Paytm ইউজারেরা সাবধান, 2000 টাকা ক্যাশব্যাকের এই মেসেজ ভুলেও ক্লিক করবেন না

paytm-cashback-fraud-rs-2000-how-to-prevent

নোটবন্দির পর থেকে ভারতবাসী আরও ডিজিটাল হয়েছে। ফলে বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই, অনলাইন পেমেন্ট প্ল্যাটফর্মগুলি মারফত টাকার লেনদেন বেড়েছে অনেকখানি। আবার বর্তমানে মারণ করোনা সংক্রমণের দাপটে গৃহবন্দী প্রতিটি মানুষকেই এখন বাধ্য হয়ে ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেমের ওপর নির্ভরশীল থাকতে হচ্ছে। যার ফলস্বরূপ, অনলাইন পেমেন্ট অ্যাপগুলির ব্যবহারের পাশাপাশি দেশে সাইবার জালিয়াতির ঘটনাও বাড়ছে হু হু করে। ঠিক যেমন, Paytm সম্পর্কিত একটি নতুন সাইবার কেলেঙ্কারির ঘটনা সামনে এসেছে। যেখানে Paytm ইউজারদের 2,000 টাকা ক্যাশব্যাক দেওয়ার প্রলোভন দেখানো হচ্ছে।

Indian Express -এর একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, হালফিলে সংঘটিত হওয়া এই নয়া স্ক্যামে সেই সব ইউজারদের টার্গেট করা হচ্ছে, যাদের ফিশিং ওয়েবসাইটগুলির সম্পর্কে কোনো প্রকারের ধারণা নেই। সেক্ষেত্রে জানা যাচ্ছে, প্রতারক প্রথমেই ইউজাদের ফোনে একটি ব্রাউজার নোটিফিকেশন পাঠাচ্ছে। যেখানে ইউজারদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য লেখা থাকছে – ‘Congratulations! you have won Paytm Scratch Card’। আর একবার যদি ইউজাররা এই ম্যাসেজটিতে ক্লিক করে ফেলেন, তাহলে তাদের সরাসরি ‘paytm-cashoffer[dot]com’ ওয়েব অ্যাড্রেসযুক্ত ভুয়ো সাইটে রিডাইরেক্ট করে দেওয়া হচ্ছে। সর্বোপরি, ইউজাররা যাতে নিঃসন্দেহে এই স্ক্যামের ফাঁদে ধরা দেয় তার জন্য, স্ক্যামাররা তাদের এই নকল ওয়েবসাইটটিকে Paytm -এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের ন্যায় ডিজাইন এবং রঙ দিয়েছে।

পরবর্তী ধাপে, এই ভুয়ো Paytm-এর ওয়েবসাইটে ঢুকলেই ইউজাদের কাছে একটি ম্যাসেজ আসবে, যেখানে লেখা থাকবে, ‘আপনি 2,000 টাকার ক্যাশব্যাক জিতেছেন’। আর স্ক্রল করে ওয়েবসাইটের একদম নিচের দিকে গেলে একটি নীল রঙের বোতাম পাওয়া যাবে, যেখানে ‘Send Reward to Paytm’ লেখাটি দেখা যাবে। আর এই বোতামটি প্রেস করলেই কেল্লাফতে ! এই স্ক্যাম ওয়েবসাইটটির উপরের দিকে থাকা URL অ্যাড্রেসটিকে দেখলেই স্পষ্ট অনুমান করা যাবে যে এটি ভুয়ো। কিন্তু যেসকল ইউজাররা উক্ত ওয়েবসাইটটির URL অ্যাড্রেসকে খেয়াল করবেন না, তারা ক্রমশ জড়াতে থাকবেন এই জালিয়াতির জালে।

সমগ্র স্ক্যামের ঘটনাটি কিভাবে ঘটছে তার যাবতীয় তথ্য প্রকাশ্যে এলেও, কোন সাইটের মাধ্যমে স্ক্যামাররা এই নোটিফিকেশনটি পাঠাচ্ছে তা এখনো অধরা। কারণ, ওয়েব ব্রাউজার ক্রোম, কোনো ওয়েবসাইটের থেকে নোটিফিকেশন পাঠানোর আগে ইউজারদের অনুমতি চায়। আর এই নয়া স্ক্যামে, নোটিফিকেশন পাঠানোর আগে কোনো প্রকারের অনুমতি নেওয়া হচ্ছে না। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে যে, এই ভুয়ো নোটিফিকেশনটি ক্রোম ব্রাউজারের পরিবর্তে অন্যকোনো ব্রাউজার থেকে প্রেরণ করা হয়েছে। অথবা হতে পারে, হ্যাকাররা এমন কোনো ওয়েবসাইট ব্যবহার করছে যেটিকে ইউজাররা ইতিপূর্বেই নোটিফিকেশন পাঠানোর জন্য অনুমতি দিয়েছে।

রিপোর্টে আরও দাবি করা হয়েছে, এই অসুরক্ষিত লিঙ্কটি শুধুমাত্র মোবাইলেই কাজ করে। যার অর্থ, এই ভুয়ো ওয়েবসাইটের অন্তরালে থাকা স্ক্যামাররা মূলত মোবাইল ইউজারদেরই টার্গেট করছে। তদুপরি, কম্পিউটারে এই ভুয়ো URL অ্যাড্রেসটিকে লিখে সার্চ করার পর দেখা গেছে, স্ক্যাম ওয়েবসাইটের বদলে সরাসরি Paytm-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ইউজাররা রিডাইরেক্ট হয়ে যাচ্ছেন। এর মানে, ওয়েব ইউজাররা এখনো সুরক্ষার ঘেরাটোপে আছেন।

পরিশেষে, প্রত্যেক ইউজারদের আমাদের পরামর্শ, এই প্রকারের নোটিফিকেশন এলে এড়িয়ে চলুন এবং একইসাথে অপর কোনো পরিচিত ব্যক্তিকে এই ধরণের ম্যাসেজ ফরওয়ার্ড করবেন না।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।