ফটো ল্যাব অ্যাপের সাহায্যে কিভাবে আপনার ছবি কে এডিট করবেন

আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়ার একজন অ্যাক্টিভ ইউজার হন, তবে নতুন ট্রেন্ডটি অবশ্যই লক্ষ্য করেছেন – আজকাল প্রচুর মানুষ তাদের ছবিগুলি হলুদ ব্যাকগ্রাউন্ডে অ্যানিমেটেড রূপে এডিট করে শেয়ার করছেন। কমবেশি অনেকেই হয়তো জানেন “Photo Lab” নামের একটি অ্যাপ দিয়ে এই জাতীয় ছবিগুলি এডিট করা হয়েছে এবং এই অ্যাপটি ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

কী এই Photo Lab ?

“Photo Lab Picture Editor” অ্যাপটি অনেকদিন ধরেই অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস প্ল্যাটফর্মে উপলব্ধ রয়েছে, কিন্তু সম্প্রতি এটি ট্রেন্ডিংয়ে রয়েছে। এই অ্যাপটিতে ৮৫০টিরও বেশি ফিল্টার এবং এফেক্ট রয়েছে যার সাহায্যে আপনি আপনার ফটোগুলিকে ইচ্ছে মত এডিট করতে পারবেন। গুগল প্লে স্টোর থেকে এই অ্যাপটি ১০০ মিলিয়নেরও বেশি বার ডাউনলোড করা হয়েছে। অ্যাপটি ২১ লক্ষেরও বেশি রিভিউ সহ ৪.৪ রেটিং পেয়েছে। এছাড়া, এটি ওয়েবেও অ্যাক্সেস করা যায়।

কিভাবে কাজ করে এই অ্যাপ্লিকেশন:

অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করার পর, আপনি প্রচুর ফিল্টার এবং স্টাইলিশ ফটো এফেক্ট সমেত একটি ‘ফিড’ দেখতে পাবেন, যার মধ্যে থেকে আপনি পছন্দসই যে কোনো এফেক্ট বেছে নিতে পারবেন। এই ফিডটি তিন ভাগে বিভক্ত – ট্রেন্ডিং, রিসেন্ট এবং টপ। যে ফিল্টারগুলি জনপ্রিয় সেগুলি এর ট্রেন্ডিং সেকশনে দেখা যাবে। ফিল্টারে ক্লিক করে অ্যাপ্লিকেশনটিকে কিছু পারমিশন দেওয়ার পর আপনি যে কোনো ছবি নির্বাচন করতে পারেন। এছাড়া আরো বেশি ফিল্টার ব্যবহার করতে এবং ফটো ল্যাব ওয়াটারমার্কটি সরাতে চাইলে, আপনি অ্যাপটির প্রিমিয়াম সংস্করণ কিনতে পারেন।

অ্যাপল iOS চেক থেকে জানা যায় অ্যাপটির নির্মাতা VicMan । অ্যাপ্লিকেশনটি কেবল ফটো সিলেক্ট এবং এডিট করা ছবি ছবি সেভ করতে গ্যালারির অ্যাক্সেসের চায় এবং এটি একটি সুরক্ষিত অ্যাপ হিসাবে পরিচিতি পেয়েছে।

আপনি যদি ফটো ল্যাব অ্যাপ ব্যবহার করতে না চান, তবে আপনি সম্প্রতি অ্যাডোব দ্বারা চালু করা ফটোশপ ক্যামেরা অ্যাপের সহায়তাও নিতে পারেন। এতে প্রচুর ক্রিয়েটিভ ফিচার এবং ফিল্টার রয়েছে। এছাড়া PicsArt অ্যাপেও বেশ কয়েকটি অ্যানিমেটেড এফেক্ট বা ফিল্টার রয়েছে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।