৩ এক্স অপটিকাল জুম এবং ডুয়েল-এলইডি ফ্ল্যাশ সাপোর্ট করবে। আবার ফোনের সামনে এফ/২.৪৫ অ্যাপারচার, EIS সহ ১৬ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ৪৭১ সেন্সর আছে।